Feedback

আরও...

ধস নেমেছে চিংড়িশিল্পে

ধস নেমেছে চিংড়িশিল্পে
April 23
01:17am
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore

দিশাহারা খামারি ও ব্যবসায়ীরা

করোনাভাইরাসের প্রভাবে রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে চিংড়িশিল্পে ব্যাপক ধস নেমেছে। কারখানা বন্ধ থাকায় মাছ বিক্রি করতে পারছেন না খামারিরা। স্থানীয় বাজারগুলোতে গলদা ও বাগদা চিংড়ির দরপতন ঘটেছে অস্বাভাবিক হারে। চিংড়ি মাছের পাশাপাশি ভেটকি, টেংরা, পারশে, পাবদা, তেলাপিয়াসহ সব ধরনের সাদা মাছের দাম কমে গেছে। এতে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন খামারি ও ব্যবসায়ীরা। বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী কভিড-১৯-এর কারণে ইউরোপসহ আন্তর্জাতিক বাজারে রপ্তানি ও কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সাতক্ষীরার স্থানীয় বাজার ও আড়তগুলো ঘুরে দেখা গেছে, ১৪০০ টাকা দরের চিংড়ি মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকায়। আর ১২০০ টাকা দরের চিংড়ি মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ টাকা থেকে ৫০০ টাকায়। উৎপাদন খরচের চেয়ে কম মূল্যে মাছ বিক্রির কারণে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন চাষিরা। এ অবস্থায় আগামী অর্থবছরে শুধু সাতক্ষীরা জেলায় মৎস্য খাতে প্রায় ২০০ কোটি টাকা ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় মৎস্য বিভাগ। চিংড়িশিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা খুব দ্রুত বাস্তবায়নের পাশাপাশি ব্যাংক ঋণ মওকুফের দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট চিংড়িচাষি, ব্যবসায়ী ও হ্যাচারির মালিকরা। মৎস্য অধিদফতরের সূত্রমতে, দেশের উপকূলীয় জেলা খুলনা, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরায় দুই লাখ ৭৬ হাজার হেক্টর জমিতে চিংড়ি চাষ হয়। বিদেশে রপ্তানিকৃত চিংড়ির সিংহভাগ উৎপাদিত হয় এ অঞ্চল থেকে। এর সঙ্গে জড়িত রয়েছেন ১০ লাখ মানুষ। গত বছর এ খাত থেকে বৈদেশিক মুদ্রা আয় হয়েছে পাঁচ হাজার কোটি টাকা। যুক্তরাজ্যসহ চিংড়ি রপ্তানির দেশগুলোতে সব ধরনের শিপমেন্ট বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং দেশের হিমায়িত কারখানাগুলোর অধিকাংশ বন্ধ থাকাসহ খাদ্য সংকটের কারণে অনেকেই চিংড়ি চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন। ফলে রপ্তানিমুখী এ খাতের উৎপাদন অনেকাংশে কমে গেছে। সাতক্ষীরা জেলা চিংড়ি চাষি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডা. আবুল কালাম বাবলা জানান, জেলার চাহিদা মিটিয়ে সাতক্ষীরা থেকে প্রতিদিন ৭০ থেকে ১০০ ট্রাক সাদা মাছ রাজধানী ঢাকা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি হতো। করোনার কারণে রাস্তাঘাট বন্ধ থাকায় দু-একটি ট্রাক বাইরে যাচ্ছে। তিনি জানান, জেলায় দুই লাখ মৎস্যচাষি রয়েছেন। এর মধ্যে দেড় লাখ প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র চাষি। আর এর সঙ্গে জেলায় প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দুই লাখ ২৫ হাজার মানুষ নানাভাবে জড়িত। করোনার কারণে মাছের ন্যায়সম্মত বাজারমূল্য না পাওয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে মৎস্যশিল্প। এ অবস্থায় সবচেয়ে ক্ষতির মুখে পড়েছেন আধানিবিড় প্রকল্পের চিংড়িচাষিরা। প্রথম পর্যায়ে আধানিবিড় চিংড়ি প্রকল্পে ১০টি পুকুর প্রস্তুত করতে আড়াই থেকে তিন কোটি টাকা খরচ হয়। সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাটে বহু আধানিবিড় চিংড়ি প্রকল্প রয়েছে। এ অবস্থায় তারা পড়েছেন সবচেয়ে বিপাকে। চিংড়ির দাম অর্ধেকে নেমে আসা, খাদ্য সংকট, বিদ্যুৎ বিল এবং ঘের কর্মচারীদের বেতন নিয়ে চিংড়ি উৎপাদন করতে হিমশিম খাচ্ছেন খামারিরা। তাই ব্যাংক সুদ মওকুফের পাশাপাশি সরকারকে নতুন করে স্বল্প সুদে চিংড়ি খামারিদের ব্যাংক ঋণ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি। সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মশিউর রহমান জানান, সাতক্ষীরায় ৮৮ হাজার ৭৯ হেক্টর জমিতে চিংড়ি চাষ হয়।

 এর মধ্যে ৬৬ হাজার ৮০৬ হেক্টর জমিতে বাগদা ও ৯ হাজার ১৭ হেক্টর জমিতে গলদা চাষ হয়ে থাকে। এর বাইরে ধান চাষের সঙ্গে সাদা মাছ ও চিংড়ি চাষ হয় ১২ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে। গত বছর সাতক্ষীরায় ৩৯ হাজার মেট্রিক টন চিংড়ি উৎপাদিত হয়েছে। এ বছর ৪২ হাজার মেট্রিক টন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু করোনার কারণে হুমকির মুখে চিংড়ি শিল্প। এ ভরা মৌসুমে ঘের মালিকরা ঘেরে ঠিকমতো চিংড়ি রেণু ছাড়তে পারেননি। বাজারে মাছের খাদ্য সংকট। চিংড়ি বিক্রিতে দাম কম। সব মিলিয়ে এ জেলায় ঘের, হ্যাচারি ও নার্সারিসহ চিংড়িশিল্পে ২০০ কোটি টাকা ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

স্পর্শকাতর স্থানে হাত ডান্স গুরুর, যা বললেন নোরা

স্পর্শকাতর স্থানে হাত ডান্স গুরুর, যা বললেন নোরা

জামালপুর পৌরসভার মেয়র প্রার্থী নূর হোসেন আবাহনী

জামালপুর পৌরসভার মেয়র প্রার্থী নূর হোসেন আবাহনী

সর্বশেষ

শিশুর জন্ম মুসলিম হিসেবেই, আমি কেবল নিজ ধর্মে ফিরেছি: নারী নব মুসলিম

শিশুর জন্ম মুসলিম হিসেবেই, আমি কেবল নিজ ধর্মে ফিরেছি: নারী নব মুসলিম

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

কুষ্টিয়ায় হোটেল মালিকগন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

কুষ্টিয়ায় হোটেল মালিকগন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

বাউফলে জোড়া খুনের বিচারের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

বাউফলে জোড়া খুনের বিচারের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

গল্প

গল্প

ভারতের স্থলবন্দর খুলে দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ভারতের স্থলবন্দর খুলে দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টপেজ

স্টপেজ

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের বলার মতো গল্প ফাউন্ডেশনের হাজার তম দিন উদযাপন

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের বলার মতো গল্প ফাউন্ডেশনের হাজার তম দিন উদযাপন

হবিগঞ্জের জি কে গউছের নাকে অস্ত্রোপাচার

হবিগঞ্জের জি কে গউছের নাকে অস্ত্রোপাচার

পদ্মায় নৌকাডুবি থামবে কবে?

পদ্মায় নৌকাডুবি থামবে কবে?