Feedback

সারাবিশ্ব

লকডাউন ইতালিতে থেমে গেছে গান, আওয়াজ তুলেছে বেসুর ক্ষুধা

লকডাউন ইতালিতে থেমে গেছে গান, আওয়াজ তুলেছে বেসুর ক্ষুধা
April 01
08:52pm
2020
MD Satu Verify Icon
Gopalpur, Tangail, প্রতিনিধি:
Eye News BD App PlayStore
করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত ইতালিতে লক ডাউনের শুরুর দিককার দিনগুলোর কথা। সেখানকার বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক ভর করতে পারেনি তখনও। নিজেদের বাড়ির ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে তারা বাজাতো সংহতির সুর। 'সব ঠিক হয়ে যাবে’ সেই আশায় বুক বেঁধে একসঙ্গে তারা গাইতো গান। তবে লকডাউনের তিন সপ্তাহ পার হতে না হতেই বদলে গেছে পরিস্থিতি। দারিদ্র্য জেঁকে বসতে শুরু করেছে সেখানে। আওয়াজ তুলেছে বেসুর ক্ষুধা। বাড়ছে অপরাধ প্রবণতা। দ্য গার্ডিয়ানের এক বিশেষ প্রতিবেদনে উঠে এসেছে ইতালির এখনকার বাস্তবতা। ওই ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বলছে, এখন  সব গান থেমে গেছে। দেশটির কিছু অংশে, বিশেষত দক্ষিণের দরিদ্র এলাকাগুলোতে বেড়েছে সহিংসতা। মানুষ এখন উপলব্ধি করছে সবকিছু ঠিক নেই। নাপোলিস শহরের কারিতাস দিওচেসানা দি নাপোলির ধর্মযাজক সালভাতোরে মেলুসো বলেন, ‘মানুষ এখন আর ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে গান গায় না, নাচে না। তারা এখন আগের চেয়ে ভীত হয়ে উঠছে। এ ভীতির কারণ ভাইরাস নয়, বরং দারিদ্র্যের ভয় তাদের মনে বাসা বেঁধেছে। অনেকে কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তারা ক্ষুধার্ত। ফুড ব্যাংকগুলোর সামনে এখন দীর্ঘ সারি।‘ উত্তরাঞ্চলের তুলনায় ইতালির দক্ষিণাঞ্চলীয় এলাকাগুলোতে করোনাভাইরাসজনিত মৃত্যুর হার অনেকখানি কম। তারপরও সেখানকার মানুষের দৈনন্দিন জীবন-যাপনের ওপর করোনাজনিত মহামারির গুরুতর প্রভাব পড়ছে। দক্ষিণাঞ্চলীয় এলাকা কাম্পানিয়া, কালাব্রিয়া, সিসিলি ও পুগলিয়ার মানুষ খাদ্য ও অর্থ সংকটে পড়ছে। এর মধ্য দিয়ে এসব এলাকায় তৈরি হচ্ছে অস্থিরতা। বিনামূল্যে খাবার দেওয়ার জন্য ছোট দোকান মালিকদের চাপ দেওয়ার খবরও পাওয়া যাচ্ছে। কিছু এলাকায় সুপারমার্কেটে চুরি ঠেকাতে টহল দিচ্ছে পুলিশ। স্বনির্ভর কিংবা চুক্তিভিত্তিক কাজ করা মানুষদের উপার্জন বন্ধ রয়েছে, সাময়িক বন্ধ হয়ে যাওয়া অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসা আর কখনও চালু হবে কিনা তা অনিশ্চিত। আয় রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়া এমনই একজন পারিদে ইজিনে। সিসিলির পালেরমোর একটি রেস্তোরাঁর ওয়েটার তিনি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পারিদে বলেন, ‘অবশ্যই লকডাউনের কারণে রেস্টুরেন্ট বন্ধ রয়েছে। আমার স্ত্রী আছে, দুই সন্তান আছে। সঞ্চয়ের টাকা দিয়ে কোনরকমে আপাতত আমাদের সংসার খরচ চলছে। তবে আমার জানা নেই কতদিন তা চলবে। আমি ব্যাংকে অনুরোধ করেছিলাম যেন তারা কিস্তির টাকা স্থগিত করে। তারা না বলে দিয়েছে। এমন পরিস্থিতি আমাদেরকে দিশেহারা করে দিচ্ছে।’ লুইস বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাস্যিমিলিয়ানো পানারারি বলেন, ‘লকডাউনের শুরুর দিকে মানুষ তাদের স্পৃহা ধরে রাখার চেষ্টা করেছিল, কিন্তু এখন তারা প্রচণ্ডরকমের ভঙ্গুরদশায় থাকা দেশের তিক্ত বাস্তবতার নিয়ে ভাবছে।’ সামাজিক এ অস্থিরতার মধ্যে ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্তে বলেছেন, সংহতি তহবিল থেকে সব পৌরসভাকে অবিলম্বে ৪৩০ কোটি ইউরো অগ্রিম দেওয়া হবে। ফুড স্টাম্প (পুষ্টিকর খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির ভাউচার) এ পরিণত করার জন্য মেয়রদেরকে দেওয়া হবে অতিরিক্ত ৪০০ মিলিয়ন ইউরো। তবে মেয়রদের দাবি, যে তহবিল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বিশেষ করে ফুড ভাউচার হিসেবে যে ৪০ কোটি ইউরো দেওয়ার কথা বলা হয়েছে তা অপর্যাপ্ত। কাতানিয়ার মেয়র সালভো পোগলিয়েসে বলেন, ‘এ টাকা একবারেই পর্যাপ্ত নয়। আমরা আরও বেশি প্রত্যাশা করেছিলাম। আশা করি সরকার একটা উপায় খুঁজে বের করবে। পরিস্থিতি খুব নাজুক হয়ে পড়েছে, কারণ জনসংখ্যার একটা উল্লেখযোগ্য অংশ একেবারেই আয়-উপার্জনহীন হয়ে পড়েছে। আগে একসময় যারা সম্মানের সঙ্গে বাস করতো তারা এখন দুর্দশার মধ্যে আছে।’ আরেকটি বিষয় হলো ৪৩০ কোটি ইউরো মেয়রদেরকে মে মাসে দেওয়ার কথা ছিল। তবে সে তহবিলের বেশিরভাগ অংশ এরইমধ্যে অন্য খাতে খরচের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। রোমের লুইস বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক গিওভান্নি ওরসিনা বলেন, ‘সরকার  যদি মনে করে এ টাকা দিয়ে জনগণকে খাওয়ানো হবে, তবে অন্য কাজ করার জন্য পৌরসভাগুলোর হাতে টাকা থাকবে না। আর নতুন করে বরাদ্দ হওয়া ৪০ কোটি ইউরো যদি পৌরসভাগুলোর মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়, তবে তা খুবই নগণ্য। সমস্যায় পড়বেন মেয়ররা। ইতালীয় নাগরিকরা তাদের কাছে গিয়ে টাকা চাইবে, কিন্তু তারা তা দিতে পারবে না। যে প্রত্যাশা তৈরি হয়েছে তাদের মনে, তা পূরণ করা যাবে না।’ বিভিন্ন অপরাধী চক্র আবার পরিস্থিতির সুযোগ নিচ্ছে বলেও আভাস মিলেছে। ফেসবুকে ‘ন্যাশনাল রিভোল্যুশন’ নামে একটি গ্রুপ জনগণকে সুপারমার্কেট লুটপাট করার উসকানি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। ইতালির সন্ত্রাসবিরোধী পুলিশ স্কোয়াড ডিগোসের সিসিলি ইউনিটের এক সূত্রকে উদ্ধৃত করে দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, এ চক্রের পেছনে এমন মানুষরা কাজ করছে যারা লকডাউনের আগে বাড়িতে বাড়িতে ডাকাতি ও দোকানে চুরি করে বেড়াতো। কিন্তু লকডাউনের কারণে অনেক দোকান বন্ধ থাকায় এসব অপরাধকর্মের কিছু কিছু তারা চালাতে পারছে না। এখন তারা ডাকাতির জন্য সুপারশপই বেছে নিচ্ছে। এরা মূলত দক্ষিণাঞ্চলের দারিদ্র্যপীড়িত মানুষ, যারা অপরাধকর্মকে অবলম্বন বানাতে বাধ্য হয়েছে। অপরাধ ঠেকাতে দরিদ্র নাগরিকদের জন্য ‘সারভাইভাল ইনকাম’ প্রতিষ্ঠা করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পালেরমোর মেয়র লিওলুসা অরল্যান্ডো। দারিদ্র্যের সুযোগ নিয়ে মাফিয়া গোষ্ঠীগুলো মানুষকে নিজেদের সংগঠনের দিকে প্রলোভিত করতে পারে বলেও শঙ্কা করা হচ্ছে। লুইস বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক গিওভান্নি ওরসিনা বলেন, ‘অপরাধ সংগঠনগুলোর প্রচুর টাকা আছে। নিরুপায় হয়ে লোকজন তাদের জন্য কাজ শুরু করতে পারে। আর তারা যদি একবার অপরাধী সংগঠনের সঙ্গে জড়িয়ে যায় তবে তাদেরকে আর ফিরিয়ে আনা যাবে না।’

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বগুড়ায় ডেকে নিল বান্ধবী, ধর্ষণ করল ‘যুবলীগ নেতা’!

বগুড়ায় ডেকে নিল বান্ধবী, ধর্ষণ করল ‘যুবলীগ নেতা’!

পাইকগাছায় নার্সের স্বর্নের লকেট ছিনতাই করে পালানোর সময় দু'কলেজ ছাত্র আটক

পাইকগাছায় নার্সের স্বর্নের লকেট ছিনতাই করে পালানোর সময় দু'কলেজ ছাত্র আটক

হাটহাজারী মাদ্রাসা পরিচালনায় তিন শিক্ষক, বাবুনগরী পেলেন ২ দায়িত্ব

হাটহাজারী মাদ্রাসা পরিচালনায় তিন শিক্ষক, বাবুনগরী পেলেন ২ দায়িত্ব

এনএসআই ও বিজিবি’র যৌথ অভিযানে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ আটক-১

এনএসআই ও বিজিবি’র যৌথ অভিযানে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ আটক-১

ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদাকে ওএসডি, স্বামীকে বদলী

ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদাকে ওএসডি, স্বামীকে বদলী

কে হচ্ছেন হেফাজতের পরবর্তী আমির

কে হচ্ছেন হেফাজতের পরবর্তী আমির

সাবেক ওসি প্রদীপের সকল স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ

সাবেক ওসি প্রদীপের সকল স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ

আদালতের ছয় তলা থেকে সেই মজনুর লাফিয়ে পড়ার চেষ্টা

আদালতের ছয় তলা থেকে সেই মজনুর লাফিয়ে পড়ার চেষ্টা

রৌমারীতে চর লাঠিয়াল ডাঙ্গা এলাকায় নতুন হাটের সূচনা সমন্ধে আলোচনা সভা

রৌমারীতে চর লাঠিয়াল ডাঙ্গা এলাকায় নতুন হাটের সূচনা সমন্ধে আলোচনা সভা

আমতলীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পল্লী চিকিৎসক নিহত

আমতলীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পল্লী চিকিৎসক নিহত

মসজিদে বিস্ফোরণ: গ্রেফতার মোবারক রিমান্ডে

মসজিদে বিস্ফোরণ: গ্রেফতার মোবারক রিমান্ডে

শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসিসহ ৫ জন প্রত্যাহার

শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসিসহ ৫ জন প্রত্যাহার

কবিতাঃ বৃষ্টি জলের ছোঁয়া

কবিতাঃ বৃষ্টি জলের ছোঁয়া

আবরারের বাবা অসুস্থ: মামলার প্রথম দিনেই সাক্ষ্য গ্রহণ হয়নি

আবরারের বাবা অসুস্থ: মামলার প্রথম দিনেই সাক্ষ্য গ্রহণ হয়নি

নির্মমতার চরম পর্যায়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন

নির্মমতার চরম পর্যায়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন

সর্বশেষ

লকডাউন প্রত্যাহারের দাবিতে স্পেনে বিক্ষোভ!

লকডাউন প্রত্যাহারের দাবিতে স্পেনে বিক্ষোভ!

নোবেল পুরষ্কারের জন্যে মনোনীত সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবিদ

নোবেল পুরষ্কারের জন্যে মনোনীত সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবিদ

সনেট কবিতাঃএতো মায়া ! কবি- মোঃজাহাঙ্গীর আলম!

সনেট কবিতাঃএতো মায়া ! কবি- মোঃজাহাঙ্গীর আলম!

আন্তঃ আফগান বৈঠক ফলপ্রসূ নয়!

আন্তঃ আফগান বৈঠক ফলপ্রসূ নয়!

বিএসএফের তাড়ায় নিখোঁজ বাবার জন্য সন্তানদের অপেক্ষা

বিএসএফের তাড়ায় নিখোঁজ বাবার জন্য সন্তানদের অপেক্ষা

হচ্ছে না শিকদার বাড়ির সবচেয়ে বড় দূ্র্গা পূজা

হচ্ছে না শিকদার বাড়ির সবচেয়ে বড় দূ্র্গা পূজা

মহিষ চুরির অভিযোগে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রকে ১৯ বছর দেখিয়ে মামলা

মহিষ চুরির অভিযোগে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রকে ১৯ বছর দেখিয়ে মামলা

সন্ধ্যার পর রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি

সন্ধ্যার পর রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি

করোনা সচেতনতা বৃদ্ধিতে এবার শায়েস্তাগঞ্জ জংশনে পটনাট্য

করোনা সচেতনতা বৃদ্ধিতে এবার শায়েস্তাগঞ্জ জংশনে পটনাট্য

নির্মমতার চরম পর্যায়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন

নির্মমতার চরম পর্যায়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন

আদালতের ছয় তলা থেকে সেই মজনুর লাফিয়ে পড়ার চেষ্টা

আদালতের ছয় তলা থেকে সেই মজনুর লাফিয়ে পড়ার চেষ্টা

একাধিকবার বাড়ানো যাবে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম

একাধিকবার বাড়ানো যাবে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম

নবীনগরে লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের উদ্যোগে ৫০০ শত তালের বীজ রোপণ

নবীনগরে লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের উদ্যোগে ৫০০ শত তালের বীজ রোপণ

প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল পাবে জবি শিক্ষার্থীরা: জবি উপাচার্য

প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল পাবে জবি শিক্ষার্থীরা: জবি উপাচার্য

মদ তৈরীর কারখানা আবিস্কার,  সৈনিকলীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ২

মদ তৈরীর কারখানা আবিস্কার, সৈনিকলীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ২