• 0
  • 0
Samium Bashir Meraz
Posted at 07/01/2021 01:35:pm

স্ত্রীকে খুন করে স্বামীর আত্মহত্যা

স্ত্রীকে খুন করে স্বামীর আত্মহত্যা

ফরিদপুরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল বুধবার (৬ জানুয়ারি) উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নে চর কৃষ্ণনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে উপজেলার হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। 

স্থানীয়রা জানান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাট্রা হরিপুর গ্রামের ফরিদউদ্দিন মণ্ডলের ছেলে বিপ্লব মণ্ডল ফরিদপুরের কৃষ্ণনগর এলাকার কাচারদিয়ায় ৬ বছর আগে এসে একটি ইটভাটায় ট্রলি চালকের কাজ নেন। সেখানে থাকা অবস্থায় বিপ্লব প্রেম করে তিন বছর আগে বিয়ে করেন নুরুল ইসলামের পালিত মেয়ে লামিয়া মিমকে। বিয়ের পর লামিয়ার বাবা নূরুল ইসলাম নিজের বাড়ির পাশে একটি জায়গা কিনে মেয়ে ও জামাইকে থাকার জন্য বাড়ি করে দেন। সেখানেই বিপ্লব ও লামিয়া বসবাস করতেন। 

গত সোমবার লামিয়াকে নিয়ে শ্বশুর বাড়ি বেড়াতে আসেন বিপ্লব। বুধবার সকালে লামিয়া তার মায়ের সঙ্গে পাশের একটি বাড়িতে যান পিঠা বানানোর চাল ভাঙাতে। পরে সকাল ১০টার দিকে লামিয়া তার মাকে রেখে নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন। লামিয়ার মা শিউলী বেগম দুপুর ১২টার দিকে বাড়ি ফিরে দেখতে পান তার মেয়ে লামিয়াকে লেপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখা হয়েছে। তখন তিনি লামিয়ার কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে চিৎকার শুরু করেন। চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে লামিয়াকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

লামিয়ার মা অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়েকে বিপ্লব শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। পরে বিপ্লব ওর বাড়িতে গিয়ে নিজেও আত্মহত্যা করেছে। কী হয়েছিল ওদের তা আমরা বুঝতে পারিনি। দুটি প্রাণ শেষ হয়ে গেল। ওদের এখনো কোনো সন্তান হয়নি। এভাবে ওরা চলে গেল। 

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোরশেদ আলম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুটি মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে গৃহবধূ লামিয়া মিমকে হত্যার পর স্বামী বিপ্লব গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্তের পরই আসল রহস্য জানা যাবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ