Feedback

ধর্ম ও শিক্ষা, খোলা কলাম

গোপনে বিয়ে করার সামাজিক ভয়াবহতা

গোপনে বিয়ে করার সামাজিক ভয়াবহতা
October 25
08:22pm
2020
MD Saifur Rahman
Habiganj, Habiganj:
Eye News BD App PlayStore

গোপনে বিয়ে করা শরিয়াহর মেজাজের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ নয়। বিয়ে লুকিয়ে করার বিষয় নয়; লুকিয়ে তো মানুষ জিনা করে। বিয়ে করা হবে প্রকাশ্যে। এটাই শরিয়াহর নির্দেশনা। রাসুলুল্লাহ সা. বলেন, 'তোমরা বিয়ের ঘোষণা দাও, মসজিদে বিয়ের আয়োজন করো এবং বিয়েতে দফ বাজাও।' 

মাসআলাগতভাবে স্রেফ দুজন সাক্ষীর সামনে মোহর নির্ধারণ করে ইজাব-কবুল (প্রস্তাব ও গ্রহণ) করলেই বিয়ে হয়ে যায়। কিন্তু এভাবে বিয়ে করার পরিণাম অনেক সময় ভালো হয় না। ইদানীং লুকিয়ে বিয়ে করার প্রবণতা বাড়ছে। মাদরাসার অনেক ছেলেপেলে শুধু মাসআলা জেনে পরিণামের কথা না ভেবে ঢালাওভাবে এর চর্চা করছে। অনেকে নিজেরাই লুকিয়ে বিয়ে করছে, অনেকে অন্যদের করাচ্ছে। আর হানাফি মাজহাবের ফাতওয়া অনুসারে বিয়েতে প্রাপ্তবয়স্কা মেয়ের ইজাব-কবুলের জন্য ওলির অনুমতি আবশ্যক নয়। এই সুযোগটাকেই তারা কাজে লাগাচ্ছে। আর যারা মাসনার ওপর আমল করছে, তাদের অধিকাংশই বোধ হয় গোপনে এই কার্য সমাধা করে। এরপর যা হবার, তা-ই হয়।

লুকিয়ে বিয়ে করার ক্ষতিগুলোর বিস্তারিত বিবরণ তো আর এখানে অল্প কথায় তুলে ধরা সম্ভব নয়। তবে কয়েকটা বিষয়ের ওপর সংক্ষেপে আলোকপাত করা যায়। 

ক. দাম্পত্যজীবনে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য ও ঝগড়াঝাঁটি হওয়া একটা স্বাভাবিক বিষয়। আমাদের দেশে রাগের মাথায় স্ত্রীকে ছেড়ে দেওয়ার প্রচলন ব্যাপক। যারা লুকিয়ে বিয়ে করে, তাদের ক্ষেত্রে স্ত্রীদের সঙ্গে মনোমালিন্য আরও বেশি হওয়া স্বাভাবিক। কারণ, সেখানে হয়তো দুজন দু-বাসায় থাকছে। পারস্পরিক বোঝাপড়া কম হচ্ছে। বিভিন্ন কারণে একজনের প্রতি অন্যজনের সন্দেহ জাগছে। এসব বিয়েতে আবার মোহরের পরিমাণও থাকে নিতান্ত কম। অনেক ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রিও হয় না। এখন ছেলে যদি রাগের মাথায় মেয়েকে ছেড়ে দেয়, আর্থিকভাবে তার খুব বেশি লোকসান হবে না। আর বিয়ে গোপন থাকায় মেয়েটিও তার বিরুদ্ধে একশনে যেতে পারবে না। এভাবে ছেলেটি অনেক সুবিধা ভোগ করে নিলেও মেয়েটিকে হয়তো ভবিষ্যতে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হবে।

খ. হাদিসে রয়েছে, তোমরা অপবাদের জায়গা থেকে বেঁচে থাকো। গোপনে বিয়ে করলে অন্যদের চোখে তো আর তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে মূল্যায়িত হবে না। এখন তাদের পারস্পরিক মেলামেশা, গল্পসল্প, খুনসুটিকে মানুষ কোন নজরে দেখবে? অন্যরা তো এটাকে হারাম রিলেশনই ভাববে। উপরন্তু এর দ্বারা সমাজে হারাম রিলেশনের প্রমোট হবে। লোকে ভাববে, ওরা দীনদার হয়েও প্রেম করে। আবার মাঝেমধ্যে লিভ টুগেদারও করে থাকে।

গ. ছেলেমেয়ের পরিবার যদি এই বিয়ে মেনে না নেয়, তাহলেও হরেক রকম ভোগান্তি পোহাতে হবে। আমরা তো এমনও দেখেছি, গোপন স্বামীর তালাক গ্রহণ ছাড়াই অন্য জায়গায় মেয়েকে বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এরপর রীতিমতো দ্বিতীয় স্বামীর সাথে শারীরিক সম্পর্কও চলছে। এমনকি সেখানে একের পর এক হারাম সন্তানও পয়দা হচ্ছে। পরিবার মেনে না নেওয়ার কারণে ছেলেমেয়ে যদি আলাদা সংসার শুরু করে, তাতেও অশান্তি লেগেই থাকে। বাবা-মা'কে ছেড়ে কয়দিন থাকা যায়? বিশেষ করে মেয়েদের প্রেগন্যান্সির সময়, সন্তান ডেলিভারির পরের সময়, বিভিন্ন রোগব্যাধির সময় আত্মীয়-পরিজন কাছে না থাকলে যে জীবনটা কেমন বিষণ্ণময় হয়, তা সেই অবস্থার শিকার ব্যক্তিরাই একমাত্র অনুধাবন করতে পারবে।

ঘ. বিয়ে মানে তো শুধু যৌনসম্ভোগ নয়। বিয়ে মানে তো অনেক কিছু। এ কারণেই তো দাসীর সাথে যৌনসম্ভোগ করা যায়; কিন্তু তাকে বিয়ে করা যায় না। তাকে বিয়ে করতে চাইলে আজাদ করে নিতে হয়। কারণ স্ত্রী ও দাসী কখনো এক নয়। লুকিয়ে বিয়ে করে কেউ হয়তো যৌনসম্ভোগের আনন্দ নিয়ে নিল। একজন অবিবাহিত পুরুষের নিকট এটাই অনেক কিছু। কিন্তু এই স্বপ্নের ঘোর যখন কেটে যাবে, কয়েক মাস যাওয়ার পর যখন বাস্তবতা সামনে এসে পেখম মেলবে, তখনকার অবস্থা সম্পর্কে সবিস্তারে না ভেবেই যৌনজীবন শুরু করার পরিণাম কি মঙ্গলজনক?

ঙ. যারা লুকিয়ে মাসনা করে, প্রায়শই তাদের সংসার টেকে না। যখন ওয়াহিদা এ সম্পর্কে জানতে পারে, তখন অধিকাংশ ক্ষেত্রে পারিবারিক ও সামাজিক চাপে তাকে দুই অপশনের একটা বেছে নিতে হয় : হয়তো মাসনা'র জীবন তমসাচ্ছন্ন করে দিয়ে তাকে বিদায় জানাতে হয়, কিংবা এতকালের সঙ্গিনী প্রথমাকে ছেড়ে দিয়ে সন্তান ও সমাজের কাছে অপরাধী হয়ে থাকতে হয়। তাছাড়া জাহিলি সমাজে বিভিন্ন আইনি জটিলতা তো আছেই। অনেক সময় নারী নির্যাতনের মামলা খেয়ে দীর্ঘকাল লাল গুদামে পড়ে থাকতে হয়। ডাবল আনন্দের স্বপ্ন ছেড়ে রোজা রেখে দিন কাটাতে হয়। 

চ. সমাজে সাধারণত সবারই কিছু না কিছু শত্রু থাকে। ভালো মানুষদের শত্রু আরও বেশি থাকে। ভালো মানুষদের যদি শত্রু না থাকা সম্ভাবিত হতো, তাহলে অন্তত নবিগণের কোনো শত্রু থাকত না। অথচ তাদের শত্রু ছিল সবচে বেশি। কারণ, আল্লাহ নিজেই তার প্রিয় বান্দাদের পরীক্ষা করার জন্য অপরাধীদেরকে তাদের শত্রু বানিয়ে দেন। যাহোক, যারা লুকিয়ে বিয়ে করে, তাদের শত্রুরা কোনোভাবে এ ব্যাপারে অবগত হলে নিশ্চয়ই তার ক্ষতি করার চেষ্টা করবে। অবিবাহিত হলে চরিত্র নিয়ে কথা তুলবে। বিবাহিত হলে পরকীয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত করবে। বাংলায় প্রবাদবাক্য রয়েছে, দেয়ালেরও কান আছে। যার কারণে বিয়ের বিষয়টা সাধারণত কখনোই গোপন থাকে না। আপনি একটা মেয়ের সাথে লুকিয়ে লুকিয়ে যৌনসম্পর্ক করবেন, উভয়ের অনেক কিছুর মধ্যেই ক্রমশ সুস্পষ্ট পরিবর্তন ফুটে উঠবে, এরপরও পৃথিবীর কেউই তা জানবে না, এটা কি আর কখনো সম্ভব বলে মনে হয়?

যাহোক, এখানে মাত্র অল্প কয়েকটা সামাজিক সমস্যার দিকে ইঙ্গিত করা হলো। কোনো ব্যক্তি এ ধরনের সামাজিক সমস্যায় পতিত হলে তার দীনি কাজও বাধাগ্রস্ত হবে। অস্থিরতা ও উদ্বিগ্নতার কারণে ইবাদতের একাগ্রতা নষ্ট হবে। এটাই স্বাভাবিক। এমনকি এসব ভুল অনেক সময় মানুষের জীবনের প্রতি বিতৃষ্ণ হয়ে ওঠার কারণও হয়। ফলে কেউ কেউ আত্মহত্যা বা এজাতীয় ভুল পথও বেছে নেয়। 

বিয়ে শুধু একটা আমলই নয়, এটা একটা মুআমালা ও মুআশারাও বটে। বিয়েতে আর্থিক চুক্তির বিষয় রয়েছে। বিয়ের সঙ্গে হুরমাতে মুসাহারার সম্পর্ক রয়েছে। বিয়ের সঙ্গে পারিবারিক ও সামাজিক বিভিন্ন বিষয় জড়িয়ে রয়েছে। পরবর্তী প্রজন্মের ভবিষ্যতও এর সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে আছে। এ কারণে বিয়ের ব্যাপারে শুধু আবেগই যথেষ্ট নয়, বরং এ ব্যাপারে বিবেকেরও প্রয়োজন রয়েছে। সমাজে বিয়ে কঠিন হয়ে গেছে, এতে তো কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু যেখানে সহজতা আছে, সেখানেও তো আমরা যাই না। যে পবিত্র থাকতে চায়, আল্লাহ তার পবিত্র থাকার ব্যবস্থা করে দেন। এটা হাদিসেরই ঘোষণা। সুতরাং সমাজ থেকে পালিয়ে কর্ম সারার নাম বীরত্ব নয়; বরং বীরত্ব হলো জাহিলি সমাজব্যবস্থা ভেঙ্গে ইসলামি কালচার প্রতিষ্ঠা করা। আপনি কেন পালিয়ে বিয়ে করবেন? আপনি কেন একটা মেয়ের ভবিষ্যৎকে শঙ্কার মধ্যে ফেলে দেবেন? তারচে বরং আপনি জাহিলি স্রোতকে রুখে দিন। শুধু নিজের অর্গাজমের কথা না ভেবে সকল যুবক-যুবতীর মুক্তির উপায় বের করুন। 

আমরা যদি না জাগি মা, কেমনে সকাল হবে?

তোমার ছেলে জাগলে গো মা, রাত পোহাবে তবে।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, যশোরের নতুন অধ্যক্ষ হলেন লেফটেন্যান্ট কর্ণেল নুসরাত নূর আল চৌধুরী

ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, যশোরের নতুন অধ্যক্ষ হলেন লেফটেন্যান্ট কর্ণেল নুসরাত নূর আল চৌধুরী

ফেনীর ছাগলনাইয়ায় বৃদ্ধ মায়ের বিষ পানে আত্নহত্যা! আটক ৩!

ফেনীর ছাগলনাইয়ায় বৃদ্ধ মায়ের বিষ পানে আত্নহত্যা! আটক ৩!

পাগলার কান্দিপাড়ায় অজ্ঞান পার্টির কবলে ১০ বছরের মাদ্রাসা ছাত্র

পাগলার কান্দিপাড়ায় অজ্ঞান পার্টির কবলে ১০ বছরের মাদ্রাসা ছাত্র

আবারও ইউটার্ন ট্রাম্পের, 'কখনও হার মানব না'

আবারও ইউটার্ন ট্রাম্পের, 'কখনও হার মানব না'

দুই বছরেও শেষ হয়নি হাবিপ্রবির গ্রন্থাগার ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শাখার অটোমেশনের কাজ

দুই বছরেও শেষ হয়নি হাবিপ্রবির গ্রন্থাগার ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শাখার অটোমেশনের কাজ

ভালোবাসার প্রতিদান তানিয়া সুলতানা হ্যাপি

ভালোবাসার প্রতিদান তানিয়া সুলতানা হ্যাপি

ঘূর্ণিঝড়ের আকারে আজ রাতেই ছোবল মারতে পারে নিভার, সর্বোচ্চ গতি হতে পারে ১৪৫ কিমি

ঘূর্ণিঝড়ের আকারে আজ রাতেই ছোবল মারতে পারে নিভার, সর্বোচ্চ গতি হতে পারে ১৪৫ কিমি

ভৈরবে গাজাঁ আত্মসাতের অভিযোগে এসআই প্রত্যাহার

ভৈরবে গাজাঁ আত্মসাতের অভিযোগে এসআই প্রত্যাহার

পাকিস্তানসহ ১৩ টি দেশকে ভিসা দিবে না আরব আমিরাত

পাকিস্তানসহ ১৩ টি দেশকে ভিসা দিবে না আরব আমিরাত

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আন্দোলন, সিঙ্গাপুরে ১৫ বাংলাদেশিকে বহিষ্কার

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আন্দোলন, সিঙ্গাপুরে ১৫ বাংলাদেশিকে বহিষ্কার

পাকিস্তানে ধর্ষকের শাস্তি "পুরুষাঙ্গ" অকেজো করে দেওয়া

পাকিস্তানে ধর্ষকের শাস্তি "পুরুষাঙ্গ" অকেজো করে দেওয়া

কুবিতে প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল চালু করার কার্যক্রম উদ্বোধন করা হলো

কুবিতে প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল চালু করার কার্যক্রম উদ্বোধন করা হলো

করোনা প্রতিরোধে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ শাখার মাস্ক ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

করোনা প্রতিরোধে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ শাখার মাস্ক ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

আমতলীতে নদী দখল করে ইটভাটা, দ্রুত বন্ধের দাবী এলাকাবাসীর

আমতলীতে নদী দখল করে ইটভাটা, দ্রুত বন্ধের দাবী এলাকাবাসীর

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নসেট পরীক্ষার্থীদের হাতে কখন পৌঁছাবে ?

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নসেট পরীক্ষার্থীদের হাতে কখন পৌঁছাবে ?

সর্বশেষ

কিংবদন্তী ফুটবলার ম্যারাডোনা আর নেই

কিংবদন্তী ফুটবলার ম্যারাডোনা আর নেই

ফুটবল জাদুকর ম্যারাডোনা মারা গেছেন

ফুটবল জাদুকর ম্যারাডোনা মারা গেছেন

ময়মনসিংহে শিশু ধর্ষণ মামলা ধামাচাপা দিতে গিয়ে কারাগারে শ্রমিক নেতা

ময়মনসিংহে শিশু ধর্ষণ মামলা ধামাচাপা দিতে গিয়ে কারাগারে শ্রমিক নেতা

ভৈরবে গাজাঁ আত্মসাতের অভিযোগে এসআই প্রত্যাহার

ভৈরবে গাজাঁ আত্মসাতের অভিযোগে এসআই প্রত্যাহার

সাঘাটায় জেলের বরশিতে ধরা পড়া ঘড়িয়াল নদীতে অবমুক্ত

সাঘাটায় জেলের বরশিতে ধরা পড়া ঘড়িয়াল নদীতে অবমুক্ত

রাশিয়ার জলসীমায় ঢুকে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজকে ধাওয়া

রাশিয়ার জলসীমায় ঢুকে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজকে ধাওয়া

সোনারগাঁয়ে’র সাংবাদিক রিপনের বিরুদ্ধে মিথ্যা ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ও অপপ্রচার

সোনারগাঁয়ে’র সাংবাদিক রিপনের বিরুদ্ধে মিথ্যা ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ও অপপ্রচার

খুলনায় ভুয়া অভিযোগের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

খুলনায় ভুয়া অভিযোগের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

বাগেরহাটে মানববন্ধনের মাধ্যমে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস পালন

বাগেরহাটে মানববন্ধনের মাধ্যমে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস পালন

আনন্দ টিভির আনন্দ উৎসব-২০২০ (পর্ব-১)

আনন্দ টিভির আনন্দ উৎসব-২০২০ (পর্ব-১)

লালমনিরহাটে বিভাগীয় লেখক পরিষদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

লালমনিরহাটে বিভাগীয় লেখক পরিষদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

রংপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্বলন

রংপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্বলন

খাশোগি হত্যাকাণ্ড, নতুন সন্দেহভাজনের তালিকা করেছে তুর্কি আদালত

খাশোগি হত্যাকাণ্ড, নতুন সন্দেহভাজনের তালিকা করেছে তুর্কি আদালত

শ্যামনগরে খুদে বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবনকৃত প্রকল্প স্টল প্রদর্শনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হল বিজ্ঞানমেলা

শ্যামনগরে খুদে বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবনকৃত প্রকল্প স্টল প্রদর্শনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হল বিজ্ঞানমেলা

বগুড়ায় দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, চালক-হেলপারসহ আহত ৫

বগুড়ায় দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, চালক-হেলপারসহ আহত ৫