About Us
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১
  • সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম:
Hasan Ahmed
প্রকাশ ১৭/১১/২০২০ ০৩:১২পি এম

গুপ্তধনের আশায় ৬ সন্তানকে বলি দেয়ার চেষ্টা দুই বাবার

গুপ্তধনের আশায় ৬ সন্তানকে বলি দেয়ার চেষ্টা দুই বাবার Ad Banner

গুপ্তধনের আশায় ৬ সন্তানকে বলি দেয়ার চেষ্টা দুই বাবার  নিজ সন্তানদের বলি দিলেই পাওয়া যাবে গুপ্তধন। তাই ৬ সন্তানকে বলি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন তাদের বাবারা। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে ভারতের আসামের একটি গ্রামে। ওই ৬ সন্তানের বাবা ও তার ভাইকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় এলাকাবাসী। 

যদিও পুলিশের কাছে ওই দুই ভাই এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা ‘সন্তান বলির চেষ্টার’ অভিযোগ অস্বীকার করছে। দুই ভাইয়ের ৬ সন্তান ও পরিবারের অন্য সদস্যদের নিরাপত্তা হেফাজতে রাখা হয়েছে।  জানা গেছে, গুয়াহাটি থেকে প্রায় ৩৭০ কিলোমিটার পূর্বে, শিবসাগর জেলা সদর থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে দিমোউমুখ গ্রামের অবস্থান। গ্রামটির বাসিন্দারা সম্প্রতি জামিউর হুসেন ও শরিফুল হুসেন নামের দুই ভাই নিজেদের ৬ সন্তানকে বলি দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে পুলিশকে তাদের সন্দেহের কথা জানান।   

স্থানীয়রা জানান, শিবসাগর থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরের সোনারি এলাকায় সাধু হিসেবে পরিচিত এক ব্যক্তি দুই ভাইকে বলেছে, তারা তাদের নিজেদের বাড়ির একটি আমগাছের নিচে লুকানো স্বর্ণ পাবে যদি তারা নিজেদের সন্তানদের বলি দেয়।  জামিউর ও শফিউল দুই ভাইয়েরই মোট তিনটি করে সন্তান রয়েছে।  পুলিশ জানিয়েছে, দুই ভাই তাদের ৬ সন্তানকে নির্জনে আটকে রাখার পর গ্রামবাসীর সন্দেহ বেড়ে যায়। এরপরই তারা জামিউর ও শফিউর, তাদের স্ত্রী এবং সন্তানদের শিবসাগর সদর থানায় ধরে নিয়ে যায়।   দুই ভাইয়ের পরিবারের সদস্যরা বলছেন, এক মাস আগে তারা সোনারির ওই সাধুর কাছে গিয়েছিলেন ঠিকই; তবে গুপ্তধন লাভের উদ্দেশ্যে নয়, গিয়েছিলেন সন্তানদের স্বাস্থ্যের অবনতি ঠেকানোর পরামর্শ নিতে। 

আসামে নরবলি, বিশেষ করে শিশুবলির ঘটনা মাঝে মাঝেই শোনা যায়। গত বছরও আসামের উদলগিরি জেলায় পরিবারের সদস্যরা বলি দিতে যাচ্ছিল এমন সময় এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়। ২০১৩ সালে এক ব্যক্তি তার ১৩ বছর বয়সী সন্তানকে নরবলি দেওয়ার কায়দায় হত্যা করেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ