Feedback

আরও...

করোনাভাইরাস: ক্ষুধার ছোবলে দেশের যৌনকর্মীরা

করোনাভাইরাস: ক্ষুধার ছোবলে দেশের যৌনকর্মীরা
April 26
11:49pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
আমরা খুব বিপদে আছি। যদি করোনাভাইরাসের হাত থেকে বেঁচেও যাই, ক্ষুধার জ্বালাতেই মারা যাবো’
গত ২১ মার্চ দৌলতদিয়ার ২৮ বছর বযসী এক যৌনকর্মীর শেষবারের মতো খদ্দের জুটেছিলো। রাজবাড়ী জেলায় অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ এই পতিতালয়টিতে সেদিনের পর থেকেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরুষ প্রবেশ ও বাহিরে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। আলিফ লায়লা (খদ্দেরদের জন্য ব্যবহৃত নাম) বলেন, “গত ১০ বছরে এরকম ভয়ংকর পরিস্থিতি আর কখনো পড়িনি। আমাদের জন্য আয় নেই মানে, খাবারও নেই। ২১ মার্চ আমার দুই সন্তানসহ নিজের খরচ চালানোর জন্য মাত্র ৮শ’ টাকা হাতে ছিলো।” নানারকম সমস্যায় জর্জরিত যৌনকর্মীরা দৈনিক আয়ের ওপরই নির্ভর করেন। তাদের খুব কমই সুযোগ থাকে সেখান থেকে টাকা বাঁচিয়ে ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করার। পরিবারের কারও সঙ্গেই কোনও যোগাযোগ নেই জানিয়ে লায়লা বলেন, “আমার বাচ্চাদের বড় করার একমাত্র স্বপ্নও আজ শেষ হওয়ার পথে।” করোনাভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার নিমিত্তে আরোপিত সরকারি বিধি-নিষেধের আওতায় দেশের প্রায় দেড়লাখ যৌনকর্মী বর্তমানে মানবেতর জীবনযাপন করছে। লায়লা বলেন, “আমি জানি না করোনা কী, আমি শুধু জানি ক্ষুধা কাকে বলে। স্থানীয় এমপি যে ত্রাণ দিয়েছিলেন সেসব এরমধ্যেই শেষ হয়ে গেছে। গত সাতদিন যাবত আমার বাচ্চারা শুধু লবণ-মরিচ দিয়ে ভাত খাচ্ছে।” সাধারণভাবে, প্রতিদিন অন্তত পাঁচ থেকে আটজন খদ্দের লায়লার কাছে আসে। যার বিনিময়ে তিনি দেড়হাজার থেকে তিনহাজার টাকা আয় করেন। এর অর্ধেক তখুনি সর্দারনীকে দিয়ে দিতে হয়। যিনি নিজেও একসময় যৌনকর্মী ছিলেন এবং তিনিই লায়লাকে এই ব্যবসায় এনেছেন। লায়লা জানান, তার আপাতত দিন চলছে ফোনসেক্স ও কিছু নিয়মিত খদ্দেরের সহায়তায়। তিনি বলেন, “আমরা খুব বিপদে আছি। আমরা যদি করোনাভাইরাসের হাত থেকে বেঁচেও যাই, ক্ষুধার জ্বালাতেই মারা যাবো।” পতিতালয়গুলোর করুণ চিত্র টাঙ্গাইলের কান্দাপাড়া পতিতালয়ের সর্দারনী মুন্নুজান মনু (ছদ্মনাম) আই নিউজ বিডিকে জানান, তাদের কাছে ত্রাণ হিসেবে শুধু চাল পৌঁছেছে। তবে ভাতই তো একমাত্র খাবার হতে পারে না। তিনি বলেন, “যশোরের বাবুবাজার থেকে কয়েকদিন আগে কয়েকটা মেয়ে এখানে এসেছিলো। তারা ক্ষুধার যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলো। তবু আমরা নিজেদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে তাদের রাখতে পারিনি। আমাদের মেয়েরাও ভয়ে কেউ বাইরে যাচ্ছে না।” ২৯টি সংগঠনের জোট সেক্স ওয়ার্কার্স নেটওয়ার্কার্স বাংলাদেশের (এসডব্লিউএন) তথ্যানুযায়ী, দৌলতদিয়ায় অন্তত ১ হাজারের বেশি যৌনকর্মী এবং আরও ৪শ’ শিশু তাদের মায়ের সাথে বাস করেন। অন্যদিকে, কান্দাপাড়ায় আছেন প্রায় ৫শ’ যৌনকর্মী। এসডব্লিউএন এর সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ইভান আহমেদ কথা বলেন, কয়েটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান যৌনকর্মীদের টাকা ও খাবার দিয়ে সাহায্য করলেও প্রয়োজনের তুলনায় সেগুলো খুবই সামান্য। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে বেশি খারাপ অবস্থায় থাকা যৌনকর্মীদের বাঁচানো কঠিন হবে বলেও আশংকা প্রকাশ করেন তিনি। সরকারি সহযোগিতা টাঙ্গাইলের ডেপুটি কমিশনার (ডিসি) মোঃ শহিদুল ইসলাম ও রাজবাড়ীর ডিসি দিলশাদ বেগম জানান, যৌনকর্মীসহ সকল কর্মহীনকে সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। দিলশাদ বেগম বলেন, “ত্রাণ সহায়তা হিসেবে দৌলতদিয়ার ১৩শ’ জনের প্রত্যেককে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়েছে।” তিনি এও স্বীকার করেন যে, ত্রাণ সহায়তা অবশ্যই চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত নয়। ভাসমান যৌনকর্মীদের অবস্থা আরও শোচনীয় এসডব্লিউএন মতে, যৌনকর্মীরা পতিতালয়, হোটেল, বাড়ি ও অন্যান্য আবাসিক জায়গায় অর্থাৎ যেগুলোগে “মিনি পতিতালয়” বলা হয়, সেসব জায়গায় থেকে তাদের ব্যবসায় পরিচালনা করে। এছাড়া, রাস্তায় ভাসমান যৌনকর্মীও রয়েছে। ১১টি পতিতালয়ের প্রায় ৫ হাজার নারী কাজ করে। যেখানে ৭০ ভাগই ভাসমান যৌনকর্মী। করোনাভাইরাসের কারণে সবচেয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন তারা। এসডব্লিউএন প্রেসিডেন্ট কাজল আখতার বলেন, “তাদের জন্য খাবার সংগ্রহ অসম্ভব হয়ে পড়েছে। নারায়ণগঞ্জেই কেবল প্রায় ৩শ’ যৌনকর্মী রয়েছেন। প্রত্যেকদিন তারা খাবারের জন্য ফোন করছেন। আমি জানি না এই ভাইরাস কতটা শক্তিশালী, তবে আমাদের আসল শত্রুর নাম ক্ষুধা।”

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে ৩ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল

জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে ৩ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল

৩ মাস ধরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণ, কারাগারে অভিযুক্ত

৩ মাস ধরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণ, কারাগারে অভিযুক্ত

ধর্ষণের পর টাকায় মীমাংসা

ধর্ষণের পর টাকায় মীমাংসা

প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইতিহাস ঐতিহ্যের ২৫০ বছরের পুরোন জমিদার বাড়ি ও মসজিদ

প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইতিহাস ঐতিহ্যের ২৫০ বছরের পুরোন জমিদার বাড়ি ও মসজিদ

শাকিল বাড়ি ফিরেছে,তবে মৃত

শাকিল বাড়ি ফিরেছে,তবে মৃত

সৌদি ভিসার ২৪ দিন মেয়াদ বাড়লঃ নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সৌদি ভিসার ২৪ দিন মেয়াদ বাড়লঃ নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আন্দোলনকারীদের ভিসা বাতিল করতে পারে সৌদি সরকার: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আন্দোলনকারীদের ভিসা বাতিল করতে পারে সৌদি সরকার: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অবশেষে পদ ছাড়ছেন বেফাক মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস!

অবশেষে পদ ছাড়ছেন বেফাক মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস!

দল মত নির্বিশেষ ইসলামকাটি ইউনিয়নে শেখ আব্দুল আজিজ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হোক

দল মত নির্বিশেষ ইসলামকাটি ইউনিয়নে শেখ আব্দুল আজিজ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হোক

ব্রহ্মপুত্রের ভাঙ্গনে মুছে যাওয়ার সম্ভাবনা রৌমারী’র মানচিত্র!

ব্রহ্মপুত্রের ভাঙ্গনে মুছে যাওয়ার সম্ভাবনা রৌমারী’র মানচিত্র!

স্বামীর বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ, গ্রেফতার পুনম পান্ডের স্বামী

স্বামীর বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ, গ্রেফতার পুনম পান্ডের স্বামী

এবার ভাইরাল স্বাস্থ্যের গাড়িচালক মালেকের দরজা

এবার ভাইরাল স্বাস্থ্যের গাড়িচালক মালেকের দরজা

স্মৃতির পাতায় অমলিন প্রিয় ক্যাম্পাস

স্মৃতির পাতায় অমলিন প্রিয় ক্যাম্পাস

মনিরামপুরের সিনেমাহল ও পার্ক এ চলছে অশ্লীলতা

মনিরামপুরের সিনেমাহল ও পার্ক এ চলছে অশ্লীলতা

রোববার থেকে সৌদির নতুন ভিসা

রোববার থেকে সৌদির নতুন ভিসা

সর্বশেষ

ইতিহাসের আজকের দিনে

ইতিহাসের আজকের দিনে

১ থেকে ৫০০ টোকেনধারীকে ডেকেছে সৌদি এয়ারলাইনন্স

১ থেকে ৫০০ টোকেনধারীকে ডেকেছে সৌদি এয়ারলাইনন্স

দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা

দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা

এক ম্যাচ খেলেই সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেন মিচেল মার্শ

এক ম্যাচ খেলেই সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেন মিচেল মার্শ

বিশ্বে এপর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩ কোটি ১৮ লাখ মানুষ

বিশ্বে এপর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩ কোটি ১৮ লাখ মানুষ

যশোরে নতুন করে দু’জন ডাক্তারসহ ১৫ জনের করোনা শনাক্ত

যশোরে নতুন করে দু’জন ডাক্তারসহ ১৫ জনের করোনা শনাক্ত

প্রতি কেজি ইলিশ মাছ ১০ ডলারে যাচ্ছে ভারতে, স্থানীয় বাজারে দাম বৃদ্ধি

প্রতি কেজি ইলিশ মাছ ১০ ডলারে যাচ্ছে ভারতে, স্থানীয় বাজারে দাম বৃদ্ধি

এশিয়ার যে দেশে বিয়ে করলে নবদম্পতি পাবে ৪ লাখ ৮২ হাজার টাকা

এশিয়ার যে দেশে বিয়ে করলে নবদম্পতি পাবে ৪ লাখ ৮২ হাজার টাকা

সুনামগঞ্জ সমাচার

সুনামগঞ্জ সমাচার

২২টি বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

২২টি বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

সারা দেশে রাস্তা নির্মাণে মাস্টারপ্ল্যান করা হবে: অর্থমন্ত্রী

সারা দেশে রাস্তা নির্মাণে মাস্টারপ্ল্যান করা হবে: অর্থমন্ত্রী

কবিতা

কবিতা

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কোন লিমিটেড কোম্পানি বা সোশ্যাল ক্লাব নয়

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কোন লিমিটেড কোম্পানি বা সোশ্যাল ক্লাব নয়

নেতৃত্ব ঠিক করে গেছেন আল্লামা শফী

নেতৃত্ব ঠিক করে গেছেন আল্লামা শফী

পেটের ব্যাথা সইতে না পারে স্কুলছাত্রী কীটনাশক পানে আত্মহত্যা

পেটের ব্যাথা সইতে না পারে স্কুলছাত্রী কীটনাশক পানে আত্মহত্যা