Tuesday -
  • 0
  • 0
Md Jahidul Islam Sumon
Posted at 04/01/2021 05:46:pm

তালমাখনা কী? তালমাখানা খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

তালমাখনা কী? তালমাখানা খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

এটি দেহ ও মনের প্রফুল্লতা আনে। দেহের পুষ্টি ও বল বাড়ায়। শুক্রবর্ধক, বীর্য গাঢ়কারক, যৌনশক্তিবর্ধক ও স্বপ্নদোষ নিবারক।

লিউকোরিয়া, শুক্রমেহ, যৌনদুর্বলতা ও স্নায়ুবিক দুর্বলতায় কার্যকর। ডায়াবেটিসসহ অন্য যে কোনো কারণে যৌনদুর্বলতা এলে তালমাখনা দিয়ে তৈরি ওষুধে দ্রুত তা দূর করা যায়। পাতা ও শাখার জোসান্দা লিভার ও কিডনির প্রতিবন্ধকতা দূর করে, কোষ্ঠ পরিষ্কারক, মূত্র ও ঘর্ম প্রবাহক। পাতার প্রলেপ বাত ও সন্ধি ব্যথা উপশম করে।

রোগের নামঃ সাধারণ দুর্বলতায় বা দেহের পুষ্টি সাধনে

ব্যবহার পদ্ধতিঃ ৩ গ্রাম তালমাখনা পাউডারের সাথে ১ গ্রাম পরিমাণ শতমূলী পাউডার মিশিয়ে দুধসহ প্রত্যহ সকালে খালিপেটে ও রাত্রে শয়নকালে সেব্য।

রোগের নামঃ শুক্রমেহ ও লিউকোরিয়ায়

ব্যবহার পদ্ধতিঃ ৩ গ্রাম তালমাখনা পাউডারের সাথে ১ গ্রাম পরিমাণ তেঁতুল বীজ পাউডার মিশিয়ে প্রত্যহ ২ বার দুধসহ সেব্য।

রোগের নামঃ যৌন ও স্নায়ুবিক দুর্বলতায়

ব্যবহার পদ্ধতিঃ ৩ গ্রাম তালমাখনা পাউডারের ১ গ্রাম পরিমাণ অশ্বগন্ধা পাউডার ও ৩ চা চামচ মধু মিশিয়ে প্রত্যহ ২ বার সেব্য।

যৌন সমস্যার জন্য আরেকটি সাধারণ ব্যবহার হচ্ছে ৫-৭ গ্রাম তালমাখনা ,সমপরিমাণ তালমিছরি এবং এক গ্লাস দুধ এক সাথে মিশিয়ে প্রতিদিন একবার পান করুন। এতে আপনার বল বৃদ্ধি, যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি,বীর্য গাঢ়, দ্রুত বীর্যপাত রোধ, বীর্য উৎপাদন বৃদ্ধি এবং যৌন আগ্রহের উন্নতি ইত্যাদি উপকার হবে। তালমাখনার পরিমাণ বাড়াবেন না, বাড়ালে বদ হজম হতে পারে।

এর আছে অনেক ঔষধীগুন । এর পাতা শিকড় ও বীজ সবই উপকারী রাসায়নিক উপাদানে ভরপুর।যেমন-এলকালয়েড্‌স, ফাইটোস্টেরোল, ও সুগন্ধের তৈলাক্ত পদার্থ। আর আছে এনজাইম ডাইয়াসটেস ও লিপেস।ফলে এর রস প্রস্রাববর্ধক,মূত্রনালির নানা রকম রোগ্র উপকারী।

এমনকি মূত্রনালির পাথর দূর করতেও বেশ সাহায্য করে থাকে।এ সব ছাড়াও জন্ডিস ও বাতজনিত রোগেও এর বীজের তেল বেশ কার্যকরী। এটা রান্নাতেও ব্যবহার করা হয়। বিশেষ করে ফুচকায়। এটা বাজারে কিনতে পাওয়া যায়।

(উপকারিতার দিক থেকে তালমাখনার বীজ সব থেকে কার্যকরী, একই সাথে মিষ্টি ও তিক্ত স্বাদযুক্ত এর বীজে রয়েছে অধিক পরিমাণে ফাইবার যা হজম বৃদ্ধিতে সহায়ক।

এছাড়া লো ফ্যাটযুক্ত বীজ ডায়াবেটিকস রোগের জন্যও ভাল। হার্টের পীড়া, দুর্বলতা, পিত্তথলির পাথর, গ্লডারের সমস্যা, মানসিক অবসাদ, যৌন সমস্যা সমাধানে এটি আশীর্বাদ স্বরূপ। ত্বকে বয়সের ছাপ, মলিনতা, ব্রণের সমস্যা দূর করতেও আপনি রোজ এটি ব্যবহার করতে পারেন।)

সাধারণভাবে তালমাখনা / তালমাখনা পাউডার ভিজিয়ে শরবত খেতে পারেন। প্রতিদিন একবারে খান বা কয়েক বারে খান ৫-৭ গ্রামের চেয়ে বেশি খাওয়ার দরকার নেই। সাথে ইসবগুলের ভুষি মিক্স করতে পারেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ