Md Jahedul Islam
প্রকাশ ২৪/০১/২০২১ ০৪:৫৭পি এম

চরিত্রহীন পর্ব ১

চরিত্রহীন পর্ব ১ Ad Banner

"প্রিয় পাঠক, কেমন আছেন আপনারা সবাই? আজ থেকে আমি একটি নতুন ধারাবাহিক গল্প পোস্ট করতে শুরু করছি। প্রতিদিন দুই থেকে তিনটি পর্ব পাবেন এই গল্পের। আশা করি আপনাদের ভাল লাগবে।"

এই ববি তুমি আমার প্রান। তুমি যা বলবে আমি তাই করতে রাজী আছি।

না। তুমি মিথ্যে বলছো রিচি। আমি যদি বলি তোমাকে আমার সাথে এখনই সবকিছু করতে?

হাঁ পারবো। বল? কোথায় নিয়ে কি করবে? রাজী আমি। চল।

তাহলে রেডি থেকো। আজ নয় কাল। কাল ঠিক সন্ধ্যায় আমরা দুজন একটু চা বাগানে যাব। কেমন? তারপর খুব খুব খুব আদর করবো তোমাকে। ওহ জীবন টা আর সইছে না।

ঠিক আছে। কিন্তু যদি আমি প্রেগন্যান্ট হয়ে পরি!

ধুর। ওসব কিচ্ছু হবে না। আমি সব ব্যবস্থা করেই করবো তোমাকে। তোমার কি কোন ক্ষতি আমি হতে দিতে পারি?  তুমি আমার জীবন গো জীবন।

আচ্ছা। ঠিক আছে। যদি তারপরেও কিছু প্রবলেম হয়ে যায়? ধর কেউ আমাদের এ অবস্থায় দেখে ফেললো, তখন তো আমার খুব বদনাম হবে। বিয়ে করবে তো তখন?

এ তুমি কি বলছো? তুমি তো আমার বউ। তাই তো তোমার সাথে সোহাগরাত না কাটিয়ে শান্তি পাচ্ছি না। রাতে ঘুম আসে না, জানো? পাগল হয়ে যাচ্ছি? ইস কবে যে তোমার সব কিছু পাবো?

কালই পাবে

ওঃ আমার সোনা। আর পারছি না। এখনই দেখ কেমন ..হয়ে গেছে।

তুমি একটা অসভ্য।

জানু আমি তো জানি, আমি একটা অসভ্য। আর কিছু বল,আরেকটা নতুন কিছু?

চুপ কর তো? সব সময় পাগলামি। এখন বাড়িতে যাই। আজকে বড়দা আসবে। আমাকে বাড়িতে না দেখলে সর্বনাশ..ভীষণ বকাবকি করবে। 

বাঁধের ধারে দুজন একান্তে বসে বসে সেই বিকাল থেকে গল্প করে যাচ্ছে। যেখানে ভালোবাসার নামে যৌনতার রসের আলাপে প্লাবিত হয়ে যাচ্ছে দুই অল্পবয়স্ক অনভিজ্ঞ দুই যুবক যুবতী।

পাশ থেকে কয়েকজন গ্রামবাসী রোজই পাশাপাশি বসে থাকা দুইজনকে দেখে। কিন্তু কিছু বলার সাহস করে না।

কারন ববির বাবা মি পাট্রিক, এই এলাকার এখন সংসদ সদস্য এবং ধনী ব্যক্তি। তাই তার উচ্ছন্তে যাওয়া ছেলেকে কেউ কিছু বলার সাহস করে না।

সন্ধ্যায় দুজন দুদিকে চলে গেল। আর ববি বাড়ি এসে দেখে ওর জন্য চিঠি এসেছে। খাম খুলে দেখে ওর বিবাহিত প্রাক্তন প্রেমিকা নেহার চিঠি।

কি লেখা আছে সেই চিঠির মধ্যে?



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ