Md.Shagar Hasan - (Kushtia)
প্রকাশ ১৩/০২/২০২১ ০৫:১০পি এম

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার নিখোঁজ যুবকের সন্ধান ৩ মাসেও পাওয়া যায়নি

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার নিখোঁজ যুবকের সন্ধান ৩ মাসেও পাওয়া যায়নি Ad Banner

দুই বছরের শিশু আব্দুল্লাহ তালহা। বাবার প্রতীক্ষায় থেকে প্রায় সময়ই দৌড়ে বাড়ির দরজার দিকে ছুটে যায়। সেই সাথে ৫ বছরের আদনান জুবায়ের ও ৮ বছরের পুত্র আমির আল মাহদীও ছুটছে। কিন্তু তাদের বাবা আর আসছেন না। দিন গড়িয়ে রাত আর রাত শেষে দিন এলেও প্রতীক্ষার শেষ নেই তাদের। ৩ মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে তাদের বাবা বাকীবিল্লাহ (৩৭)।

এ নিয়ে প্রশাসনের সহযোগিতা চাইলেও কোনো তথ্য পায়নি পরিবার। বাকীবিল্লাহর সন্ধান দাবিতে সংবাদ সম্মেলনও করেছেন তার পরিবার। পরিবারের পক্ষ থেকে আকুতি জানানো হয়েছে প্রশাসন ও সরকারের কাছে। নিখোঁজ বাকীবিল্লাহ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার বাহিরচর ষোলদাগ দক্ষিণপাড়া এলাকার ইয়াকুব আলীর ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি ব্রন্ডব্যান্ড ইন্টারনেট প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। 

বাকীবিল্লাহর পিতা ইয়াকুব আলী বলেন, তার ছেলে ২০০১ সালে ভেড়ামারা থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিত্র-৫ পান। খুলনা বিভাগের মধ্যে তিনি কৃতিত্ব অর্জন করায় তাকে এনটিভিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পুরস্কারেও ভূষিত করেন। এরপর নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিত্র-৫ পেয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি হন তিনি। খরচ চালাতে না পারায় একপর্যায়ে লেখাপড়া ছেড়ে ঢাকায় অনলাইনে কাজ শুরু করেন বাকী। ছেলেকে ফিরে পাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

নিখোঁজ যুবকের স্ত্রী কুলসুম আক্তার জানান, স্বামীসহ আমরা ঢাকার উত্তরার তুরাগ থানাধীন নিশাত নগর (নলভোগ), ব্লক সি, রোড নং-৩, বাড়ি নং-১/২ এর চর্তুথ তলায় ভাড়া বাসা নিয়ে বসবাস করছিলাম। গত কয়েক বছর সেখানে বসবাস করে আসছি।

গত ১২ নভেম্বর বিকেলে তাদের ৮ বছরের সন্তান আমির আল মাহদীকে নিয়ে আমার স্বামী বাকীবিল্লাহ মাদরাসায় নিয়ে যাওয়ার জন্য বের হন। বাসার নিচে নামতেই ২ জন অপরিচিতি লোক জিজ্ঞাসা করেন কোথায় যাচ্ছেন। তিনি উত্তরে বলেন, ছেলেকে নিয়ে মাদরাসায় যাচ্ছি।

তারা মাদরাসায় যাওয়া লাগবে না বলে ছেলেকে ফিরে যেতে বলে। তৎক্ষণাৎ অপরিচিত ওই দুইজন ব্যক্তি তাকে ধাক্কাতে ধাক্কাতে একটি সিলভার কালারের গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে যায়। গাড়ির ভেতরে ৮-১০ জন ছিল। 

এ ঘটনার কিছুক্ষণ পর বাড়ির নিরাপত্তা প্রহরী এসে আমাকে সংবাদটি অবহিত করেন। নিরাপত্তাকর্মী আরো জানান যে, উল্লিখিত ব্যক্তিগণ নিজেদের ডিবি পুলিশের লোক বলে পরিচয় দেয়। 

আমরা নলভোগ ৩ রাস্তা মোড়ে অবস্থিত ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট অফিসের মো: মঈনের মাধ্যমে আরো কিছু তথ্য জানতে পারি।

বাকীবিল্লাহকে তুলে নেয়ার আগে ০১৮৩৯-৩০২২৪৬ নম্বরে ও ০৯৬১১১৭৮৩২২ নম্বর থেকে ফোন করে বাকীবিল্লাহর অবস্থান জানতে চায়। অবস্থান জানাতে দেরি হওয়ায় তারাই অফিসে চলে আসে। তারা একজন কম্পিউটারে বসে, আরেকজন কাগজপত্র খোঁজাখুঁজি করে। পরে তারা ওই অফিসের একজন লাইনম্যানকে সাথে করে বাসা চিনে নেয়। এরপরেই এই অপহরণের ঘটনা ঘটে।

৩ মাস পরও বাকীবিল্লাহর খোঁজ না পাওয়ায় তার পরিবার দারুনভাবে উদ্বিগ্ন। সন্তান হারানো বেদনায় মা বাবারেোখের ঘুমও হারাম হয়েছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ