Verified আই নিউজ বিডি ডেস্ক
প্রকাশ ১৩/০২/২০২১ ০২:২২পি এম

ক্যান্সারের কাছে হার শাহীন রেজা নূরের

ক্যান্সারের কাছে হার শাহীন রেজা নূরের Ad Banner

অগ্নাশয়ের ক্যান্সারের সঙ্গে তিন বছরের লড়াইয়ে অবশেষে হারলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শাহীন রেজা নূর। শনিবার বাংলাদেশ সময় সকালে কানাডার ভ্যান্কুভারের এক হাসপাতালে তিনি মৃত্যুকে বরন করেন। 

৬৬ বছরের জীবনে তিনি  পুত্রসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। সর্বশেষ তিনি দৈনিক ইত্তেফাকে নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সাল থেকে তিনি স্থায়ী ভাবে কানাডায় চলে যান।  শাহীন রেজা নূরের বাবা সিরাজুদ্দীন হোসেন ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে দৈনিক ইত্তেফাকের বার্তা প্রধান ও কার্যনির্বাহী সম্পাদক ছিলেন।  আট ভাইবোনের মধ্যে দ্বিতীয় শাহীন রেজা নূরের জন্ম ১৯৫৫ সালে মাগুরা জেলার শালিখা থানার শরশুনা গ্রামে।   

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবির আন্দোলনে সক্রিয় ছিলেন শাহীন রেজা নূর। তার নেতৃত্বেই দেশে ‘প্রজন্ম একাত্তর’ গড়ে ওঠে। তিনি এই সংগঠনের সভাপতি।  মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারে জামায়াত নেতা আলী আহসান মো. মুজাহিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের অন্যতম সাক্ষী ছিলেন ছিলেন তিনি। এজন্য তিনি হামলার মুখে পড়েন। 

মুক্তিযুদ্ধের শেষ সময়ে এসে ১০ ডিসেম্বর রাজাকার আলবদরের হাতে নিহত হন তার বাবা  সিরাজুদ্দীন হোসেন।  যুদ্ধাপরাধীর বিচার দাবির আন্দোলনে থেকে শহীদ সন্তানদের নিয়ে গড়ে ওঠা সংগঠন ‘প্রজন্ম একাত্তর’র সভাপতি শাহীন রেজা নূর। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর  জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর করেন শাহীন রেজা।  তিনি ১৯৭২ সালে ঢাকা বেতার কেন্দ্রে বার্তা বিভাগে অনুলিপিকারের চাকরি নিয়ে কর্মজীবন শুরু করেন, পরে অনুবাদকের ভূমিকাও পালন করেন। 

তিনি ১৯৭৩ সালের নভেম্বর মাসে দৈনিক ইত্তেফাকের শিক্ষানবিশ সহ-সম্পাদক পদে যোগ দেন। ১৯৮৮ সালে তিনি কানাডা চলে যান। মন্ট্রিয়ালে থেকে বাংলা 'সাপ্তাহিক প্রবাস বাংলা' পরিবারে যুক্ত হন। পরে দেশে এসে আবার দৈনিক ইত্তেফাকে যোগ দেন।  তার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় প্রেসক্লাব, সাংবাদিক সংগঠনগুলো গভীর শোক জানিয়েছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ