• 0
  • 0
Md. Motahar hossain.
Posted at 08/01/2021 01:26:am

মিঠাপুকুরে যমুনেশ্বরী নদী হতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

মিঠাপুকুরে যমুনেশ্বরী নদী হতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন

মিঠাপুকুরের যমুনেশ্বরী নদীর বালুয়া রঘুনাথপুরে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের মহাযজ্ঞ চলছে। স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থরা প্রশাসনকে একাধীকবার অবগত করলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। অবৈধভাবে এই বালু উত্তোলন করছে একটি রাজনৈতিক প্রভাবশালী চক্র। এছাড়াও ব্যক্তি মালিকানাধীন সম্পত্তি জবর দখলের অভিযোগ রয়েছে ওই প্রভাবশালী চক্রটির বিরুদ্ধে।

ইতোপূর্বে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে রঘুনাথপুরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করে দিয়েছিলেন। বর্তমানে আবারো তারা অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে। 

সরেজমিনে বালুয়া রঘুনাথপুর অবৈধ বালুর পয়েন্টে গিয়ে দেখা গেছে, ৩টি স্কেবেটর ও ১৫ টি ড্রাম ট্রাক দিয়ে বালু উত্তোলন কাজ করা হচ্ছে। নদীগর্ভে জমে থাকা বালুগুলো স্কেবেটর দিয়ে এক জায়গায় জমা করে সেগুলো ড্রাম ট্রাকে করে নিয়ে যাচ্ছে। অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করার ফলে নদী পাড়ে মানুষগুলো ফুঁসে উঠেছে। অপরিকল্পিত ভাবে বালু উত্তোলন করার ফলে নদীপাড়ে ভাঙ্গণের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। 

স্থানীয় সৈয়দ আলী নামে একজন ক্ষতিগ্রস্থ্ ব্যক্তি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নদীপাড়ে আমার পৈত্রিক জমি রয়েছে। প্রভাবশালী লোকজন আমার ওই জমি হতে বালু উত্তোলন করছেন। আমরা গরীব-অসহায় মানুষ, তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা সাহস পাচ্ছিনা।

আরেকজন স্থানীয় জুয়েল রানা বলেন, রঘুনাথপুর হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ ইউএনও স্যারকে বলা হয়েছে কিন্তু রহস্যজনক কারনে কোন আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি তিনি। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন বলেন, প্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়ায় অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। স্থানীয়ভাবে আলতাফ হোসেন আলতু, আরিফুল ইসলাম, টিক্কা, ছাত্তার হোসেন, সাহেব আলী, আব্দুর রাজ্জাক রাজা ও ফুল মিয়াসহ আরও বেশ কয়েকজন স্থানীয় প্রভাবশালী বালু উত্তোলন করছে। 

মিলনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম চৌধুরী বলেন, অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের বিষয়টি ব্যবস্থা গ্রহ করবেন উপজেলা প্রশাসন। আমার কিছু করার নেই। 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ