Feedback

জাতীয়, কোভিড-১৯

দ্বিতীয় ধাক্কায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও মৃত্যুর হার কম কেন?

দ্বিতীয় ধাক্কায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও মৃত্যুর হার কম কেন?
October 29
10:44am
2020
Masud Rana
Kotwali, Dhaka:
Eye News BD App PlayStore

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) এর দ্বিতীয় ধাক্কায় ধুকছে ইউরোপের দেশগুলো। পুরো মহাদেশেই আক্রান্তের সংখ্যা এখন আকাশচুম্বী। সরকার শক্ত লকাডউন জারি করছে বিভিন্ন শহরে, তালা পড়ছে অর্থনীতিতে। তবে তারমাঝেও দেখা দিচ্ছে আশার আলো। কেননা দ্বিতীয় ধাক্কায় আক্রান্ত বাড়লেও সে তুলনায় মৃত্যু সংখ্যা কম। 

সাম্প্রতিক এক তথ্য থেকে দেখা যায়, ইউরোপিয়ান সেন্টার ফর ডিজিজ প্রিভেনশন এন্ড কন্ট্রোল (ইসিডিসি) ভাষ্যমতে যুক্তরাজ্য, স্পেন, ফ্রান্স, জার্মানিতে প্রথম ধাক্কার ‍তুলনায় দ্বিতীয় ধাক্কায় আক্রান্তের সংখ্যা বেশি হলেও সে তুলনায় মৃত্যু কম। 

যুক্তরাজ্যের প্রাইমারী কেয়ার হেলথ সেন্টারের নাফিল্ড ডিপার্টমেন্টের সিনিয়র পরিসংখ্যানবিদ জেসন ওকে বলেছেন, করোনার প্রথম ধাক্কায় যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর হার ছিলো ৩ শতাংশ। অর্থাৎ ১০০ জন আক্রান্ত হলে গড়ে মারা যেতেন ৩ জন। প্রথম ধাক্কার শেষ দিক তথা জুন-জুলাইতে সে হার কমে আসে ০.৫ শতাংশে।

এদিকে অক্টোবর নাগাদ দ্বিতীয় ধাক্কায় আক্রান্তের সংখ্যা প্রথম পর্যায়ের কাছাকাছি আছে। তবে মৃত্যুর হার কমে দাড়িয়েছে .৭৫ শতাংশে।  মৃত্যুর হার কম হওয়ার কারণও ব্যাখ্যা করেছেন জেসন। তাদের ধারণা দ্বিতীয় ধাক্কায় চিকিৎসা ব্যবস্থা আগের চেয়ে ভালো এবং শনাক্ত করতে পরীক্ষাও করা হচ্ছে আগের তুলনায় বেশি। তবে সবচেয়ে বড় কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন বয়সকে। কেননা দ্বিতীয় ধাক্কায় তরুণ এবং সবলরা আক্রান্ত হচ্ছে। তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো, ফলে মারা যাচ্ছে কম। এছাড়াও চিকিৎসা পদ্ধতির উন্নয়নকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। 

ইসিডিসি বলছে, করোনার প্রথম ধাক্কায় ইউরোপের হাসপাতাল বা বৃদ্ধাশ্রমে থাকা বয়স্করা আক্রান্ত হয়েছে। কিন্তু গ্রীষ্মের দৃশ্যপট ভিন্ন। এবার করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে অপেক্ষাকৃত তরুণদের মাঝে যারা রেস্টুরেন্ট, বার এবং অন্যান্য পাবলিক প্লেসে বেশি চলাফেরা করেন। পরিসংখ্যানে দেখা যায় জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত  আক্রান্তদের গড় বয়স ছিলো ৫৪। তবে বর্তমানে আক্রান্তদের গড় বয়স ৩৯। যা মৃত্যু হার কমার অন্যতম কারণ।

লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স এর গবেষণায় দেখা যায়, ইউরোপের ২১ দেশের মোট মৃত্যুসংখ্যার ৪৬ শতাংশই হয়েছে বৃদ্ধাশ্রমে থাকা মানুষদের।  

গবেষকরা আরও বলছেন, জনতাত্ত্বিক পরিবর্তন হয়তো মৃত্য ঝুঁকি কমার প্রধান কারণ তবে চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নতিও এখানে ভূমিকা রেখেছে। কেননা, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যকর্মীরা এখন আগের তুলনায় অনেক বেশি অভিজ্ঞ।  

যুক্তরাজ্যের এনওয়াইইউ হাসপাতালের পপুলেশন হেলথ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. লিওরা হরউইটজ ও তার দল এক গবেষণায় দেখেন, তাদের অধীনে থাকা হাসপাতালগুলোতে মার্চ পর্যন্ত যেখানে মৃত্যু হার ছিলো ২৫.৬% আগস্টে সে হার ছিলো ৭.৬%। লিওরা বলেন, করোনা রোগীর চিকিৎসা পদ্ধতিতে পরিবর্তন এসেছে।

করোনার প্রথম পর্যায়ের সময় অনেক রোগীকে শুরুতেই ভেন্টিলেশনে নেয়া হতো। কিন্তু এখন তার পরিমাণ কমেছে। কারণ ডাক্তাররা এখন জানেন করোনা কীভাবে ফুসফুসের ক্ষতি করে এবং কখন তাদের অক্সিজেন সরবরাহ করতে হবে।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

নুরু মন্ডল মারা গেছেন

নুরু মন্ডল মারা গেছেন

দুপচাঁচিয়ায় পৌরসভার উদ্যোগে উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন

দুপচাঁচিয়ায় পৌরসভার উদ্যোগে উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে যেসব বিশ্ববিদ্যালয়

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে যেসব বিশ্ববিদ্যালয়

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতি আসলামকে বহিষ্কার

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রলীগ সভাপতি আসলামকে বহিষ্কার

চিকিৎসক সংকটসহ নানা সমস্যায় বেহাল কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল

চিকিৎসক সংকটসহ নানা সমস্যায় বেহাল কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল

কুমিল্লায় বহুতল ভবন থেকে লাফিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর আত্মহত্যা

কুমিল্লায় বহুতল ভবন থেকে লাফিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর আত্মহত্যা

জামালপুর শহরের যানজট নিরসনে নিরব ভূমিকায় প্রশাসন

জামালপুর শহরের যানজট নিরসনে নিরব ভূমিকায় প্রশাসন

ফরিদগঞ্জে তেলবাহী লরি ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

ফরিদগঞ্জে তেলবাহী লরি ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রদলের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

দুপচাঁচিয়ায় ছাত্রদলের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে সিয়াম-পরীমনির "বিশ্বসুন্দরী"

অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে সিয়াম-পরীমনির "বিশ্বসুন্দরী"

গোয়ার সৈকতে মোনালিসার হট ফটোশুট

গোয়ার সৈকতে মোনালিসার হট ফটোশুট

মাত্র ৫৪ মিনিটে ঢাকা-চট্টগ্রাম যাওয়ার ট্রেন আসছে

মাত্র ৫৪ মিনিটে ঢাকা-চট্টগ্রাম যাওয়ার ট্রেন আসছে

ভৈরবে ১৭ মাদক কারবারী আটক

ভৈরবে ১৭ মাদক কারবারী আটক

কাশ্মীর নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর প্রথম যৌথ প্রস্তাব

কাশ্মীর নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর প্রথম যৌথ প্রস্তাব

ওমানে নোয়াখালীর তিন রেমিট্যান্স যোদ্ধার মর্মান্তিক মৃত্যু

ওমানে নোয়াখালীর তিন রেমিট্যান্স যোদ্ধার মর্মান্তিক মৃত্যু

সর্বশেষ

করোনায় আক্রান্ত সংসদ সদস্য সানি দেওল

করোনায় আক্রান্ত সংসদ সদস্য সানি দেওল

মন্দিরে বিয়ে করলেন সংগীতশিল্পী উদিত নারায়ণ ও শ্বেতা

মন্দিরে বিয়ে করলেন সংগীতশিল্পী উদিত নারায়ণ ও শ্বেতা

গেল নভেম্বর মাসে ৩৫৩ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার

গেল নভেম্বর মাসে ৩৫৩ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার

পৃথিবীর সব মুসলিম দেশে ভাস্কর্য রয়েছে: আ ক ম মোজাম্মেল হক

পৃথিবীর সব মুসলিম দেশে ভাস্কর্য রয়েছে: আ ক ম মোজাম্মেল হক

অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে গিয়ে ধর্ষিত মাদ্রাসাছাত্রী

অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে গিয়ে ধর্ষিত মাদ্রাসাছাত্রী

জলিল মোহাম্মদের কথায় গাইলেন রিংকু ও মুনিয়া মুন

জলিল মোহাম্মদের কথায় গাইলেন রিংকু ও মুনিয়া মুন

সগিরা মোর্শেদ হত্যা: ৩০ বছর পর আবারো হত্যা মামলার বিচারকার্য কাজ শুরু

সগিরা মোর্শেদ হত্যা: ৩০ বছর পর আবারো হত্যা মামলার বিচারকার্য কাজ শুরু

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতাকারীদের বিরুদ্ধে কিশোরগঞ্জে মহিলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতাকারীদের বিরুদ্ধে কিশোরগঞ্জে মহিলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ

ডেঙ্গু জ্বরে মারা গেলেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী বালা

ডেঙ্গু জ্বরে মারা গেলেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী বালা

এই পাঁচটি গাছ দিয়ে কম খরচে  সাজান আপনার বাড়ি

এই পাঁচটি গাছ দিয়ে কম খরচে সাজান আপনার বাড়ি

গবেষকদের ধারণা   শীতকালে দাড়ি রাখলে ঠাণ্ডা কম লাগে ত্বকে

গবেষকদের ধারণা শীতকালে দাড়ি রাখলে ঠাণ্ডা কম লাগে ত্বকে

টাকার পরির্বতে নারকেলে মিলবে কলেজে ভর্তি

টাকার পরির্বতে নারকেলে মিলবে কলেজে ভর্তি

বাগেরহাটে হরিণ শিকারের ফাঁদসহ ৫ শিকারী আটক

বাগেরহাটে হরিণ শিকারের ফাঁদসহ ৫ শিকারী আটক

জেনে নিন কী কী গুণ রয়েছে গোলমরিচে

জেনে নিন কী কী গুণ রয়েছে গোলমরিচে

পাইকগাছায় মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ভিটা-বাড়ির জমি রেজিস্ট্রি

পাইকগাছায় মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে ভিটা-বাড়ির জমি রেজিস্ট্রি