• 0
  • 0
Snigdha
Posted at 12/01/2021 08:10:am

শিশুর শারীরিক এবং মানসিক পরিচর্যার জন‍্য কিছু টিপস

শিশুর শারীরিক এবং মানসিক পরিচর্যার জন‍্য  কিছু টিপস

সুস্থ, সবল ও সাস্থ্যবান সন্তান আমরা কে না চাই? আর তাই, সন্তান হওয়ার পর প্রতিটি বাবা-মায়ের দায়িত্ব বেড়ে যায় কয়েক গুণ। কারণ একটাই, তা হল সন্তান যেন সুস্থ-সবল এবং স্বাভাবিকভাবে বেড়ে উঠে। তার যেন সঠিক মানসিক বিকাশ ঘটে। তাই সন্তানের সুস্থতায় অনেক কিছুই বাবা-মাকে মেনে চলতে হয়। তাই শিশুর শারীরিক এবং মানসিক পরিচর্যার জন‍্য জেনে রাখুন কিছু টিপস, যা হয়তো অনেকেরই অজানা। 

▪ জন্মের পরপরই শিশুকে মধু, চিনির পানি, মিসরির পানি বা পানি খেতে দেবেন না। অবশ্যই শিশুকে বুকের দুধ দিন। এতে আছে সকল রোগের প্রতিষেধক।

▪ প্রথম ৬ মাস শিশুকে বুকের দুধ ছাড়া অন্য কিছু খেতে দিবেন না। 

▪ জন্মের প্রথম তিন দিন শিশুকে গোসল করাবেন না। 

▪ শিশুকে জোর করে খাওয়াবেন না। 

▪ শিশুকে কখনোই উঁচু স্থানে একা রেখে যাবেন না। 

▪ শিশুকে কখনোই গোসল করানোর পর সাথে সাথে তেল ব্যবহার করবেন না। 

▪ আপনার শিশুকে শান্ত রাখার জন্য চুষনি ব্যবহার করবেন না। 

▪ রাতে ঘুমের মধ্যে ফিডারে করে দুধ দেবেন না। ফিডার বা বোতল ব্যবহার করবেন না। এতে শিশুর নাক দিয়ে দুধ ভেতরে গিয়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

▪ জ্বর হলে মোটা জামাকাপড় বা কাঁথা-কম্বল দিয়ে ঢেকে রাখবেন না। 

▪ প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট শিশুকে রোদে রাখুন। হাড়ের মজবুত গঠনের জন‍্য যা বিশেষ সহায়ক।

▪ ডায়রিয়া বা পাতলা পায়খানা হলে কোন খাবার বন্ধ করবেন না। স্বাভাবিক খাবার দেয়া চলমান থাকবে।

▪ শিশুকে একটানা অনেকক্ষণ ডায়াপর পরিয়ে রাখবেন না। ভেজা, স‍্যাঁতস‍্যাঁতে ডায়াপার থেকে শিশুর দেহে র‍্যাশ উঠতে পারে।

▪ ঠাণ্ডা লাগবে বলে অতিরিক্ত কাপড় দিয়ে শিশুকে ঢেকে রাখবেন না। 

▪ আপনার সন্তানকে টিনজাত খাবার দেবেন না। 

▪ নবজাতক শিশুদের ২৮ দিন বয়স পর্যন্ত হাম হয় না। 

▪ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে কখনোই আপনার শিশুকে ওয়াকার দিয়ে হাঁটতে দেবেন না।

▪ শ্বাসকষ্টের জন্য ঘুমের ব্যাঘাত ঘটলে কখনোই ঘুমের ওষুধ খাওয়াবেন না। 

▪ শিশুকে বাইরের খোলা খাবার, বাসি খাবার ও দীর্ঘ দিন ফ্রিজে রেখে দেয়া খাবার দেবেন না।

▪ ফল জাতীয় খাবার না ধুয়ে খাওয়াবেন না।

▪ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া সর্দি-কাশির জন্য অপ্রয়োজনীয় ওষুধ খাওয়াবেন না। 

▪ না খেলে বা দুষ্টমি করলে কখনো আপনার শিশুকে ভয় দেখাবেন না। এতে মানসিক বিকাশে সমস্যা হতে পারে। 

▪ শিশুকে মারধর করবেন না, সমস্যা হলে বুঝিয়ে বলুন।

▪ সাধারণ সর্দি-কাশি বা জ্বর হলে নিজে নিজে অ্যান্টিবায়োটিক দেবেন না।

▪ শিশুর সামনে কখনো ধূমপান করবেন না।

▪ শিশুকে নিয়ে কোন ধরণের ভয়ের সিনেমা, নাটক দেখবেন না। 

▪ রান্নাঘর বা টয়লেটে আপনার শিশুকে একা ছাড়বেন না। 

▪ সুই, কাঁচি, দিয়াশলাই, ছুরি, ধারালো অস্ত্র এবং সব ধরণের ওষুধ শিশুর নাগালের বাইরে রাখুন।

▪ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া বারবার শিশুর এক্সরে করবেন না।

▪ এছাড়া আত্মীয়ের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্ক না হওয়াই ভালো।

তথ‍্য - হেলথ ম্যাগাজিন


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ