Wednesday -
  • 0
  • 0
Samium Bashir Meraz
Posted at 06/01/2021 12:41:pm

সোনার হরিণের পেছনে ছুটবেন না: প্রবাসীদের প্রধানমন্ত্রী

সোনার হরিণের পেছনে ছুটবেন না: প্রবাসীদের প্রধানমন্ত্রী

বিদেশে চাকরির সোনার হরিণের পেছনে না ছুটতে বিদেশগমনেচ্ছুদের অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সকালে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসের অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন দেশেই কাজের সুযোগ তৈরি হচ্ছে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অনেকেই মনে করে বিদেশে গেলেই বুঝি অনেক অর্থ উপার্জন করা যায়। এমন প্রলোভনে পড়বেন না, দালালদের খপ্পরে পড়বেন না। কারো প্ররোচনায় বিদেশে গিয়ে নিজের ও পরিবারের ক্ষতির কারণ হবেন না। দেশে একশ অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে সেখানে দক্ষ কর্মী আমাদেরও লাগবে। কারো কাজের অভাব হবে না। দেশে কাজের অভাব নেই, খাবারের অভাব নেই। দয়া করে সোনার হরিণ ধরতে ছুটবেন না। 

এ সময় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর আরো দায়িত্বশীল ভূমিকা আশা করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, মানুষকে মানুষের মর্যাদা দিতে হবে। তাদের যেন কোনো সমস্যা না হয়। কাউকে বিদেশে পাঠানোর আগে সেখানে নিরাপত্তা আছে কিনা এটা নিশ্চিত করতে হবে, বিশেষ করে মেয়েদের।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ ক্ষেত্রে রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।   

করোনার কারনে যারা বিদেশ চাকরি হারিয়ে দেশে ফিরেছেন তারা প্রবাসী কল্যাণ ব্যংকের মাধ্যমে সাহায্যে ঋণ নিয়ে আত্মনির্ভরশীল হতে পারেন বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সরকার প্রধান বলেন, করোনার জন্য অনেক দেশেরই অর্থনীতি স্থবির। যার কারনে অনেকই কাজ হারিয়ে দেশে ফিরছেন। যারা দেশে ফিরে এসেছেন তাদের জন্যও আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। 

আপনারা ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ব্যবসা করতে পারবেন। হতাশ না হয়ে পূর্ন উদ্যোমে কাজ করবেন। দেশের এখন অনেকগুলো মেগা প্রজেক্ট চলছে। এগুলোতেও অনেকেই কাজ পেয়েছেন। তাদেরও কিন্তু অভিজ্ঞতা হচ্ছে। এটি কাজে লাগিয়ে ভবিষ্যতে বিদেশেও তারা কাজের সুযোগ পাবেন। 

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা চাই দেশ এগিয়ে যাক। এজন্য আমরা অনেক উদ্যোগও নিয়েছি। দেশকে আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। আজ বাজেটের ৯৮ ভাগই আমরা নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়ন করছি। 

প্রধানমন্ত্রী জানান, যে সব দেশে অভিবাসীর সংখ্যা বেশি সেসব দেশে শ্রম উইং খোলা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ১০ হাজারের বেশি অভিবাসী যেখানে আছে, সেখানে আমরা শ্রম ইউং খুলছি। নিজেদের চ্যান্সেরি ভবন করছি যেন প্রবাসীরা এখানে এসে বসতে পারেন। দেশের অর্থনীতি সচল রাখা ও বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে প্রবাসীদের অনেক অবদান রয়েছে। এছাড়াও প্রবাসীরা দেশের বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগও করতে পারেন। 

এ সময় প্রবাসীদের বৈধপথে রেমিটেন্স পাঠানোর আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।   

বিস্তারিত আসছে….


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ