• 0
  • 0
M. R. Sumon
Posted at 14/01/2021 11:18:am

তোমার চোখে স্বাধীনতা মানে কী?→এম. আর. সুমন

তোমার চোখে স্বাধীনতা মানে কী?→এম. আর. সুমন

বিভিন্ন আঙ্গিকে বিভিন্নরূপে অর্থ দাঁড়ায় ভিন্ন। ১৯৭১ সালের বাংলাদেশকে মুক্ত করার স্বাধীনতা ছিলো স্বৈরাচারী শাসন-বৈষম্য থেকে নিজেদেরকে মুক্ত করার স্বাধীনতা।

বর্তমানে দেশের নাগরিক হিসেবে স্বাধীনতা, সমাজের বিভিন্ন অধিকারের স্বাধীনতা, ব্যক্তি স্বাধীনতা! স্বাধীনতার শেষ নেই কিন্তু সবকিছুতেই নেই যা খুশি তা করবার স্বাধীনতা। আছে বাক স্বাধীনতা তাই বলে অধিকার নেই কোনো ব্যক্তির সম্মানে আঘাত করে কথা বলার, অধিকার নেই কারো ধর্মকে হানী করে কথা বলর। স্বাধীনতা মানে পরাধীনতা থেকে মুক্তি তবে যা খুশি তা করা নয়। এর আছে অনেক শর্ত। খাঁচা বন্ধি একটি পাখির কথা ধরুন- তার আদর আপ্যায়ন খাবার দাবার কোনো কিছুর কী কমতি আছে? তবু সে পরাধীন। পাখিটি চায় নিজের মত করে বাঁচতে। খাবার থাকুক আর না থাকুক তবু সে চায় পাখনা মিলে খোলা আকাশে উড়তে। তাহলে স্বাধীনতার একটা মানে এও হতে পারে স্বাধীন দেশে বৈষম্যহীন বিচরণ। পাখির মত খাবার সব জায়গায় পাওয়া যাবে না খাবার খোঁজার পথ থাকুক তবু উন্মুক্ত। স্বাধীনতা একটি দেশের প্রেক্ষাপটে থাকবে  নির্দিষ্ট জাতিসত্তা, নির্দিষ্ট ভূখণ্ড, সার্বভৌমত্ব ও নির্দিষ্ট নিয়মকানুনে গড়া একটি সরকার। নির্দিষ্ট নিয়ম কানুন! কেননা আছে একটি সংবিধান তার হবে না ব্যত্যয় মানুষের অধিকার হবে না ক্ষুণ্ণ। স্বাধীন দেশের সরকারের অন্যতম কাজ হল দেশের সকল মানুষের খাদ্য-বস্ত্র-বাসস্থান ও শিক্ষার সুব্যবস্থা করা।

সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তি। পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশ অর্থাৎ পশ্চিম পাকিস্তান ও পূর্ব পাকিস্তান আলাদা হয়ে পূর্ব পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশের কেন সৃষ্টি? এই অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বৈষম্য-শোষণ থেকে মুক্তির জন্য।

আজ স্বাধীন দেশেও স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ। নিজস্ব সাংস্কৃতিকে করা যায় না অবাধ বিচরণ। জাত ধর্ম ভেদে প্রত্যকের নিজস্ব অনুষ্ঠান উৎসব পালন করবার অধিকার রয়েছে। এখানে আজ দুর্বৃত্ততা। অর্থনৈতিক মুক্তি মিলেনি।ধনী ক্রমান্বয়ে আরো ধনবান। গরীবের ভিটেমাটি রক্ষা করা দায়। স্বাধীনতায় খাদ্য বাসস্থান শিক্ষায় জাতি হবে সমৃদ্ধ। রাতে বিভিন্ন অলিতে গলিতে,ব্রিজের নিচে রেলওয়ে স্টেশনে শত সহস্র মানুষকে বাসস্থানহীন- বস্ত্রহীন চোখে পড়ে। স্বাধীনতা পরিপূর্ণ হয়নি। শিক্ষায় স্বাধীনতা নেই। মেধার মূল্যায়ন নেই। ক্ষমতা-টাকায় মেধা হয় কেনা বেচা। স্বাধীনতাই থাকবে না কোনো বৈষম্য। নিজের মেধায়-যোগ্যতায় চাকরী পাবে হবে আসনিত। কিন্তু তার কতটুকুই বা বাস্তবায়ন হচ্ছে।

আমাদের সামনে মামা চাচার জোর দৃশ্যমান প্রতিনিয়ত। স্বাধীনতা প্রতিয়মান হয় ক্ষমতায় যা স্বাধীনতার সম্পূর্ণ পরিপন্থী। স্বাধীন দেশে পরিবারতন্ত্র থাকবেনা। ব্যক্তি পরিচয়ের চেয়ে কর্ম পরিচয় থাকবে প্রাধান্যে। রাজনীতিবিদের ছেলে রাজনীতিবিদ এ নিয়ম কোনক্রমেই স্বাধীনতার চেতনাকে ধারণ করে না। নির্বাচনের আসরে প্রার্থী মনোনয়নে চরিত্র-কর্ম না দেখে খোঁজা হয় অর্থ দেখা হয় পরিবারতন্ত্র। মানুষ স্বাধীনতা থেকে হচ্ছে বৈষম্যের স্বীকার। একজন মেধাবী ছাত্র চাইলেই হতে পারে না ছাত্রনেতা। একজন আদর্শ মানুষ চাইলেই হতে পারে না সংসদ সদস্য! কিন্তু কেন? ইহাই স্বাধীনতাকে করে ক্ষুণ্ণ।

শুরুতে বলেছিলাম স্বাধীনতার আছে শর্ত যা খুশি তা করা যাবে না ইচ্ছামত। স্বাধীন দেশ আমি স্বাধীন তার মানে এ নয় আমার মন চাইলো আমি মাদক-ব্যবসা, খুন রাহাজানি, ধর্ষণ, ব্যভিচার করব! রাষ্ট্রীয় সংবিধান ক্ষুণ্ণ হয় এমন কোনো কিছুই করা যাবে না ইহাই স্বাধীনতা। স্বাধীনতা মানে নিজের জন্যে রাষ্ট্রের একজন নাগরিক হিসেবে যে অধিকারগুলোর কথা বলা হয়েছে সে গুলো সম্পূর্ণরূপে পাওয়া ও নাগরিক হিসেবে রাষ্ট্রের প্রতি দায়িত্বগুলো সঠিকভাবে পালন করতে পারারো সুযোগ থাকা। রাষ্ট্রের প্রতি প্রধান দায়িত্ব রাষ্ট্রীয় আইন, সংবিধান মেনে চলা।

ভোটার অধিকার সুষ্ঠুভাবে পালন করা রাষ্ট্রের প্রতি নিজের কর্তব্যপালন। কিন্তু সে অধিকার পালনের সুযোগ থাকা লাগবে, যদি তা না হয় আপনার স্বাধীনতা হল ক্ষুণ্ণ। স্বাধীনতা মানে বিজয়ের হাসিতে প্রাণখোলা আনন্দ। যেখানে থাকবে না সন্তান হারানোর ভয়,শাসকের অত্যাচার, কোনো বৈষম্য।


স্বাধীনতা মানে কি জানো?
হলুদরাঙা মেয়েটির ঠিক ছিলো বিয়ের দিনক্ষণ
স্বামীর ভালোবাসার স্পর্শ পাওয়ার আগেই হল স্বপ্নের বলিদান, প্রথমে বস্ত্রহরণ
তারপর দেহ ক্ষতবিক্ষত হলো পাক হায়ানাদের থাবায়। ছিন্নভিন্ন বস্ত্র-দেহে বীরাঙ্গনা সুফিয়া চলে,
আকাশ বাতাস করে হাহাকার
পাগলি বলে অমানুষগুলো হাসি ঠাট্টায় মেতে উঠে, বীরাঙ্গনা এদিক সেদিক তাকায় আর ভাবে
যাবে সাগরে নাকি ঝুলবে গাছে।
বাবা-মা'র ছিলো কত স্বপ্ন তাদের ফুটফুটে শিশুসন্তান হবে অনন্য, আদরের মানিক পুড়েছে ঘরে রাজাকারের দেওয়া আগুনে।
সামাজিক-সাংস্কৃতিক-অর্থনৈতিক সকল প্রকার বৈষম্য থেকে মুক্তি ৩০ লক্ষ শহীদের প্রাণে, ২ লক্ষ মা-বোনের সম্মানের বিনিময়ে পাওয়া স্বাধীনতা;
স্বাধীনতা মানে কি জানো গর্ভবতী মায়ের নির্ভয়ে প্রসব বেদনা,
স্বাধীনতা মানে আমার বোনটির ভয়হীন রাস্তায় হাঁটা।
স্বাধীনতা মানে অবারিত কণ্ঠে মন খুলে কথা বলা।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ