Feedback

জাতীয়

নেতৃত্বের ব্যর্থতায় খালেদার মুক্তির আন্দোলন

নেতৃত্বের ব্যর্থতায় খালেদার মুক্তির আন্দোলন
February 08
02:59pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার কারাবাসের দুই বছর পূর্ণ হয়েছে৷ এ সময়ে দুর্বল নেতৃত্বের কারণে বিএনপি তার মুক্তির জন্য আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি বলে মনে করেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন৷ দুই বছর ধরে কারগারে রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া৷ ২০১৮ সালের আট ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের মামলায় তাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়৷ সেদিনই তাকে জেলে পাঠানো হয়৷ পরে এই মামলায় দুদকের পুনর্বিবেচনার আবেদনে সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট৷ একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত৷ সব মিলিয়ে দুই মামলায় খালেদা জিয়া ১৭ বছরের দণ্ড নিয়ে দুই বছর ধরে কারাগারে আছেন৷ মোট ৩৪টি মামলার ৩২টিতেই খালেদা জিয়া জামিনে আছেন৷ কিন্তু এই দুটি মামলায় জামিন মিলছে না৷ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আপিল বিভাগেও তার জামিন নাকচ হয়েছে৷ আর অর্ফানেজ ট্রাস্টের মামলায় শাস্তি বেড়ে যাওয়ায় নতুন করে জামিন আবেদনের প্রক্রিয়া এখনো এগোয়নি৷ ‘আইনি লড়াইয়ে ত্রুটি নেই’ খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, ‘‘খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার বঞ্চিত হয়েছেন৷ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আপিল বিভাগে শেষ পর্যন্ত আমরা তার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে জামিন চেয়েও পাইনি৷ অথচ একই ধরনের মামলায় অন্যদের জামিন দেয়া হয়৷ আর অর্ফানেজ ট্রাস্টের মামলায় অন্যায়ভাবে তার শাস্তি বাড়ানো হয়েছে৷ আমরা আপিল করেছি৷ আপিল শুনানির অপেক্ষায় আছে৷’’ খালেদা জিয়া এখন আর তার মামলার শুনানির সময় আদালতে যান না৷ গত বছরের পয়লা এপ্রিল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের প্রিজন সেলে আছেন তিনি৷ উন্নত চিকিৎসার জন্য তার পছন্দের হাসপাতালে নেয়ার আবেদনও করা হয়েছে৷ প্যারোলে মুক্তি নিয়েও কথা হয়েছে৷ তবে তার পরিবারের সদস্য এবং দলের মধ্যে মুক্তির পদ্ধতি নিয়ে মতপার্থক্য রয়েছে ৷ খালেদা জিয়ার পরিবার চাইছে তাকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিয়ে যেতে৷ আর বিএনপি বলছে, তিনি জামিনে মুক্তি নিয়ে বিদেশে যাবেন কিনা সেটা তিনিই সিদ্ধান্ত দেবেন৷ কায়সার কামাল বলেন, ‘‘আমাদের আইনগত লড়াইয়ে কোনো ত্রুটি নাই৷ খালেদা জিয়াকে আসলে কারাগারে রাখা হয়েছে রাজনৈতিক কারণে৷ যে দুটি মামলায় তাকে শাস্তি দেয়া হয়েছে ওই মামলা দুটিও ভিত্তিহীন৷’’ নেতৃত্বের ব্যর্থতায় আন্দোলন গড়ে ওঠেনি খালেদা জিয়াকে কারাগারের পাঠানোর পর বিএনপি তার মুক্তির দাবিতে কার্যকর কোনো আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি৷ এমনকি ২০১৮ সালে তাকে যেদিন কারাগারে পাঠানো হয় সেদিনও বড় ধরনের কোন প্রতিবাদ হয়নি৷ ২০১৮ এবং ১০১৯ সালের কর্মসূচি বিশ্লেষণে দেখা যায় খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি সীমাবদ্ধ ছিল বিক্ষোভ, প্রতীকী অনশন ও প্রতিবাদ কর্মসূচিতে৷ রোগমুক্তির জন্য দোয়া মোনাজাতেরও আয়োজন করেছে দলটি৷ কিন্তু এসব কর্মসূচিতে তারা জনসমাগম ঘটাতে পারেনি৷ এ নিয়ে তৃণমূলে এবং দলের শীর্ষ পর্যায়ে ব্যাপক ক্ষোভ রয়েছে৷ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী প্যানেলেরও সদস্য৷ ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, ‘‘বিএনপি একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় দল৷ ম্যাডাম খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর বিএনপির যারা নেতৃত্ব দিচ্ছেন তারা খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য রাজপথে আন্দোলন করতে ব্যর্থ হয়েছেন৷ ম্যাডাম কারাগারে, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিদেশে৷ বাংলাদেশে যারা আছেন তাদের মধ্যে সাহসী নেতৃত্বের অভাব আছে৷ এজন্য খালেদা জিয়ার কারাবাস দীর্ঘায়িত হচ্ছে৷ সবাই নিজ নিজ অসুবিধার কারণে কোনো সাহসী ভূমিকা নিতে ব্যর্থ হয়েছেন৷ তাদের অনেকের বিরুদ্ধেই ওয়ান ইলেভেনের সময় দুর্নীতির মামলা আছে৷ মামলাগুলো শেষ পর্যায়ে আছে৷ তাই তারা অশঙ্কা করছেন সরকারকে তারা অখুশি করলে যেকোনো সময় হাজতে চলে যেতে পারেন৷ ফলে যে ধরনের আন্দোলন হওয়ার কথা ছিলো তা গড়ে তুলতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি৷’’ এই ধরনের নেতৃত্বে ভবিষ্যতে বড় কোনো আন্দোলনের সম্ভাবনাও দেখেন না তিনি৷ তিনি তাই খালেদা জিয়ার কারাবাস আরো দীর্ঘায়িত হওয়ার আশঙ্কা করেন৷ তিনি বলেন, ‘‘নেতারা সাহসী হয়ে মাঠে নামলে কর্মীরাও নামত৷ কিন্তু নেতৃত্ব দিয়ে আমি ভবিষ্যতে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বড় কোনো আন্দোলনের আশা দেখিনা৷’’ ‘সফলআন্দোলনবলতেকিবুঝায়?’ তবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ মনে করেন আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারার জন্য বিএনপির কোনো দায় নেই৷ সরকারের‘দমন-পীড়নের’ কারণেই আন্দোলন করা যায়নি৷ তিনি বলেন, ‘‘সফল আন্দোলনের মানে কী? এর ব্যাখ্যা কী? যে দেশে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দল না হয়ে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস হয়, যে দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন, বাক স্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা কোনো কিছুই নাই, সেই পরিবেশে কী হতে পারে? তাই হচ্ছে বাংলাদেশে৷’’ তার মতে খালেদা জিয়া জেলে যাওয়ার সাথে বাংলাদেশে গণতন্ত্র কেড়ে নেয়া, ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া, মৌলিক অধিকার কেড়ে নেয়া সরাসরিভাবে সম্পর্কিত৷

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

সৌদির ভিসা রিনিউ আবেদনে ১৮ এজেন্সির তালিকা প্রকাশ

সৌদির ভিসা রিনিউ আবেদনে ১৮ এজেন্সির তালিকা প্রকাশ

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

শিক্ষক নেতৃত্বের দক্ষতা উন্নয়ন

শিক্ষক নেতৃত্বের দক্ষতা উন্নয়ন

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা

নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

সর্বশেষ

যুবলীগ নেতা আবুলের নেতৃত্বে ভয়ানক কিশোর গ্যাং

যুবলীগ নেতা আবুলের নেতৃত্বে ভয়ানক কিশোর গ্যাং

আল্লাহর উপরে যে ভরসা রাখে(  সূরা যোহা - এর তাফসীর)

আল্লাহর উপরে যে ভরসা রাখে( সূরা যোহা - এর তাফসীর)

বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বীরদের -  ব্যতিক্রমী আয়োজন ‘বিরল সম্মান’

বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বীরদের - ব্যতিক্রমী আয়োজন ‘বিরল সম্মান’

কুড়িগ্রামে মৌসুমের রেকর্ড বৃষ্টিপাত, জলাবদ্ধতার কবলে অফিস আদালত

কুড়িগ্রামে মৌসুমের রেকর্ড বৃষ্টিপাত, জলাবদ্ধতার কবলে অফিস আদালত

বাংলাদেশে দিন দিন বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা

বাংলাদেশে দিন দিন বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা

সিগারেট বিক্রিতে বাংলাদেশ পৃথিবীর দ্বিতীয়

সিগারেট বিক্রিতে বাংলাদেশ পৃথিবীর দ্বিতীয়

ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেককে তাঁর  ৫৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা ভালোবাসায় স্মরণ

ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেককে তাঁর ৫৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা ভালোবাসায় স্মরণ

জরিমানা করে ধর্ষণের মীমাংসা, ক্ষোভে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

জরিমানা করে ধর্ষণের মীমাংসা, ক্ষোভে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

বাংলাদেশ-সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা টেলিফোনে আলোচনা হবে বিকেলে

বাংলাদেশ-সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা টেলিফোনে আলোচনা হবে বিকেলে

তারেক রহমানের তোপের মুখে বিএনপির সিনিয়র নেতারা

তারেক রহমানের তোপের মুখে বিএনপির সিনিয়র নেতারা

খোলা সিগারেট বিক্রি নিষেধ

খোলা সিগারেট বিক্রি নিষেধ

ই-কমার্সে পণ্য বিক্রি করে হতে পারেন কোটিপতি

ই-কমার্সে পণ্য বিক্রি করে হতে পারেন কোটিপতি

ঢাকা-মাস্কাট-ঢাকা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট অক্টোবরে

ঢাকা-মাস্কাট-ঢাকা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট অক্টোবরে

সিলেটের ধর্ষণের ঘটনায় সরকারের অবস্থান কঠোর: ওবায়দুল কাদের

সিলেটের ধর্ষণের ঘটনায় সরকারের অবস্থান কঠোর: ওবায়দুল কাদের

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দকে দুই সপ্তাহের জন্য আইনপেশা থেকে বরখাস্ত

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দকে দুই সপ্তাহের জন্য আইনপেশা থেকে বরখাস্ত