• 0
  • 0
Nazrul
Posted at 23/11/2020 10:47:am

আজ বিজ্ঞানী জগদীশ চন্দ্র বসুর মৃত্যুবার্ষিকী

আজ বিজ্ঞানী জগদীশ চন্দ্র বসুর মৃত্যুবার্ষিকী

বলা হয় নোবেল পুরস্কার জিতে রবীন্দ্রনাথ প্রথম বাঙালিকে বিশ্ব দরবারে পৌঁছে দেন। কিন্তু রবি ঠাকুরেরও আগে যিনি নোবেল পুরস্কার জিততে পারতেন তিনি এই বাংলাদেশের ছেলে। মুন্সিগঞ্জের বিক্রমপুর বাড়ি তাঁর। জন্মস্থান ময়মনসিংহ ১৮৫৮ সাল। বলছি মহাবিজ্ঞানী স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর কথা।   

তিনি ছিলেন একজন বাঙালি পদার্থবিদ, উদ্ভিদবিদ ও জীববিজ্ঞানী এবং প্রথম দিকের একজন কল্পবিজ্ঞান রচয়িতা। তার গবেষণার ফলে উদ্ভিদবিজ্ঞান শাখা সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে এবং ভারতীয় উপমহাদেশে ব্যবহারিক ও গবেষণাধর্মী বিজ্ঞানের সূচনা হয় তার হাত ধরে। ইনস্টিটিউট অব ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ার্স তাকে রেডিও বিজ্ঞানের জনক বলে অভিহিত করে।    জগদীশ চন্দ্রই প্রথম বেতার তরঙ্গের সাহায্যে অতিক্ষুদ্র তরঙ্গ সৃষ্টি করে তা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে প্রেরণ করেন। মনে করা হয়, একবার অসুস্থ থাকার কারণে ছাত্রদের ক্লাস নিতে পারেন নি। বাসায় তখন চিন্তা করেন কিভাবে ক্লাস নেওয়া যায়। এই ভেবে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় শব্দ তরঙ্গ প্রেরণের চিন্তা ভাবনা আসে। তিনি বিষয়টি আবিষ্কার করলেও বুঝতে পারেন নি কি অসাধ্য সাধন করলেন। এ বিষয়ে গবেষণারত আরেক বিজ্ঞানী মার্কনিকে জানান ব্যাপারটি। আর ইতালিয়ান বিজ্ঞানী সেটা নিজের বলে চালিয়ে দেন। এতে ১৯০৯ সালে বেতার আবিষ্কারের জন্য মার্কনি নোবেল পুরস্কার পান।     

পরবর্তীতে গাছের জীবনরহস্য প্রমাণ করে বিশ্বঅঙ্গনে ঠিকই খ্যাতিমান হন জগদীশ চন্দ্র বসু। ১৯১৬ সালে তিনি নাইটহুড উপধি পান, ১৯২০ সালে ব্রিটিশ রয়েল সোসাইটির ফেলো হন। ১৯৩৭ সালের ২৩ নভেম্বর ভারতে মৃত্যুবরণ করেন এই বিশ্ববরেণ্য বিজ্ঞানী। ১৯৫৮ সালে জগদীশ চন্দ্রের শততম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে পশ্চিমবঙ্গ সরকার "JBNSTS" নামে একটি বৃত্তি প্রদান আরম্ভ করে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ