Md. Saidur Rahman
প্রকাশ ২৪/০১/২০২১ ০১:৫৫পি এম

জিল বাইডেন (আমেরিকার ফার্স্ট লেডি)

জিল বাইডেন (আমেরিকার ফার্স্ট লেডি) Ad Banner

প্রথম ছিলেন আমেরিকার সেকেন্ড লেডি। ২০০৯ সাল থেকে ২০১৭ সাল। টানা ৮ বছর। আর এখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পরাজিত করে জো বাইডেন সাদা বাড়ির দখল নেওয়ার পর, তিনিই হলেন আমেরিকার ফার্স্ট লেডি। জিল বাইডেন। তবে পেশায় তিনি একজন অধ্যাপক। নতুন পদাধিকারী হলেও চাকরি ছাড়ছেন না ৬৯ বছরের বাইডেন-পত্নী। আমেরিকার ২৩১ বছরের ইতিহাসে তিনিই হতে চলেছেন প্রথম ফার্স্ট লেডি, যিনি হোয়াইট হাউসে থেকেই চালিয়ে যাবেন তাঁর চাকরি। 

১৯৭৭ সালে জো বাইডেনের সঙ্গে বিয়ে হয় জিলের। বছরের পর বছর ধরে তিনিই তাঁর ৭৭ বছরের স্বামীর বিশ্বস্ত পরামর্শদাতা। একইসঙ্গে তিনি একজন মা, একজন ঠাকুমা। আবার পেশায় তিনি ইংরেজির অধ্যাপক। ফার্স্ট লেডি হওয়ার পরও ফুলটাইম চাকরি চালিয়ে যাবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

ওয়াহো বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসের এক অধ্যাপক ক্যাথেরিন জেলিসনের কথায়, বেশিরভাগ আমেরিকান মহিলার একটি কর্মজীবন আর একটি পারিবারিক জীবন থাকে। কিন্তু ফার্স্ট লেডিদের কোনওদিন তা করার অনুমতি ছিল না। হয়তো এ বার সেই সময় এসেছে, যদিও বেশিরভাগ আমেরিকান ফার্স্ট লেডির সঙ্গে ফোনে কথা সারকে স্বচ্ছন্দ বোধ করবে, যিনি হোয়াইট হাউসে ২৪X৭ অন কলে থাকতে পারবেন। ফার্স্ট লেডি হিসেবে তিনি শিক্ষগত ক্ষেত্রে নানা কাজ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ