Feedback

সারাবিশ্ব

বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারে করোনা: বান কি মুন

বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারে করোনা: বান কি মুন
April 19
05:05am
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
আই নিউজ বিডি ডেস্ক: করোনাভাইরাস মহামারী মানবজাতির জন্য এক নজিরবিহীন চ্যালেঞ্জ। গত কয়েক দশকেও এমন পরীক্ষার মুখোমুখি হয়নি বিশ্ব। বিশ্ব এবং এর নেতাদের জন্যও এটা একটা বড় পরীক্ষা। এ মহামারী ইতিমধ্যে দুঃখজনকভাবে বিশাল সংখ্যক মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। আমাদের অর্থনীতির ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে এবং একটা দীর্ঘমেয়াদি ও অকল্পনীয় আর্থিক মন্দা সৃষ্টি করবে। ঐতিহাসিক এ হুমকি মোকাবেলায় বিশ্বনেতাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। কোনো কালক্ষেপণ না করে তাদের সংকীর্ণ মনোভাব ও একপেশে জাতীয়তাবাদ দূরে ছুড়ে ফেলতে হবে। ক্ষুদ্র স্বার্থ, স্বল্পমেয়াদি ও আত্মকেন্দ্রিক চিন্তা-ভাবনা থেকে বের হয়ে সমগ্র মানবতার অভিন্ন স্বার্থ রক্ষার জন্য একযোগে কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে কাজে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। আমি দীর্ঘদিন জাতিসংঘের মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। সংস্থার সাবেক প্রধান হিসেবে আমি জানি, কিভাবে এ করোনা মহামারীর মতো বৈশ্বিক সংকট আমাদেরকে/পুরো বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারে। জাতিসংঘের সাবেক প্রধান কর্মকর্তা হিসেবেই আমি আমার উত্তরসূরি মহাসচিব আন্তনিও গুতেরেসের একটি মানবিক উদ্যোগের প্রতি অকুণ্ঠ সমর্থন জানাচ্ছি। মহামারী মোকাবেলায় অতিরিক্ত ২০০ কোটি ডলার মানবিক ত্রাণ সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন গুতেরেস। আমার বিশ্বাস, এ সহায়তা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে টেস্টিং কিট তৈরি ও সরবরাহ, প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও ভ্যাকসিন কার্যক্রম এগিয়ে নিতে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। বিশ্ব নেতাদের প্রতি আমার আরও একটি আবেদন, জাতিসংঘের নেতৃত্বে তারা যেন একটি বিশ্ব সরকার ব্যবস্থা গড়ে তোলার ব্যাপারে এখনই চিন্তা-ভাবনা শুরু করেন। যাতে ভবিষ্যতে যে কোনো মহামারী বা দুর্যোগ আগেভাগেই আরও কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পারে। আমাদের সবাইকে জাতিসংঘ সনদের শিক্ষা ও মূল্যবোধগুলো আরও একবার পর্যালোচনা করতে হবে। এক্ষেত্রে বিশ্বের সবচেয়ে পিছিয়ে পড়া সমাজ ও সম্প্রদায়ের সুরক্ষায় জি-২০, ইন্টারন্যাশনাল মানিটারি ফান্ড তথা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ও বিশ্বব্যাংকের মতো বহুমুখী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঠিক ব্যবহার করতে হবে। এটা খুবই আশার ব্যাপার যে, জি-২০ ভুক্ত দেশগুলোর নেতারা করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে প্রয়োজনীয় যে কোনো পদক্ষেপ ও ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। সেই সঙ্গে বৈশ্বিক অর্থনীতি রক্ষায় ৫ লাখ কোটি ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা দিয়েছেন। তবে এ প্রতিশ্রুতিগুলো অবিলম্বে বাস্তবায়ন করতে হবে। আফ্রিকা, দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার গরিব ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে পূর্ণ সহযোগিতা দিতে হবে। যতদিন না অর্থনীতি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসছে একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত তাদের পাশে থাকতে হবে। ইরানের মতো যেসব দেশ আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার কবলে রয়েছে, সেসব দেশে জীবনরক্ষাকারী মেডিকেল সরঞ্জাম ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পরিবহনে বাধা তুলে নিতে হবে। করোনার মতো অদৃশ্য এ দানবের বিপক্ষে ইতোমধ্যে মানবজাতি অনেকটাই ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। এক দেশ অন্য দেশের বিপক্ষে অস্ত্র না পাঠিয়ে পাঠাচ্ছে চিকিৎসা সরঞ্জাম, ওষুধ, চিকিৎসক এবং সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস ও পাশে থাকার সান্ত্বনা। এ বিশ্বটাই যেন আমরা এতদিন শত-সহস্র সম্মেলন করেও পাচ্ছিলাম না। দশকের পর দশক আমরা যুদ্ধ থামাতে পারিনি, থামাতে পারিনি জলবায়ু পরিবর্তনের নিয়ামক কার্বন নিঃসরণের মাত্রা। সিরিয়া, ইরাকের মতো ধ্বংস করেছি আমাদের বেঁচে থাকার প্রাকৃতিক পরিবেশের উপাদান ওজন স্তর, বরফ গলিয়ে সমুদ্রে ভাসিয়ে দিয়েছি উপকূলীয় অঞ্চলের দেশগুলো। অথচ কাউকে এখন আর সম্মেলন করে বা নিরাপত্তা পরিষদের অনুরোধ করতে হচ্ছে না। আমরা নিজেরাই বন্ধ করে দিয়েছি যুদ্ধ, পরিবেশবিরোধী পারমাণবিক অস্ত্র শিল্প। আমাদের পৈশাচিক প্রতিযোগিতা লকডাউন করে খুলে দিয়েছি মানবতার নির্মল আকাশ, শত্রুর সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে যুদ্ধ করছি এক দানবের বিপক্ষে। এরপরও কোভিড-১৯ আমাদের সমাজ ও রাষ্ট্রে মানুষে মানুষে গভীর বৈষম্যের মতো কিছু কঠিন বাস্তবতার ওপর তীর্যক আলো ফেলেছে। দেশে দেশে সম্পদের বৈষম্য আমাদের এ পৃথিবীটাকে কুরে কুরে খাচ্ছে। এ বৈষম্য দূর করতে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার এটাই সেরা সময়। টাইম ম্যাগাজিনে প্রকাশিত জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিবের নিবন্ধ

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

নিখোঁজের ২০ ঘন্টা পর  আমতলীতে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

নিখোঁজের ২০ ঘন্টা পর আমতলীতে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

মানুষ মত দেখতে অদ্ভুত প্রাণীটির দেখা মিলল পৃথিবীতে!

মানুষ মত দেখতে অদ্ভুত প্রাণীটির দেখা মিলল পৃথিবীতে!

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

রাণীনগরে গৃহবধুর রহস্য জনক মৃত্যু

রাণীনগরে গৃহবধুর রহস্য জনক মৃত্যু

নবীনগরে  ছুরিকাঘাতে প্রবাসী সোহাগ নিহত

নবীনগরে ছুরিকাঘাতে প্রবাসী সোহাগ নিহত

অখ্যাত স্কুলের বিখ্যাত শিক্ষকঃ একজন হামিদ স্যার

অখ্যাত স্কুলের বিখ্যাত শিক্ষকঃ একজন হামিদ স্যার

আত্মহত্যার কারণ ও তার সুস্পষ্ট সমাধান

আত্মহত্যার কারণ ও তার সুস্পষ্ট সমাধান

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

ওমান প্রবাসীদের জন্য সুখবর, কমিয়েছে প্রবাসী শ্রমিকদের ওয়ার্ক পারমিট নবায়ন ফি

ওমান প্রবাসীদের জন্য সুখবর, কমিয়েছে প্রবাসী শ্রমিকদের ওয়ার্ক পারমিট নবায়ন ফি

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

প্রেমিককে ভিডিও কলে রেখে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রেমিককে ভিডিও কলে রেখে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

নওগাঁয় ১৫০০কেজি সরকারি ভিজিডির চাল উদ্ধার

নওগাঁয় ১৫০০কেজি সরকারি ভিজিডির চাল উদ্ধার

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ছিনিয়ে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে হত্যা : মিজানের বাবা-মা গ্রেফতার

ছিনিয়ে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে হত্যা : মিজানের বাবা-মা গ্রেফতার

সর্বশেষ

১৩ অক্টোবর আসতে পারে আইফোন ১২ সিরিজের নতুন স্মার্টফোন

১৩ অক্টোবর আসতে পারে আইফোন ১২ সিরিজের নতুন স্মার্টফোন

নির্বিঘ্ন করুন নারীর পথচলা

নির্বিঘ্ন করুন নারীর পথচলা

হারিয়ে যাওয়া মাকে ১৫ বছর পর খুঁজে পেয়ে আনন্দে সন্তানদের চোখে জল

হারিয়ে যাওয়া মাকে ১৫ বছর পর খুঁজে পেয়ে আনন্দে সন্তানদের চোখে জল

ফেসবুকে ছড়ানো ‘মিথ্যাচারের’ কবলে জেলা যুবদল সেক্রেটারি জালাল

ফেসবুকে ছড়ানো ‘মিথ্যাচারের’ কবলে জেলা যুবদল সেক্রেটারি জালাল

নওগাঁয় টেম্পো-বাসশ্রমিকদের সংঘর্ষ, ৭ ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ থাকার পর সন্ধ্যা থেকে স্বাভাবিক

নওগাঁয় টেম্পো-বাসশ্রমিকদের সংঘর্ষ, ৭ ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ থাকার পর সন্ধ্যা থেকে স্বাভাবিক

লাগামহীনভাবে বেড়েই চলেছে তেলের দাম !!

লাগামহীনভাবে বেড়েই চলেছে তেলের দাম !!

মানুষের কল্যানে পেনশন দানকারী কালীগঞ্জবাসীর রেজা ভাইয়ের নামে সড়কের নামকরণ

মানুষের কল্যানে পেনশন দানকারী কালীগঞ্জবাসীর রেজা ভাইয়ের নামে সড়কের নামকরণ

কেন শেষ করে দেওয়া হচ্ছে কাদম্বিনী !!

কেন শেষ করে দেওয়া হচ্ছে কাদম্বিনী !!

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের দাবীতে  এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের দাবীতে এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

টাঙ্গাইলে ‘জিন এক্সপার্ট’ মেশিনের উদ্বোধন

টাঙ্গাইলে ‘জিন এক্সপার্ট’ মেশিনের উদ্বোধন

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যুবদল নেতা টুকুর ত্রাণ বিতরণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যুবদল নেতা টুকুর ত্রাণ বিতরণ

টাঙ্গাইলে প্রয়াত ছাত্রনেতা নূরনবী কোহিনুর স্মরণে সভা

টাঙ্গাইলে প্রয়াত ছাত্রনেতা নূরনবী কোহিনুর স্মরণে সভা

তত্ত্বাবধায়ক সরকারই একমাত্র সমাধান

তত্ত্বাবধায়ক সরকারই একমাত্র সমাধান

আল্লামা শফীর মৃত্যু অস্বাভাবিক, বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি

আল্লামা শফীর মৃত্যু অস্বাভাবিক, বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি