• 0
  • 0
মোঃ হোসাইন আলী কাজী
Posted at 05/01/2021 06:41:pm

আমতলীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব লুট

আমতলীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব লুট

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারিয়েছে সেলুন শ্রমিক খোকন চন্দ্র শীল। খোকনকে রুদ্র পরিবহন কর্তৃপক্ষ আমতলী হাসপাতালে রেখে যান। ওই হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুরে কুয়াকাটাগামী রুদ্র পরিবহন বাসে।   

জানাগেছে, কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের স্বর্গীয় নারায়ণ চন্দ্র শীলের ছেলে খোকন চন্দ্র শীল ঢাকায় আব্দুল্লাহপুরের রসুল বাজারে একটি সেলুনে কাজ করে। সোমবার রাতে আব্দুল্লাহ পরিবহন গাড়ীতে বরিশালে আসেন।

মঙ্গলবার দুপুরে তিনি কুয়াকাটাগামী রুদ্র পরিবহন গাড়ীতে বাড়ীতে ফিরছিল। পথিমধ্যে অজ্ঞান পার্টির লোকজন নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তার কাছে থাকা নগদ ত্রিশ হাজার টাকা, একটি দামী মোবাইল ফোন ও তার মুল্যবান জিনিষপত্র রাখা একটি ব্যাগ নিয়ে যায়। আমতলীর মহিষকাটা নামক আসলে তার মুখ দিয়ে লালা ঝড়তে এবং অচেতন অবস্থায় দেখে গাড়ী কর্তপক্ষ ও যাত্রীদের সন্দেহ হয়। পরে গাড়ীর কর্তৃপক্ষ তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। ওই হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক ফারজানা আক্তার দিনা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরন করেন। খবর পেয়ে খোকনের স্বজনরা আমতলী হাসপাতালে ছুটে আসে।   

অচেতন খোকন শীলের কাকা রিপন চন্দ্র শীল বলেন, অজ্ঞান পার্টির লোকজন ওর কাছে থাকা নগদ ত্রিশ হাজার টাকা, একটি দামী মোবাইল ফোন ও মুল্যবান জিনিষপত্রের একটি ব্যাগ নিয়ে গেছে।  আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ফারজানা আক্তার দিনা বলেন, নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তাকে অচেতন করেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ