• 0
  • 0
Md Jahidul Islam Sumon
Posted at 07/01/2021 12:55:pm

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে হামলার নিন্দায় সরব গোটা বিশ্ব

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে হামলার নিন্দায় সরব গোটা বিশ্ব

অস্ট্রিয়া, পোল্যান্ড, ইকুয়েডর, কলোম্বিয়া, স্কটল্যান্ডের মতো দেশের শীর্ষ প্রশাসকরা নানাবিধ ভাষায় ঘটনার নিন্দা করেছেন। জিততে পারেননি তিনি। তাই নৈরাজ্য তৈরি করতে চাইছেন, আন্তর্জাতিক মহলের একটা বড় অংশ এখন বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে এখন এটাই বলছেন। বিশেষত ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার পর নিন্দার ঝড় বইছে বিশ্ব জুড়ে।

ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি টুইটে লিখেছেন, আমেরিকায় গণতন্ত্রের উপর ঘটে যাওয়া হামলায় কানাডাবাসীরা তাঁদের নিকটতম সঙ্গী ও প্রতিবেশীকে নিয়ে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। হিংসা কখনই একটি দেশের সাধারণ মানুষের দেওয়া রায়কে পাল্টে দিতে পারে না। আমেরিকায় গণতন্ত্রকে তুলে ধরতে হবে’। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, ঘটনাটি খুবই উদ্বেগের। নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডেন টুইট করে লিখেছেন, ‘যা হচ্ছে, ঠিক হচ্ছে না। গণতন্ত্র মানে সাধারণ মানুষের ভোট দেওয়ার অধিকার। তাঁদের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে। সেই মতামতের ভিত্তিতে শান্তিপূর্ণ ভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে। এই প্রক্রিয়াকে কখনই কোনও সন্ত্রাসের মুখে পড়তে দিলে চলবে না।’

জার্মানির সরকারি আধিকারিক পিটার বায়ার জানিয়েছেন, ‘আমরা গণতন্ত্রিক কাঠামো ও প্রতিষ্ঠানের আধারের উপর হামলা লক্ষ্য করলাম। তবে এটি কেবলমাত্র আমেরিকার ইস্যু নয়, এটি সারা পৃথিবীর গণতান্ত্রিক পরিবেশের ইস্যু’।

বুধবার মার্কিন ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে হামলার ঘটনায় অবাক হয়ে গিয়েছে গোটা বিশ্বই। গণতান্ত্রিক ভাবে নির্বাচিত বাইডেনের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের আগে ট্রাম্প জমানার শেষ যে এ ভাবে হবে, তা ভাবতে পারেননি কেউই।

ঘটনায় তীব্র উদ্বেগ প্রকাশ করে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাকরঁর ছায়াসঙ্গী ও ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য স্টিফান সেজোর্ন জানিয়েছেন, ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। এমনই হয় যখন কেউ ঘৃণার রাজনীতিকে সামনের সারিতে নিয়ে আসেন। আসুন আমরা গণতন্ত্রকে রক্ষা করি’।

ন্যাটোর সেক্রেটারি জেনারেল জেন্স স্টোলটেনবার্গ আমেরিকার সাধারণ মানুষকে নভেম্বরের নির্বাচনে হওয়া ফলাফলকে মেনে নিতে বলেছেন। এ ছাড়াও অস্ট্রিয়া, পোল্যান্ড, ইকুয়েডর, কলোম্বিয়া, স্কটল্যান্ডের মতো দেশের শীর্ষ প্রশাসকরা নানাবিধ ভাষায় ঘটনার নিন্দা করেছেন।



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ