Feedback

আরও...

করোনাকালে কমেছে আয়, বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম

করোনাকালে কমেছে আয়, বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম
October 15
01:10pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore

করোনাকালে মানুষের আয় কমেছে ২০ শতাংশ। এটি সরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বিবিএসের হিসাব। আবার সরকারের বিপণন সংস্থা টিসিবির হিসাব বলছে, প্রায় সব নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে যারা বাজারে যাচ্ছেন জিনিসপত্র কিনতে, তাদের মুখে হাসি নেই। মুখ গোমড়া করে বাজার থেকে ফিরছেন অধিকাংশ মানুষ। কারণ, আয় দিয়ে সংসারের প্রয়োজন মেটানো সম্ভব হচ্ছে না। মাছ, মাংস তো দূরে থাক, সংসারের চাহিদা অনুযায়ী সবজিও কিনতে পারছেন না অনেকে। এক বছর আগে ২০০ টাকায় যে পরিমাণ সবজি পাওয়া যেতো, এখন সেই সবজি কিনতে ৬০০ টাকা লাগছে। এক বছর আগে যে আলু ২০ টাকায় পাওয়া যেতো, সেই আলু কিনতে ৫০ থেকে ৬০ টাকা খরচ করতে হচ্ছে। যে চাল ৪০ টাকায় পাওয়া যেতো, তা কিনতে ৬০ টাকা খরচ করতে হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকার বাসিন্দা খন্দকার হাসান শাহরিয়ার বলেন, ‘বাজারে জিনিসপত্রের দাম শুনলে সবারই রাগ ওঠে। কিন্তু চুপচাপ থাকতে হয়। এভাবে চলতে থাকলে সীমিত আয়ের মানুষ অচিরেই পুষ্টিহীনতায় ভুগতে শুরু করবে।’

তিনি বলেন, ‘নিত্যপণ্যের দাম এভাবে বেড়ে যাওয়ায় আয় কমে যাওয়া মানুষের বেশি সমস্যা হচ্ছে। বাজার থেকে ফেরার পথে অনেককেই বাজারসংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বকাঝকা করতেও শোনা যায়।’  দরিদ্র মানুষের দৈনিক আয়ের বড় অংশ খরচ হয় চাল কিনতে। সরু ও মাঝারি চালের মূল ভোক্তা মধ্য ও নিম্ন-মধ্যবিত্তরা। সবাই চাপে রয়েছেন। 

বাজারের তথ্য বলছে, দরিদ্র মানুষের নিত্যদিনের বাজারের তালিকায় থাকে চাল, ডাল, ভোজ্যতেল, পেঁয়াজ ও আলু। এখন  সব কটির দামই বাড়তি। মোটা চালের দাম এখন গত তিন বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। দুই মাসে অনেকটা লাফিয়ে বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম। পেঁয়াজের দাম ১০০ টাকা। লাগামহীনভাবে বেড়েই চলেছে আলুর দাম, যা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। টিসিবি’র তথ্য বলছে, গত বছরের তুলনায় এবার আলুর দাম বেড়েছে ১১১ শতাংশের বেশি। শুধু আলুর দামই যে বেড়েছে তা নয়, বাড়ছে অন্যান্য জিনিসপত্রের দামও। সবজিসহ বেশকিছু পণ্যের দাম বেড়েছে স্বাভাবিকের চেয়ে দুই থেকে তিনগুণ। জিনিসপত্রের বাড়তি এই দাম নিয়ে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে অনেকেই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন। একজন লিখেছেন—‘কাঁচা বাজারে গিয়েছিলাম, মনে হচ্ছিল স্বর্ণ বিক্রি হচ্ছে খোলা বাজারে।’ অপূর্ব রানা লিখেছেন,  ‘কাঁচা বাজারের কী একটা অবস্থা!!! কীভাবে চলছে নিম্ন ও মধ্যবিত্তের দিনকাল? কারও কোনও ভাবনা নেই, কারও কোনও দায়িত্ব নেই। আহারে সোনার বাংলা।’ এছাড়া অনেকেই আলু নিয়ে, নিত্যপণ্যের বাজারের মূল্য নিয়ে বিদ্রূপ করে পোস্ট দিচ্ছেন। 

বাজার থেকে জিনিসপত্র কিনে বাসায় ফিরে আসার পর অনেকের সংসারে অশান্তি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাজধানীর মানিক নগর এলাকার বাসিন্দা গোলাম কিবরিয়া। তিনি বলেন, ‘দুই হাজার  টাকা নিয়ে এত কম সদায় আনার কারণে বউ অবিশ্বাস করতে শুরু করেছে। জিনিসপত্রের দাম বাড়ার কারণে বাজারে মুখের হাসি বন্ধ হয়, বাসায় এসেও হাসি আসে না।’ একই এলাকার বাসিন্দা আবদুর রশিদ বলেন, ‘যা আয় হয়, তার সবই চলে যায় নিত্যপণ্যের বাজার করতেই।’ জিনিসপত্র কেনার পর হাতে আর কোনও টাকা থাকে না বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘এত খারাপ সময় এর আগে কখনও আসেনি তার।’ 

বাজারের তথ্য বলছে, শিম,  টমেটোসহ সাত ধরনের সবজির দাম শতকের ঘরের ওপরে রয়েছে। বাজারে ভালো মানের বেগুন কিনতে লাগছে ১৪০ টাকা কেজি, উচ্ছে বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকা কেজি। কাঁচামরিচের কেজি ৩০০ টাকার ওপরে। এ প্রসঙ্গে বেসরকারি চাকরিজীবী আশিকুর রহমান ইসলাম বলেন, ‘বৃষ্টির অজুহাতে সবজির দাম বেশি। চালের দাম বেশি কারণ ছাড়াই।’ তার আয়ের চেয়েও ব্যয় বেশি করতে হচ্ছে বলে জানান। 

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের ধাক্কায় দোকানপাট, শিল্প-কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চাকরি হারিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। অনেক প্রতিষ্ঠান কর্মী ছাঁটাই না করলেও কমিয়েছে কর্মীদের বেতন। ফলে করোনার আগে মানুষের যে আয় ছিল, করোনার প্রভাবে সেই আয় কমে গেছে। আয় কমে যাওয়ায় শহর ছেড়ে গ্রামমুখী মানুষের স্রোতও দেখা গেছে গত কয়েক মাসে। 

বেসরকারি দুটি গবেষণা সংস্থা পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টার (পিপিআরসি) ও ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (বিআইজিডি) সাম্প্রতিক এক জরিপে দেখা গেছে, করোনার প্রভাবে দেশের ৭০ শতাংশ দরিদ্র মানুষের আয় কমে গেছে। সরকারি সংস্থা বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) জরিপে দেখা গেছে, করোনাকালে দেশে নতুন করে এক কোটি ৬৩ লাখ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে গেছে। 

বিআইডিএসের তথ্য বলছে, একজন দরিদ্র মানুষ যদি ১০০ টাকা আয় করে, তার মধ্যে ৬০ টাকাই খরচ হয় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পেছনে। এ প্রসঙ্গে কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ক্যাবের সভাপতি গোলাম রহমান বলেন, ‘বৃষ্টি, বন্যা ও ফেরি বন্ধ হওয়াসহ নানা কারণে সবজির দাম অস্বাভাবিক। দাম অস্বাভাবিক হওয়াতে সবার নাভিশ্বাস উঠেছে।’ তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে যখন সবার আয় কমেছে, তখন সব জিনিসের দাম বেড়েছে। এটা মরার ওপর খাঁড়ার ঘা। অতি মুনাফাখোরদের নিয়ন্ত্রণ করার কোনও ব্যবস্থা না থাকার কারণে সীমিত আয়ের মানুষ কষ্টের মধ্য দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন।’

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বাতিল হতে যাচ্ছে ‘কাফালা বা কপিল প্রথা’: ২০২১ সালের প্রথম ৬ মাসেই বিলুপ্তি কার্যকর হবে

বাতিল হতে যাচ্ছে ‘কাফালা বা কপিল প্রথা’: ২০২১ সালের প্রথম ৬ মাসেই বিলুপ্তি কার্যকর হবে

মোরগের আক্রমণে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

মোরগের আক্রমণে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

সুনামগঞ্জে সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের আঘাতে একই পরিবারের ৮ জন আহত

সুনামগঞ্জে সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের আঘাতে একই পরিবারের ৮ জন আহত

নাস্তিকরা উগ্রবাদী হয়ে উঠছে- শাহরিয়ার কবির

নাস্তিকরা উগ্রবাদী হয়ে উঠছে- শাহরিয়ার কবির

বাংলা সিনেমার ফিল্ম স্টাইলে দেহরক্ষী নিয়ে চলতেন ইরফান !

বাংলা সিনেমার ফিল্ম স্টাইলে দেহরক্ষী নিয়ে চলতেন ইরফান !

ভয়ে ফরাসি নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহবান ফ্রান্সের

ভয়ে ফরাসি নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহবান ফ্রান্সের

জয়পুরহাটে এমপি'র নামফলক ভাংচুরের অভিযোগ

জয়পুরহাটে এমপি'র নামফলক ভাংচুরের অভিযোগ

মালয়েশিয়ায় চাকরী হারানো শ্রমিকদের জন্য অনলাইনে চাকরীর আবেদন চালু করা হয়েছে

মালয়েশিয়ায় চাকরী হারানো শ্রমিকদের জন্য অনলাইনে চাকরীর আবেদন চালু করা হয়েছে

রংপুরে ছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণে জড়িত এএসআই রাহেনুল

রংপুরে ছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণে জড়িত এএসআই রাহেনুল

লালন সাইঁজির তিরোধান দিবস উপলক্ষে রাজিব শাহ'র কণ্ঠে আসছে "ধন্য আশেকি জনা"

লালন সাইঁজির তিরোধান দিবস উপলক্ষে রাজিব শাহ'র কণ্ঠে আসছে "ধন্য আশেকি জনা"

ঢাবির লাইব্রেরির পেছনে পাওয়া গেল নবজাতকের লাশ

ঢাবির লাইব্রেরির পেছনে পাওয়া গেল নবজাতকের লাশ

পটুয়াখালীতে দুই সমকামী নারী গ্রেফতার

পটুয়াখালীতে দুই সমকামী নারী গ্রেফতার

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ

সিনহা হত্যা: আবারো ৫ দিনের রিমান্ডে কনস্টেবল রুবেল শর্মা

সিনহা হত্যা: আবারো ৫ দিনের রিমান্ডে কনস্টেবল রুবেল শর্মা

ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদের রিমান্ড শুনানি আজ

ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদের রিমান্ড শুনানি আজ

সর্বশেষ

ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বাবার হাতে মা খুন: কী হবে মৌমিতা-মহিমার?

ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বাবার হাতে মা খুন: কী হবে মৌমিতা-মহিমার?

মিঠাপুকুরে আমন ধানক্ষেতে কারেন্ট পোকার উপদ্রপে কৃষক জনগোষ্ঠির মাথায় হাত

মিঠাপুকুরে আমন ধানক্ষেতে কারেন্ট পোকার উপদ্রপে কৃষক জনগোষ্ঠির মাথায় হাত

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি আবারো বাড়ছে, বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি আবারো বাড়ছে, বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত

শিশু গৃহকর্মীর মরদেহ রেখে পালানোর সময় স্বামী-স্ত্রী আটক

শিশু গৃহকর্মীর মরদেহ রেখে পালানোর সময় স্বামী-স্ত্রী আটক

নয় দিনে ৯ লাখ ৭৭ হাজার টাকা, নূরের গণচাঁদার হিসাব প্রকাশ

নয় দিনে ৯ লাখ ৭৭ হাজার টাকা, নূরের গণচাঁদার হিসাব প্রকাশ

ভুয়া চিকিৎসক ও অনিয়ম রোধে র‍্যাব এর অভিযান

ভুয়া চিকিৎসক ও অনিয়ম রোধে র‍্যাব এর অভিযান

নতুন করে আর সৌমিত্রর অবস্থার অবনতি হয়নি , ডায়ালিসিস শুরু হয়েছে

নতুন করে আর সৌমিত্রর অবস্থার অবনতি হয়নি , ডায়ালিসিস শুরু হয়েছে

গফরগাঁও পৌরসভাকে ডিজিটালভাবে নিমার্ণ করার ঘোষণা

গফরগাঁও পৌরসভাকে ডিজিটালভাবে নিমার্ণ করার ঘোষণা

মিরপুর সেনানিবাসস্থ ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ (এনডিসি) লাইব্রেরীতে বঙ্গবন্ধু কর্ণার স্থাপন

মিরপুর সেনানিবাসস্থ ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ (এনডিসি) লাইব্রেরীতে বঙ্গবন্ধু কর্ণার স্থাপন

লোভে পড়ে স্ত্রী সহবাসের লাইভ দেখিয়ে লাখ টাকা আয়! স্ত্রীর মামলায় যুবক কারাগারে

লোভে পড়ে স্ত্রী সহবাসের লাইভ দেখিয়ে লাখ টাকা আয়! স্ত্রীর মামলায় যুবক কারাগারে

ইসলামী ব্যাংক ছাতক শাখায় ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

ইসলামী ব্যাংক ছাতক শাখায় ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

রং নম্বরে পরিচয়, পরকীয়ার টানে ঘরে ছেড়ে মাইক্রোবাসে ধর্ষণের স্বীকার গৃহবধূ

রং নম্বরে পরিচয়, পরকীয়ার টানে ঘরে ছেড়ে মাইক্রোবাসে ধর্ষণের স্বীকার গৃহবধূ

আজমিরীগঞ্জে দরিদ্রের প্রণোদনা বিতরণে কমিশনারের স্বজন প্রীতির অভিযোগ

আজমিরীগঞ্জে দরিদ্রের প্রণোদনা বিতরণে কমিশনারের স্বজন প্রীতির অভিযোগ

বালিয়াডাঙ্গীতে বসতভিটার জমি নিয়ে সংঘর্ষ, আহত-৩

বালিয়াডাঙ্গীতে বসতভিটার জমি নিয়ে সংঘর্ষ, আহত-৩

শার্লি হেবদোর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করলেন এরদোয়ান

শার্লি হেবদোর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করলেন এরদোয়ান