Palash Kanti Das
প্রকাশ ২৭/০১/২০২১ ০৪:৪১পি এম

যদি নির্বাচন এভাবে হয়

যদি নির্বাচন এভাবে হয় Ad Banner

গনতান্ত্রিক ব্যবস্থায় নির্বাচন অপরিহার্য, কিস্তু বর্তমান নির্বাচনী ব্যবস্থায় যে সংকট তাহা হইতে পরিত্রানও জরুরী, নির্বাচনী সহিংসতা, মৃত্যু, কেন্দ্র দকল, ব্যলট বক্স ছিনতাই, ভীতি প্রদর্শন, কেন্দ্রে যেতে নিশেধ করা, একজনের ভোট আরেকজনে দেওয়া কি নাই বর্তমান নির্বাচনী ব্যবস্থায়।

আর এ সকল কারনেই নির্বাচন সম্পর্কে ধারনায় পরিবর্তন এসেছে, জনগন নির্বাচন খেকে ধীরেধীরে দুরে চলে যাচ্ছে, যা গনতন্ত্রের জন্য বয়ে আনছে অশনি সংকেত, এমতবস্থায় আমাদের প্রয়োজন যুগোপযোগী নির্বাচন ব্যবস্থার প্রবর্তন যার মাধ্যমে সকলে কোন প্রতিবন্ধকতা ছাড়াই নির্বাচনে অংশ গ্রহন করিতে পারিবে।

প্রযুক্তির এই যুগে প্রযুক্তির মাধ্যমেই আমরা পেতে পারি সেই কাঙ্খিত নির্বাচন ব্যবস্থা। ভিন্ন জনের ভিন্ন মত থাকবেই, তবে দাড়িয়ে না থেকে আমাদের চলা শুরু করা দরকার প্রযুক্তির হাত ধরে যে ব্যবস্থার মাধ্যমে আমরা ভুলে যেতে পারি বর্তমান এই সংকৃর্ণ নির্বাচনী অধ্যায়, নির্বাচন হয়ে উঠবে আমাদের উন্নয়ন ও আধুনিকতার অনন্য উদাহরন।

হাজার হাজার কোটি টাকা, লক্ষ লক্ষ নির্বাচনী কর্মকর্তা, কোটি কোটি ব্যলট, স্কুল কলেজ বন্ধ করে নির্বাচনী কেন্দ্র, কল কারখানা ব্যবসা বানিজ্য বন্ধ করে ভোট দেওয়ার সুযোগ তৈরীর মাধ্যমে জাতীয় উৎপাদন বন্ধের বর্তমান নির্বাচন ব্যবস্থা হইতে বেরিয়ে আমরা শুরু করিতে পারি নিন্মোক্ত ব্যবস্থা যাহা হইতে মিলবে আমাদের প্রতিকুলতার অবসান।   


প্রযুক্তির মাধ্যমে নির্বাচনের  ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা হবে নির্বাচন কমিশনের। ধাপে ধাপে প্রক্রিয়াটি সংক্ষেপে আলোচনা করা হইল। 

১.    নির্বাচন কমিশন অনলাইন ভোটিং সিস্টেম নামে একটি এ্যাপ বা ওয়েব সাইট নির্মান করিবে;   

২.    সকল ভোটার নিজের জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর ও জাতীয় পরিচয় পত্রের মাধ্যমে নিবন্ধিত মোবাইল সিম দিয়ে উক্ত সিস্টেমে রেজিট্রেশন করিবে;   

৩.   নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী সকল কার্যক্রম উক্ত এ্যাপের মাধমে সম্পন্ন করিবে;   

৪.    প্রার্থী উক্ত এ্যপের মাধ্যমে মনোনয়ন পত্র জমা দিবে;   

৫.   ভোটের দিন ভোটার উক্ত এ্যাপ ব্যবহার করিয়া নির্ধারিত সময়ে ঘরে, বাসায়, অফিসে, গাড়িতে অবস্থান করিয়া ভোট প্রদান করিবে;   

৬.    প্রার্থী, কমিশন সকলে উক্ত এ্যপের মাধ্যমে ফলাফল দেখিবে;         


এই প্রক্রিয়ায় নির্বাচনের মাধ্যমে যে সুফল পাওয়া যাইবে;   

১.    হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ হইবে না;   

২.    স্কুল কলেজ বন্ধ থাকিবে না;   

৩.   নির্বাচনের জন্য নির্বাচনী এলাকায় ছুটি ঘোষনা করিতে হইবে না;   

৪.    ব্যবসা বানিজ্য, কল কারখানা বন্ধ রাখিতে হইবে না;   

৫.   যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকিবে না;   

৬.   জাতীয় ইৎপাদন ব্যহত হইবে না;   

৭.    মারামারী, হানাহানী ঘটিবে না;   

৮.   ব্যলট বক্স ছিনতাই হইবে না;   

৯.    লোক মারা যাইবে না;   

১০.  ভোটার কে ভোট দিতে বাধা দেওয়ার সুযোগ থাকিওে না; ইত্যাদি   

প্রযুক্তির এই যুগে আমরা যদি চেতনায় উদ্বুদ্ধ হইয়া একটু এগিয়ে আসি তাহা হইলে মিলিতে পারে আমেদের সেই কাঙ্খিত প্রত্যাশা।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ