Wednesday -
  • 0
  • 0
Abu Shale Musa
Posted at 06/01/2021 02:34:pm

২০২০ এ যাদের হারিয়েছি

২০২০ এ যাদের হারিয়েছি

অধ্যাপক আনিসুজ্জামান: করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ১৪ মে জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান মারা যান। তিনি ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।করোনায় আক্রান্ত ও হার্টের সমস্যার পাশাপাশি ৮৩ বছরের এই অধ্যাপক কিডনি, ফুসফুস এবং শ্বাসযন্ত্রের জটিলতায় ভুগছিলেন। 

অধ্যাপক এমাজ উদ্দিন: গত ১৭ জুলাই দেশবরেণ্য রাষ্ট্রবিজ্ঞানী, শিক্ষাবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ মারা যান। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন কিনা সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। 

স্যার ফজলে হাসান আবেদ: ২০ ডিসেম্বর রাতে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদ মারা যান। তবে তিনি করোনায় আক্রন্ত হয়ে মারা যাননি বলে জানা গেছে।

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর ব্রেইন স্ট্রোকে গত ১৩ জুন মারা যান সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিম। বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন।

এন্ড্রু কিশোরঃ ৬ জুলাই সন্ধ্যা ৭টা ১৩ মিনিটের দিকে রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় তার বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাড়িতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ‘প্লেব্যাক সম্রাট’খ্যাত জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর।৬৫ বছর বয়সে দীর্ঘদিন ধরে ব্লাড ক্যান্সারে ভুগছিলেন আটবার চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই বরেন্য শিল্পী। 

আলী যাকেরঃ ক্যান্সারের সঙ্গে চার বছরের লড়াই শেষে চির বিদায় নিলেন অভিনেতা, নির্দেশক আলী যাকের। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৭ নভেম্বর ভোর ৬টা ৪০ মিনিটে তার মৃত্যু হয় তার

সাহারা খাতুনঃ সাহারা খাতুনছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও আইনজীবী যিনি বাংলাদেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি নবম, দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য ছিলেন। শেখ হাসিনার দ্বিতীয় মন্ত্রিসভায় তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান। ৯ই জুলাই ২০২০ সালে ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ ইন্টারন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

শাহ আহমদ শফীঃ আল্লামা শাহ আহমদ শফী নামে পরিচিত, ছিলেন একজন বাংলাদেশি ইসলামি ব্যক্তিত্ব, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত আমীর ছিলেন। তিনি একইসাথে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও দারুল উলুম মুঈনুল ইসলামের, হাটহাজারীর মহাপরিচালক ছিলেন।১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ সালে ১০৩ বছর বয়সে শাহ আহমদ শফী বার্ধক্যজনিত কারণে ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। 

নূর হুসাইন কাসেমীঃ একজন বাংলাদেশি দেওবন্দি ইসলামি পণ্ডিত, রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, ধর্মীয় বক্তা ও আধ্যাত্মিক ব্যক্তিত্ব। তিনি একাধারে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব, আল হাইআতুল উলয়ার সহ-সভাপতি, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা, ঢাকা ও জামিয়া সোবহানিয়া মাহমুদ নগরের শায়খুল হাদিস ও মহাপরিচালক ছিলেন।১৩ ডিসেম্বর ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। 

নুরুল ইসলাম বাবুলঃ নুরুল ইসলাম বাবুল একজন বাংলাদেশী ব্যবসায়ী ও মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন।তিনি বাংলাদেশের একজন শিল্পোদ্যোক্তা ও যমুনা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন।১৪ জুন ২০২০ সালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তার কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।পরে১৩ জুলাই ২০২০ সালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার এভার কেয়ার হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। 

নুরুল হক মানিকঃ মো. নুরুল হক মানিক বাংলাদেশী ফুটবলার। তিনি বাংলাদেশের জাতীয় ফুটবল দলের প্রাক্তন মিডফিল্ডার ছিলেন। এছাড়া তিনি মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সাবেক অধিনায়ক এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ তিনি যুব ফুটবল দলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।নুরুল হক মানিক ২০২০ সালের ১৪ জুন কোভিড-১৯ মহামারীতে] আক্রান্ত হয়ে ঢাকার ধানমণ্ডিতে মৃত্যুবরণ করেন।  

কাসেম সোলাইমানিঃ একজন ইরানি সমরনায়ক, ইসলামি বিপ্লবী রক্ষীবাহিনীর মেজর জেনারেল এবং ১৯৯৮ সাল থেকে তাঁর মৃত্যুর পূর্বাবধি কুদস বাহিনী নামক বহির্দেশীয় সামরিক ও চোরাগোপ্তা কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত বিভাগের কমান্ডার। ৩ জানুয়ারি ইরাকের বাগদাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি টার্গেট করা বিমান হামলায় নিহত হন সোলেইমানি। 

মুরাদ উইলফ্রেড হফম্যানঃ মুরাদ উইলফ্রেড হফম্যান (১৯৩১-১৩জানুয়ারি,২০২০) একজন জার্মানি কূটনীতিক এবং লেখক ছিলেন।ইসলাম সম্পর্কে একাধিক বই লিখেছিলেন, যার মধ্যে জার্নি টু মক্কা এবং ইসলাম: দ্য অল্টারনেটিভ রয়েছে। মুরাদ উইলফ্রেড হফম্যান ২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারি ৮৯ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। 

ওয়াকার হাসানঃ ওয়াকার হাসান তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের অমৃতসর এলাকায় জন্মগ্রহণকারী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৫২ থেকে ১৯৫৯ সময়কালে পাকিস্তানের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।২০২০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি ৮৭ বছর বয়সে ওয়াকার মারা যান। 

ইরফান খানঃ ২০২০ সালে বলিউডের তারকাদের মধ্যে মৃত্যুর প্রথম পথযাত্রি ইরফান খান। মরণব্যাধি ক্যান্সারের কাছে হেরে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন বলিউডের অন্যতম সেরা এই অভিনেতা। ২৯ এপ্রিল মাত্র ৫৪ বছরে এ অভিনেতার মৃত্যুতে পুরো বলিউড থমকে যায়। 

ঋষি কাপুরঃ ইরফান খানের মৃত্যুর ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সিনেমা প্রেমীদের জন্য আরেকটি দুঃসংবাদ। ৩০ এপ্রিল- পরপারে পাড়ি দিলেন। দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারের সঙ্গে যুঝতে থাকা ঋষি কাপুরের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে মুম্বাইয়ের এইচএন রিলায়েন্স হসপিটালে নেওয়া হয়। সেখানেই ৩০ এপ্রিল সকালে মৃত্যু হয় ৬৭ বছর বয়সী এই ভারতীয় কিংবদন্তির। 

জর্জ ফ্লয়েডঃ একজন আফ্রিকান আমেরিকান ব্যক্তি, যিনি ২০২০ খ্রিষ্ঠাব্দের ২০ মে মিনেসোটা শহরের মিনিয়াপোলিসে পুলিশ দ্বারা আটকৃত অবস্থায় মারা যান। ফ্রয়েডের মৃত্যু এবং আরো বিস্তৃতভাবে বললে, অন্যান্য কৃষ্ণাঙ্গ আমেরি


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ