• 0
  • 0
মাহবুব রানা
Posted at 27/11/2020 03:37:pm

কিশোরগঞ্জে খোলা বাজারে সিলিন্ডার বিক্রি, নেই নজরদারি

কিশোরগঞ্জে খোলা বাজারে সিলিন্ডার বিক্রি, নেই নজরদারি

কিশোরগঞ্জে সরকারি নিয়ম-নীতি না মেনে যেখানে-সেখানে বিক্রি হচ্ছে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার। নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছাড়াই ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে এসব সিলিন্ডার বিক্রি হলেও কর্তৃপক্ষের কোন নজরদারি নেই। তবে অনুমোদনহীন গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেয় জেলা প্রশাসন।

কিশোরগঞ্জ-চামড়া সড়কের পাশে ব্যস্ততম এলাকায় ডিলারের দোকান থেকে গ্যাস সিলিন্ডার ট্রাকে করে পাঠানো হচ্ছে, জেলার খুচরা বিক্রেতাদের কাছে। নিয়ম অনুযায়ী পরিবেশ অধিদপ্তর ও ফায়ার সার্ভিসের অনুমোদনপ্রাপ্ত ব্যবসায়ীরাই কেবল গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি করতে পারেন।

তবে জেলা সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় মুদি দোকান, ফার্মেসি, এমনকি পানের দোকানেও মিলছে গ্যাস সিলিন্ডার। ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও ডিলাররা নিজেদের পরিবহন দিয়ে অনুমোদনহীন এসব দোকানে পৌঁছে দিচ্ছে সিলিন্ডার।

করিমগঞ্জ বাজারের সিলিন্ডার ডিলার মো. আবুল কালাম বলেন, আমরা তাদের একটা প্রাথমিক পরামর্শ দেই।

দাহ্য পদার্থ বিক্রি করতে সুরক্ষা ব্যবস্থাসহ লাইসেন্স লাগে- এমন তথ্য জানেন না অনেক বিক্রেতাই। আবার অনেকেই ঝুঁকি জেনেও বাড়তি লাভের আশায় অন্যান্য পণ্যের সাথে বিক্রি করছেন গ্যাস সিলিন্ডার।

অগ্নি নিয়ন্ত্রণ সুরক্ষা প্রত্যয়নপত্র ছাড়াই যত্রতত্র গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি হলেও ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষের নেই কোনো তদারকি।

অবশ্য ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অবৈধভাবে গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, শুধুমাত্র অনুমোদনপ্রাপ্তরাই বিক্রি করতে পারবেন। যেখানে-সেখানে বিক্রির বিধান নেই। আমরা এর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেব।

কিশোরগঞ্জের ১৩টি উপজেলায় ৫ হাজারেরও বেশি ছোট-বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিক্রি হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার। অথচ অগ্নি নিরাপত্তা সনদ রয়েছে একশোর কিছু বেশির।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ