Feedback

সারাবিশ্ব

আফগান নাগরিকদের বেআইনিভাবে হত্যা করেছে অস্ট্রেলীয় বাহিনী

আফগান নাগরিকদের বেআইনিভাবে হত্যা করেছে অস্ট্রেলীয় বাহিনী
November 20
05:04pm
2020
Rakib Monasib
Dhaka, Bangladesh:
Eye News BD App PlayStore

যুদ্ধে নয়, ঠান্ডা মাথায় সাধারণ আফগান এবং যুদ্ধবন্দিদের হত্যা করেছিল অস্ট্রেলিয়ার এলিট আর্মি। সম্প্রতি সে কথা স্বীকার করে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সেনা। সেনা বাহিনীর উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ঘটনার জন্য তাঁরা অত্যন্ত দুঃখিত। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে এবং দোষীরা শাস্তি পাবেন।   

২০০২ সালে অস্ট্রেলিয়ার সেনা আফগানিস্তানে গিয়েছিল। ন্যাটো বাহিনীর হয়ে আফগানিস্তানে দীর্ঘ দিন লড়াই করেছে তারা। যে ঘটনার কথা বলা হচ্ছে, ২০০৫ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে সেই ঘটনাগুলো ঘটেছে বলে সেনা বাহিনী সূত্রে জানানো হয়েছে।   

বস্তুত, ঘটনাগুলো কোনোদিন জনসমক্ষে আসতোই না। বছরকয়েক আগে অস্ট্রেলিয়া সেনাবাহিনীর সদর দফতর থেকে কিছু ফাইল ফাঁস হয়ে যায়। আফগান ফাইল নামে সংবাদমাধ্যমে উঠে আসে তার তথ্য। তাতেই দেখা যায়, সাধারণ মানুষের উপর কী ভাবে অত্যাচার চালিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার এলিট ফোর্সের কিছু সেনা। তারপরেই তদন্ত শুরু হয়। এবং সত্য প্রকাশ্যে আসে।   

অস্ট্রেলিয়া এলিট আর্মির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা জেনারেল অ্যাঙ্গুস ক্যাম্পবেল জানিয়েছেন, অন্তত ৩৯ জন সাধারণ আফগানকে হত্যা করেছিল সেনা বাহিনী। নিহতদের কেউ সাধারণ চাষী, কেউ শিক্ষক। যুদ্ধের সঙ্গে তাঁদের কোনো সম্পর্কই ছিল না।     অস্ট্রেলিয়া পুলিশের ইনস্পেক্টর জেনারেল এই ঘটনার তদন্ত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, ২০০৫ সাল থেকে ২০০৯ পর্যন্ত লাগাতার এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সেনা।     

ক্যাম্পবেল জানিয়েছেন, এত বড় নীতিহীনতার অভিযোগ এর আগে অস্ট্রেলিয়ার সেনার বিরুদ্ধে ওঠেনি। দোষীদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।   

তদন্তে জানা গিয়েছে, দোষী সেনা অফিসাররা একাধিক যুদ্ধবন্দির উপরেও অত্যাচার চালিয়েছেন। বন্দিদের উপর অত্যাচার চালিয়ে খুন করে ভূয়া রিপোর্ট লেখা হয়েছে। সেখানে দেখানো হয়েছে, যুদ্ধক্ষেত্রে মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তিদের।   

যুদ্ধক্ষেত্রই নয়, এমন বহু জায়গায় সাধারণ মানুষের উপর অত্যাচার চালানো হয়েছে এবং খুন করা হয়েছে। মোট ২৩টি ঘটনায় ৩৯জনকে এ ভাবে খুন করা হয়েছে।   

রিপোর্টে বলা হয়েছে, ২০১২ এবং ১৩ সালে সব চেয়ে বেশি এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। এখনো পর্যন্ত মোট ১৯ জন অফিসারকে এই ধরনের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে চিহ্নিত করা হয়েছে। সম্পূর্ণ রিপোর্ট প্রকাশিত হলে তাঁদের বিচার পর্ব শুরু হবে।     

ক্যাম্পবেল জানিয়েছেন, সকলকেই অস্ট্রেলিয়ার সেনা বাহিনীর আইন অনুযায়ী শাস্তি ভোগ করতে হবে।   

তবে একটি বিষয়ে সেনা এবং পুলিশ কেউই কোনো কথা বলতে চায়নি। কী ভাবে বাইরে এলো আফগান ফাইল? কারা তা সংবাদমাধ্যমের হাতে তুলে দিল? আফগান ফাইল প্রকাশ্যে না এলে কি পুলিশ এবং সেনা ঘটনার তদন্ত করত?     

বস্তুত, শুধু অস্ট্রেলিয়ার সেনা নয়, অ্যামেরিকা সহ একাধিক দেশের সেনার বিরুদ্ধে এই ধরনের অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে একাধিক মানবাধিকার সংস্থা এই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করছে। কিন্তু কোনো সেনাই এতদিন পর্যন্ত পর্যন্ত অভিযোগগুলোকে গুরুত্ব দেয়নি।   

সোর্স: সাউথ এশিয়ান মনিটর

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

দুপচাঁচিয়ায় পৌরসভার উদ্যোগে উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন

দুপচাঁচিয়ায় পৌরসভার উদ্যোগে উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে যেসব বিশ্ববিদ্যালয়

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে যেসব বিশ্ববিদ্যালয়

চিকিৎসক সংকটসহ নানা সমস্যায় বেহাল কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল

চিকিৎসক সংকটসহ নানা সমস্যায় বেহাল কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতি আসলামকে বহিষ্কার

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতি আসলামকে বহিষ্কার

জামালপুর শহরের যানজট নিরসনে নিরব ভূমিকায় প্রশাসন

জামালপুর শহরের যানজট নিরসনে নিরব ভূমিকায় প্রশাসন

ফরিদগঞ্জে তেলবাহী লরি ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

ফরিদগঞ্জে তেলবাহী লরি ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

কুমিল্লায় বহুতল ভবন থেকে লাফিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর আত্মহত্যা

কুমিল্লায় বহুতল ভবন থেকে লাফিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর আত্মহত্যা

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রদলের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রদলের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

গোয়ার সৈকতে মোনালিসার হট ফটোশুট

গোয়ার সৈকতে মোনালিসার হট ফটোশুট

অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে সিয়াম-পরীমনির "বিশ্বসুন্দরী"

অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে সিয়াম-পরীমনির "বিশ্বসুন্দরী"

মাত্র ৫৪ মিনিটে ঢাকা-চট্টগ্রাম যাওয়ার ট্রেন আসছে

মাত্র ৫৪ মিনিটে ঢাকা-চট্টগ্রাম যাওয়ার ট্রেন আসছে

ভৈরবে ১৭ মাদক কারবারী আটক

ভৈরবে ১৭ মাদক কারবারী আটক

কাশ্মীর নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর প্রথম যৌথ প্রস্তাব

কাশ্মীর নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর প্রথম যৌথ প্রস্তাব

বিশ্বাসের উপর ভর করে টিকে থাকে বৈবাহিক সম্পর্কঃ  শ্রাবন্তীর স্বামী রোশন

বিশ্বাসের উপর ভর করে টিকে থাকে বৈবাহিক সম্পর্কঃ শ্রাবন্তীর স্বামী রোশন

ভারতে ১৪ রোহিঙ্গা আটক, যেভাবে ধরা পড়লো

ভারতে ১৪ রোহিঙ্গা আটক, যেভাবে ধরা পড়লো

সর্বশেষ

মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়রের সাথে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়রের সাথে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

ধুনট, প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান দিলেন সাংসদ হাবিব

ধুনট, প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান দিলেন সাংসদ হাবিব

সঙ্গীত শিল্পী বিজনের নতুন গান 'ভব সংসার'

সঙ্গীত শিল্পী বিজনের নতুন গান 'ভব সংসার'

সাতকানিয়া সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি সৈয়দ আক্কাস সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির

সাতকানিয়া সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি সৈয়দ আক্কাস সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির

আবার বাদ পড়লেন মেসি

আবার বাদ পড়লেন মেসি

এই মুহূর্তে বাংলাদেশ থেকে ওমরাহ করার সুযোগ নেই: প্রতিমন্ত্রী

এই মুহূর্তে বাংলাদেশ থেকে ওমরাহ করার সুযোগ নেই: প্রতিমন্ত্রী

আগামী বছর ‘বিশ্ব শান্তি সম্মেলন’ আয়োজন করবে বাংলাদেশ

আগামী বছর ‘বিশ্ব শান্তি সম্মেলন’ আয়োজন করবে বাংলাদেশ

করোনাকালে দূরশিক্ষণ: ইন্টারনেটই নেই বিশ্বের ১৩০ কোটি স্কুলগামী শিশুর বাড়িতে

করোনাকালে দূরশিক্ষণ: ইন্টারনেটই নেই বিশ্বের ১৩০ কোটি স্কুলগামী শিশুর বাড়িতে

কালীগঞ্জে গণহত্যা দিবসে উপজেলা প্রশাসনের শ্রদ্ধা নিবেদন

কালীগঞ্জে গণহত্যা দিবসে উপজেলা প্রশাসনের শ্রদ্ধা নিবেদন

মুমিনা’ এটুকুই তার পরিচয়

মুমিনা’ এটুকুই তার পরিচয়

পৌর নির্বাচন: তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা

পৌর নির্বাচন: তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা

‘অঘ্রাণে তোর ভরা ক্ষেতে’

‘অঘ্রাণে তোর ভরা ক্ষেতে’

পরিবেশ ও পরিযায়ী পাখি রক্ষায়  দুই শিক্ষার্থীর ভিন্নধর্মী উদ্যোগ!

পরিবেশ ও পরিযায়ী পাখি রক্ষায় দুই শিক্ষার্থীর ভিন্নধর্মী উদ্যোগ!

ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলন অনুস্টিত

ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলন অনুস্টিত

কোম্পানীগঞ্জে চার সন্তানের জনকের রহস্যজনক মৃত্যু

কোম্পানীগঞ্জে চার সন্তানের জনকের রহস্যজনক মৃত্যু