• 0
  • 0
Rakib Monasib
Posted at 30/11/2020 02:29:am

আরো আধুনিক হচ্ছে রেলের অনলাইন টিকিট ব্যবস্থাপনা

আরো আধুনিক হচ্ছে রেলের অনলাইন টিকিট ব্যবস্থাপনা

স্টেশনে গিয়ে টিকিট কাটার ঝামেলা এড়াতে ২০১২ সালে ‘ই-টিকেটিং সিস্টেম’ চালু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। শুরুতে ট্রেনের ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে বিক্রি হতো। সম্প্রতি তা বাড়িয়ে ৫০ শতাংশে উন্নীত করা হয়েছে। বর্তমানে কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত আসন সংরক্ষণ ও টিকিটিং বা সিএসআরটি পদ্ধতি অনলাইনে টিকিট বিক্রির সেবাটি পরিচালিত হচ্ছে।   

তবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা সত্ত্বেও রেলের এই সেবাটি নিয়ে প্রায়শই ওঠে যাত্রী ভোগান্তির অভিযোগ। এমন পরিপ্রেক্ষিতে অনলাইন টিকিট ব্যবস্থাপনায় আরো আধুনিক পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। অনলাইনে টিকিট বিক্রির ক্ষেত্রে ইন্ট্রিগেটেড টিকেটিং সিস্টেম বা আইটিএসের যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এজন্য এরই মধ্যে প্রয়োজনীয় অবকাঠামোসহ পুরো সিস্টেমটি গড়ে তোলা এবং সেটি পরিচালনার জন্য দরপত্রও আহ্বান করা হয়েছে। 

রেলওয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে ব্যবহৃত সফটওয়্যারটির উন্নয়নের বিষয়টিতে জোর দিয়ে টিকিট ব্যবস্থাটি সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজেশনের জন্য দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা হচ্ছে। এটি বাস্তবায়িত হলে যাত্রীবাহী পরিষেবা উন্নত হবে এবং টিকেট ছাড়া ভ্রমণের সংখ্যা শূন্যের কোটায় নেমে আসবে। বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য ইন্টিগ্রেটেড টিকেটিং সিস্টেম প্রবর্তনের জন্য আহ্বানকৃত দরপত্র প্রক্রিয়ায় অংশ গ্রহণ করেছে দেশী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ‘সহজ ডট কম’। কাজ পাওয়ার ব্যাপারেও বেশ আশাবাদী প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা।   

তারা জানিয়েছে, সহজের দক্ষ কারিগরি দল, এ খাতে তাদের দক্ষতা ও যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে পিছে ফেলে সামনে এগিয়ে আসার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে বলেই ধারণা করা যায়। দেশী প্রতিষ্ঠান হিসেবে সহজকে এ প্রকল্পে চুক্তিবদ্ধ করা গেলে এখান থেকে ১০০ কোটি টাকা সাশ্রয় সম্ভব।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ