• 0
  • 0
Sk Shakil Ahmed
Posted at 05/01/2021 11:19:am

“সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট, থানচি এর আদ্যোপান্ত

“সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট, থানচি এর আদ্যোপান্ত

“সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট, থানচি এর ইতিহাসঃ 

২০১৫ সালে “সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট, থানচি নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। রিজিয়ন কমান্ডার, দক্ষিণ-পূর্ব রিজিয়ন, চট্টগ্রাম এবং বলিপাড়া ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় এই মনোমুগ্ধকর “সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট নির্মিত হয়। 

২০১৫ সালের ২৮ ডিসেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা কর্তৃক এই রিসোর্টের উদ্বোধন করা হয়। পরবর্তীতে বলিপাড়া ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে “সীমান্ত অবকাশ” থানচি রিসোর্টকে আধুনিক, মানসম্মত ও সৌন্দর্যপূর্ণ রিসোর্ট রুপান্তর করা হয়েছে।

“সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট, থানচি এর  বিবরণ ও অবস্থানঃ  

ভ্রমন পিপাসু পর্যটকগণ নীলগিরি পর্যন্ত ভ্রমন করলেও যোগাযোগ ব্যবস্থার অপ্রুতলতা, মানসম্পন্ন আবাসন ও সঠিক প্রচারণার অভাবে থানচির অপূর্ব সৌন্দর্য সম্পর্কে তাদের সঠিক ধারণা ছিল না।

চট্টগ্রাম-বান্দরবান-থানচি এবং থানচি-আলীকদম রাস্তা উদ্বোধনের পর উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার ফলে ক্রমশই পর্যটকদের মধ্যে থানচিতে ভ্রমনের আগ্রহ পরিলক্ষিত হয়। বর্তমানে নির্মাণাধীন থানচি-রেমাক্রি-মদক-লিকরি সংযোগ সড়ক বান্দরবান এর অপূর্ব প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আরেক টি দিগন্ত উন্মোচন করেছে।

থানচি রিসোর্ট টি বিজিবি বান্দরবান সেক্টরের অন্তর্গত বলিপাড়া ব্যাটালিয়ন (৩৮ বিজিবি) দ্বারা পরিচালিত হয়।

বান্দরবান শহর থেকে বাসযোগে থানচি যাত্রা করতে চাইলে, বান্দরবান বাস টার্মিনাল থেকে টমটম বা রিকসা যোগে আসতে হবে ৩নং যা থানচি স্টেশন নামে পরিচিত, বাসযোগ থানচি আসতে সময় লাগবে ৪ ঘন্টা ৩০ মিনিট। 

অথবা চাঁদের গাড়ি যোগে আসতে চাইলে বান্দরবান বাস টার্মিনাল থেকে টমটম বা রিকাসা যোগে আসতে হবে হিলবার্ড যেখানে চাঁদের গাড়ি থাকে সেখান থেকে চাঁদের গাড়ি যোগে থানচি আসতে সময় লাগবে ২ ঘন্টা ৩০ মিনিট।

“সীমান্ত অবকাশ” বিজিবি রিসোর্ট, থানচি এর  সুবিধাদিঃ

ক।  অবকাশ কেন্দ্রে সর্বমোট ১৫ টি রুম রয়েছে। এগুলো রুম গুলোর বিবরণ হলোঃ

        ১. বড় পাথর- ইয়াংরাই, মদক, টেন্ডুমখি, ছোটমধু, বড়টং (প্রতিটি রুমে এসি সুবিধা রয়েছে)।

        ২. হানিমুন কর্টেজ - এসি সুবিধা সহ একটি রুম।

        ৩. লিকরি কটেজ- এসি সুবিধা সহ দুটি রুম।

        ৪. রেমাক্রি কটেজ- এসি সুবিধা সহ দুটি রুম।

        ৫. নাফাখুম- এসি সুবিধা সহ তিনটি রুম।

        ৬. নাফাখুম- ননএসি দুটি রুম।

খ। পর্যটকদের জন্য রয়েছে অত্যাধুনিক আবাসন ব্যবস্থা।

গ। বিজিবিতে কর্মরত/প্রাক্তন অফিসার, সশস্ত্র বাহিনীর অফিসার, বেসামরিক ব্যক্তিবর্গ এবং বিদেশেী পর্যটক কক্ষ ভাড়া নিতে পারবেন।

ঘ। বড় পাথর ভবন থেকে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত উপভোগ করা যায়।

ঙ। সীমান্ত অবকাশের অবস্থান সুউচ্চ পাহাড়ের উপর হওয়ায় নিমিষেই চোখে পড়ে বান্দরবন পার্বত্য জেলার পাহাড়-নদী-বৃক্ষরাজি।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ