• 0
  • 0
wahid murad
Posted at 04/01/2021 04:34:pm

পদ্মা সেতুর পর্যটনে প্রমোদ তরী উদ্বোধন চীফ হুইপ লিটন চৌধুরীর

পদ্মা সেতুর পর্যটনে প্রমোদ তরী উদ্বোধন চীফ হুইপ লিটন চৌধুরীর

চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেছেন, ঘাট এলাকায় কর্মরত লঞ্চ,স্পীডবোট,হোটেল ব্যবসাসহ নানান খাতে কর্মরতদের পদ্মা সেতুর পর্যটনে সম্পৃক্ত করতে হবে। যাতে কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়। সরকারের পক্ষ থেকে পদ্মা সেতুকে ঘিরে পর্যটন খাতে ব্যাপক কর্মসূচী নেয়া হয়েছে।

শীঘ্রই আপনারা সুখবরগুলো পাবেন। যে পর্যটন উপভোগ করতে যেন সারা বাংলাদেশ থেকে মানুষ শিবচর আসে।

ইতোমধ্যে শিবচরের চরাঞ্চলে ১২ একর জায়গায় প্রধানমন্ত্রী দুগ্ধ খামারের কাজ সেনাবাহিনীর তত্তাবধায়নে শুরু করেছে। এতে একসাথে কর্মসংস্থান ও পর্যটনের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

সোমবার সকালে পদ্মা সেতুর পর্যটনের জন্য জেলার শিবচরের বাংলাবাজার ঘাট থেকে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৪টি ভ্রমন তরী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এসব কথা বলেন। লাল সবুজ রংয়ের সুদৃশ্য ভ্রমনতরীগুলো উদ্বোধনের পর এগুলোতে চড়ে চীফ হুইপসহ নেতৃবৃন্দ ও কর্মকর্তারা পদ্মা নদী ঘুরেন। জেলা প্রশাসনের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানান।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ লতিফ মোল্লা, পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন খান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ শাজাহান মোল্লা, সাধারন সম্পাদক ডাঃ মোঃ সেলিম প্রমুখ।   

চীফ হুইপ আরো বলেন, যেভাবে বাংলাদেশে মৌলবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে ও ধর্ম নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। তা রুখতে বিনোদন, খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডর মাধ্যমে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। নতুন প্রজন্মকে নেশা থেকে মুক্ত রাখতে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে এ ধরনের কর্মকান্ডগুলো আমাদের হাতে নিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই ইসলামের জন্য বেশি কাজ করছেন।

তিনি রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে তার মানবিকতার প্রমান দিয়েছেন। শুধু আশ্রয় দিয়েই নয় তিনি ভাষানচরে এসকল রোহিঙ্গা মুসলিমদের জন্য আধুনিক জীবন যাপনেরও ব্যবস্থা করেছেন।   

সভাপতির বক্তব্যে মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন,’শিবচরের চরাঞ্চলের জেলেদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন ও পর্যটনের বিকাশ সাধনে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে করে জেলেদের বাড়তি আয়ের সুযোগ তৈরি হবে। এছাড়া পদ্মানদী ও এর চরাঞ্চলের সৌন্দর্য সহজেই উপভোগ করতে পারবে ভ্রমনপ্রেমীরা। নির্দিষ্ট দূরত্ব থেকে পদ্মাসেতু দেখতে পাবে তারা। আশাকরি পর্যটকরা পদ্মা সেতু ও মুক্তিযুদ্ধদের অসংখ্য ভাস্কর্য সমৃদ্ধ শিবচরের অপরুপ সৌন্দর্য্য দেখে বিমোহিত হবে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ