Feedback

গল্পসল্প

মায়ানের অফিস থেকে ফেরার সময় হোয়েছে

মায়ানের অফিস থেকে ফেরার সময় হোয়েছে
October 15
11:02am
2020
REZA E RABBI
chowgacha, jessore:
Eye News BD App PlayStore

মায়ানের অফিস থেকে ফেরার সময় হয়েছিলো,আজ নিজের কাছে আমার অনেক খুশি লাগছে আমি মায়ানকে আজ একটা খুশির খবর দিবো! নিজের কাছে একটু প্রশ্ন করছি!মায়ান আসলে কিভাবে আমি ওকে আমাদের খুশির খবরটা দিবো?এক দিকে ভাবছি আজ এতো দেরি কেনো করছে? অন্যদিন তোহ্ এতো দেরি করে নাহ্!

আমি মায়ানের জন্য একটা কফি বানাতে বসলাম!কফি বানানো শেষ হতে মায়ান আসলো!আমি কফির কাপটা ওর হাতে দিয়ে ওর জামা খুলতে শুরু করলাম!আর ওকে বললাম আজ আমি তোমাকে একটা খুশির খবর দিবো গো!

মায়ান আমার দিকে তাকিয়ে বললো!তাই নাকি মিস ফারিহা?আমি ওর জামাটা সোফার উপর রেখে ওর দিকে দুষ্টু নজরে তাকিয়ে বললাম এই শোন নাহ্!মায়ান কফির কাপটা টেবিলের উপর রেখে এক হাত দিয়ে আমার চুলগুলো কানে গুজে দিয়ে বললো! বলো তোমার কী খুশির খবর?

আমি ওর দিকে তাকিয়ে বললাম আমি মা হতে চলেছি আর তুমি বাবা!বলেই মাথাটা নিচু করে ফেললাম কেমন লজ্জা লাগছিলো নিজের কাছে!মাথা নিচু করে ভাবছি কতো খুশি হয়তো হয়েছে মায়ান!আমার মাথাটা উচু করে বললো আমাদের এখন কি বেবি হওয়ানোটা ঠিক হবে? বিয়ে করলাম বেশিদিন হলো নাহ্ আর এর ভিতরে বেবি?

আমি মায়ানের চোখের দিকে তাকিয়ে ছিলাম!নিজের কাছে খারাপ লাগছিলো মায়ান কোথায় একটু খুশি হবে তা নাহ্ কখন কি হওয়াতে হবে তাই নিয়ে ভাবছে?আমি বললাম কেনো এখন হওয়ানোটা ঠিক হবে নাহ্ কেনো বলো?একটু রাগ নিয়ে বললাম!

--তুমি এখন বেবি নিবে নাহ্!আমি চাই নাহ্ তুমি এখন বেবি নাও!এখন বেবি নিলে তোমার শরীরের চামড়ায় ভাজ পড়বে তোমার এই সুন্দর মায়াবি চেহারা আর যৌবন থাকবে নাহ্!আমি তোমাকে দেখে আর উত্তেজিত হবো নাহ্!তুমি বরং বেবি এখন নিয়ো নাহ্! (মায়ান)

আমি ওর কথা গুলো শুনতেই কেমন জানি আকাশ থেকে পড়লাম!নিজের কাছে অনেক খারাপ লাগছিলো ওর কথা গুলো শুনতেই আমার চোখ থেকে কখন যে পানি পড়তে শুরু করলো সেটাই ঠিক বুঝতে পারিনি!আমি মায়ানের দিকে তাকিয়ে বললাম!

--আমি আমার বেবি নষ্ট করতে পারবো নাহ্!আমাদের বেবি আসবে দুনিয়াতে!আমি এখনই বেবি নিবো তুমি যাই বলো নাহ্ কেনো!(ফারিহা)

--তুমি যদি এখন বেবি নাও তাহলে আমি তোমাকে ডিভোর্স দিবো!আমি চাইনা আমার কলিগ বা পারস্পারিক সবার কাছে আমি হাসির পাত্র হয়! সবাই আমাকে বলবে বিয়ে নাই করতে বেবি আমি এমনটা চাইবো নাহ্!তুমি যদি এব্রোশন নাহ্ করো আমি সিরিয়াসলি তোমাকে ডিভোর্স দিবো!!মাইন্ড ইট!!😠(মায়ান)

কথা গুলো শুনতেই আমার মনে হচ্ছিলো আমি আর দুনিয়াতে থাকবো নাহ্,আমার বেঁচে থাকার কোন অধিকার নেই। একটা মানুষ তার বউয়ের প্রতি এমন আওয়াজ করে কিভাবে এই কথা গুলো বলতে পারলো!একটুও মুখে বাধলো নাহ্ কথা গুলো বলতে!আর বেবিটা তোহ্ আর আমার একার নাহ্ দুজনেরই তোহ্ একটা অংশ!সবাই কি তাহলে বিয়ের পর বেবি আসলে প্রথমবারে নষ্ট করে দেই?নিজের কাছে প্রশ্ন করতে করতে খাটের উপর ধপাস করে বসে পড়লাম!বড্ড একাকিত্ব লাগছিলো আমার!

মায়ানের কথা গুলো শোনার পর আমি ওকে একটা কথাও বলতে পারিনি!আমি ওর দিকে নিরবে তাকিয়ে কাঁদছিলাম!আমার সামনে থেকে সরে গেলো ফ্রেস হয়ে খাবার টেবিলে গেলো!আমি আঁচল দিয়ে চোখটা মুছে খেতে বসলাম মায়ান আমার সাথে একটুও কথা বললো নাহ্ বরং আমার প্রতি তার রাগটাই যেন প্রকাশ করছিলো চোখ মুখ দিয়ে!!

আমি বালিসে মাথা দিয়ে ফুপিয়ে কাঁদছিলাম!আমি এখন কি করবো?এটা কেমন পরীক্ষায় ফেললো আমার?সন্তান নাহ্ স্বামি?এই কথাটা মনে মনে ভাবতেই আমার চোখ দিয়ে পানি বেয়ে আসছিলো অঝোরে!!

বিয়ের আগে আমাদের তিন বছরের প্রেম ছিলো!মায়ান তখন আমাকে বলতো আমাদের বেবি হবে আমরা কতোই নাহ্ মজা করবো বেবিটাকে নিয়ে!আমরা কতো ভালোবাসা দিয়ে ভরিয়ে তুলবো!আর আজ ময়ান আমাকে যেটা শুনালো তার জন্য আমি আসলেই প্রস্তুত নাহ্!কোন সিদ্ধান্তই নিতে পারছি নাহ্ আমি!কি করবো আমি কোথায় যাবো?

রাতে শুয়ে শুয়ে ভাবলাম আমি আমার বেবি কারো কথাতে নষ্ট করবো নাহ্!এতে আল্লাহ্ নারাজ হবেন!আমার পরকালে আরো কষ্ট সহ্য করতে হবে!আমি আমার বেবি নষ্ট করবো নাহ্!এটাই আমি ফাইনাল করলাম!

সকালে অফিস যাওয়ার আগে মায়ানের জন্য নাস্তা তৈরি করলাম,প্রতিদিনের মতো আজও আমি ওর টাইটা পরিয়ে দিতে গেলাম,আমি ওর টায়ে হাত দিতেই আমাকে বললো আমি নিজে পরে নিতে পারবো!কারো প্রয়োজন নেই কথাটা বলেই আমার হাতে অনেক গুলো টাকা ধরিয়ে দিয়ে বললো আজই তুমি এব্রোশন করাবে আমি তাই জানি!আর তা নাহ্ হলে আসলেই অনেক খারাপ হবে বলে দিলাম!কথাটা বলেই বেরিয়ে গেলো!

একটা মেয়ের কাছে তার মা বাবার পরে সবচেয়ে দামি হলো একজন স্বামি,কারন প্রতিটা মেয়ের বিয়ের পরে স্বামীর কাছে থাকে তার সব রকম চাওয়া পাওয়া আর একটু ভালোবাসা!কিন্তু ভালোবাসার মানুষটা যদি খারাপ আচরন করে তাহলে দুনিয়ায় সবকিছুই কেমন উলোট পালোট মনে হয়!

আমি রুমে শুয়ে শুয়ে অনেক্ষন ফুপিয়ে কাঁদছিলাম কিছুই ভালো লাগছে নাহ্।তাহলে কি মায়ান আমাকে ডিভোর্স দিয়ে দিবে আমাকে কি তাহলে একা করে দিবে? আমি প্রতিজ্ঞা করে ফেলেছি আমি আমার বেবি কখনই নষ্ট করবো নাহ্!!

সেদিন রাতে আমাকে মায়ান খুব জোরে একটা থাপ্পর মারলো,আর আমাকে বললো কালই এই বাড়ি থেকে চলে যাবি,আর কখনো আমার সামনে আসবি নাহ্!

মনে মনে ভাবছিলাম মানুষটা এতো পাথর কিভাবে হলো?আজ অবদি আমাকে কখনো আদর করে ডাকা ছাড়া চড়াভাবে কথা বলেনি আর সে কিনা আজ আমাকে মারলো?

আমি সকালে উঠে ল্যাগেজটা গুছিয়ে নিলাম!আমার দিকে মায়ান তাকিয়ে বললো বিকালে তিভোর্স লেটার পাঠিয়ে দিবো পারলে সাইন করে নিস!আর কখনো যেন আমার সামনে আসবি নাহ্!আমি তোর মুখ দেখতে চাইনা!কথাগুলো শুনেই আমি কেঁদে ফেললাম,এই কান্নাটা হয়তো আজ আর কেউ দেখবে নাহ্ কারো মনে হয়তো আঘাত করবে নাহ্ একটুও,হয়তো ছেলেদের মনটাই এমন পাশান হয়ে যায় রেগে গেলে,কিন্তু এটা কি রাগ?এটা হয়তো আমার কাছে রাগ মনে হয়না!!

আমি ল্যাগেজটা গুছিয়ে নিয়ে নিজ শহরে চলে গেলাম মায়ের বাড়ি!আমার বাবা মা এখনো বেঁচে আছেন!আমি মাকে জড়িয়ে ধরে কান্না করতে করতে সব বললাম!মা আমাকে জড়িয়ে ধরে কখন যে কেঁদে ফেললো সেটাই আমি জানি নাহ্!আমার দুচোখ মায়ের আঁচল দিয়ে মুছে দিয়ে বললো চিন্তা করিস নাহ্ মা!আল্লাহ্ আছেন তিনি চাইলে অনেক কিছুই করতে পারেন!বাবা আমার মুখে হাত দিতে আমি একটু ব্যাথা পেলাম বাবা বুঝতে পারছে যে মায়ান আমাকে থাপ্পর মারছে!!

মায়ের বাড়িতে বরাবরই আমার ভালো সময় কাটে,আমার পেটে বেবিটা আজ অনেক বড় হয়ে উঠছে!মাঝে মাঝে রাতে আমি ওর সাথে গল্প করি আর ঘুমিয়ে পড়ি!কবে দুনিয়াতে আসবে, আর কবে আমাকে ও আম্মু বলে ডাকবে,আমি ওর সাথে হাসবো আর খেলা করবো!!

সেদিন সন্ধায় আমার পেটে ব্যাথা উঠেছিলো,মা আমার কাছে আসতেই আমি ভেঙে পড়েছিলাম,ভাবছিলাম এই সময়টাতে মায়ান আমার কাছে থাকলে আমার হাতটা ধরে মাথায় একটু হাত বুলিয়ে দিতো আমাকে হসপিটালাইজড করতো,প্রচন্ড ব্যাথা করছিলো!

অনেক কষ্টে বাবা আর মা আমাকে হসপিটাল নিয়ে আসলো,অামার জ্ঞান ফিরতেই আমি আমার বেবির কান্নাটা শুনতে পেলাম,মা আমার হাতটা ধরে বললো তুই আপাতত অনেক ভালো আছিস আর তোর মেয়ে সন্তান হয়েছে,বলেই মা আমাকে জড়িয়ে ধরলো আর বেবিটাকে আমার কোলে তুলে ধরলো!আমি ওর কপালে চুমু দিলাম!!

আমি আমার মেয়েটার নাম রাখলাম রাইসা!আমি অনেক আগে এই নামটা চয়েজ করেছিলাম!আমার অনেক স্বপ্ন আমার রাইসাকে নিয়ে!আমি কখনো ওকে কষ্ট দিতে চাইনা!রাইসা সবসময় নানা নানুর সাথে সময় কাটায় এখন!আমি ওকে অনেক যত্নে রাখি!

রাইসার বয়স এখন আট বছর পার হলো আমি শুয়ে ছিলাম,আমার পাশে এসে বললো আম্মু আমার আব্বুকে তুমি তোহ্ এখনো কোন দিন দেখালে নাহ্?তুমি যে বলো তোর আব্বু বাইরের দেশে থাকেন?বাড়ি আসলে কথা বলিয়ে দিবো দেখা করিয়ে দিবো!জানো আম্মু স্কুলের প্রেজেন্টেশনে সবাই বাবার সাথে আসে কতো সাজ গোজ করে জানো আমারও খুব ইচ্ছে করে!

আমি রাইসার কথায় একটুও জবাব দিতে পারলাম নাহ্!বাম দিকে মাথা ঘুরি ফেললাম অজান্তেই আমার চোখে পানি চলে আসলো!আমি আমার শাড়ির আঁচল দিয়ে চোখের পানিটা মুছে বললাম শোন মা তোর বাবা সময় হলে তোর সামনে আসবে!তুই ভালো করে পড়াশোনা কর,আমি তোকে ডক্টর বানাবো অনেক বড় ডক্টর হবি তুই, দেখবি অনেকে তোর কাছে সেবা নিতে আসবে মা!তুই তোর বাবার চিন্তা মোটেও করবি নাহ্ মা!

ডিভোর্সের পর আমি আর কোনদিন মায়ানের সাথে কথা বলিনি, আর দেখাও হয়নি কখনো। হয়তো ওই নিষ্ঠুর মানুষটা আরেকটা মেয়েকে বিয়ে করেছে। হয়তো এখন অন্য কারো মাঝে ভালোবাসা, যৌবন ফিরে পেয়েছে!তাই হয়তো আর আমাকে মনে রাখেনি,আর রাখবেই বা কেনো তার কাছ থেকে তোহ্ আমি অনেক দুরে সরে চলে এসেছি!

এসব কথা মনে উঠলেই আমার চোখের কোনে অশ্রু চলে আসে,অনেক ভালোবাসতাম ওই নিষ্ঠুর মানুষটাকে,কেনো এমন করলো? প্রতিটা মেয়ের কাছে তার স্বামী সংসার অনেক বড় কিছু এটা বুঝেও এমনটা করতে পারলো?

এভাবে আরো দশ বছর পার হলো,আমার মেয়ে রাইসা এখন একজন পুর্নাঙ্গ ও প্রতিষ্ঠিত ডক্টর!সবাই তার থেকে সেবা নেয়!আমার মেয়েটা দেখতে একদমই আমার মতো হয়েছে!ওকে দেখে আমার গর্ব হয়, আমি চাইনা আমার মতো যেন ওর জীবনটা হয়!রাইসা এখনো ওর বাবার কথা জানতে চাই,আমি এখন অনেকটাই আমার জীবনের শেষ ধাপটা পার করছি!মাথার চুলগুলো পাকতে শুরু করেছে!মাঝে মাঝে রাইসাও রাতে আমাকে নিয়ে মজা করে আম্মু তুমি বুড়ি হয়ে গেছো হিহি!😁

সেদিন আমি রাইসার সাথে হসপিটাল গিয়েছিলাম আমার পায়ের একটু চোট লাগার কারনে!হসপিটালে যেটা দেখেছিলাম সেটা দেখার জন্য আমি আসলেই মানসিকভাবে মোটেও প্রস্তুুত ছিলাম নাহ্!একজন হার্টের পেসেন্ট প্রচন্ডভাবে অসুস্থ হয়ে আসছিলো!রাইসে কেবিনে নিয়ে যেতেই লোকটা আচমকা রাইসাকে দেখে অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে গেলো!

আর রাইসার হাতটা ধরে খোচা খোচা দাড়ি,মাথার চুলগুলো কালার করা,রাইসাকে বললো ফারিহা..? তুমি এখনো দেখতে আগের মতো?আর ডক্টর কেমন করে হলে তুমি?রাইসা কথা গুলো শুনে অবাক হয়ে আমার হাতটা ধরে সামনে নিয়ে গেলো,লোকটা আর কেউই ছিলো নাহ্ লোকটা ছিলো মায়ান! আমি ওর সামনে যেতেই ও উঠে বসলো, আমার আর রাইসার দিকে তাকিয়ে বললো ফারিহা তুমি?আর তোমার মতো দেখতে এই মেয়েটা তাহলে কে?

--ওটা আর কেউ নই ওটা আমারই মেয়ে রাইসা!এখন আমার মেয়েই তোমার ডক্টর আর তুমি তারই একজন পেসেন্ট!(ফারিহা)

আমি কথা গুলো অনেকটাই গর্বের সাথেই বললাম!আমাকে মনে হলো এই মায়ান লোকটাই এই পৃথীবির একজন নিষ্ঠুরতম লোক,এই লোকটার সামনে দাড়াতেই আমার ঘৃনা হচ্ছে!!

রাইসা আমার দিকে তাকিয়ে নরম কন্ঠে বললো আম্মু তাহলে কি এই লোকটা আমার বাবা?আমি রাইসার দিকে তাকিয়ে বললাম হ্যা এই নিষ্ঠুর লোকটাই তোর বাবা!!রাইসা আমার দিকে তাকিয়ে বললো হুম বাবা খুব নিষ্ঠুর এতো দিনে আমার সামনে আসে নাই!

মায়ান আমার আর রাইসার দিকে তাকিয়ে কেঁদে ফেললো!বেড থেকে উঠে দাড়িয়ে আমাকে বললো তুমি আমাকে একটিবার মাফ করে দেও ফারিহা!আমি কখনোই ভাবিনি!দ্যাখো আমি আজও অন্য কাউকে বিয়ে করিনি!ওই দিন ডিভোর্স দেওয়ার পর আমি তোমাকে অনেক খুজেছি পাইনি! আর তোমাকে এখনো অনেক ভালোবাসি!

মায়ানের উপর আমার প্রচন্ড রাগ হচ্ছিলো!এক সেকেন্ডও আমি আর দাড়াতে পারলাম নাহ্!আমি রাইসার হাতটা ধরে বাইরের খোলা রাস্তা দিয়ে হাটছিলাম,রাইসা আমার হাতটা ধরে অনেকটা নরম কন্ঠে বললো, আম্মু তুমি অনেক চাপা এতো কষ্ট তুমি কিভাবে পাথর চাপা দিয়ে রাখছো মনের ভিতর! আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি!অনেক ভালোবাসি আম্মু!!

রাইসাকে জড়িয়ে ধরে আমি অনেক জোরে কান্না করে ফেলেছিলাম,সেদিন ও জেনে গেলো যে ওর বাবা আমাকে ডিভোর্স দিয়েছিলো ওর পৃথীবিতে আসা নিয়েই!মায়ান দুর থেকে তাকিয়ে ছিলো রাইসাকে একটিবার বুকে নেওয়ার জন্য কিন্তু ততটুকু সময় আমি রাইসাকে দেইনি,কারন আমি চাইনা কোন পাপীর ছোয়া আমার মেয়ের গায়ে লাগুক, কারন সেদিনকার পর থেকে আমি অনেক কেদেছি ওই কান্না গুলোই আজ আমার মনে বালুচর তৈরি করেছে! হ্যা এটাই মেয়েদের রাগ,এটাই মেয়েদের অভীমান!এটাই আজকের সমাজের প্রতিষ্ঠিত মেয়েরা এখানেই সমাপ্তি করলাম!

     

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বাতিল হতে যাচ্ছে ‘কাফালা বা কপিল প্রথা’: ২০২১ সালের প্রথম ৬ মাসেই বিলুপ্তি কার্যকর হবে

বাতিল হতে যাচ্ছে ‘কাফালা বা কপিল প্রথা’: ২০২১ সালের প্রথম ৬ মাসেই বিলুপ্তি কার্যকর হবে

ফ্রান্সে আরও ৩৫টি ওয়েবসাইট হ্যাক করল Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force

ফ্রান্সে আরও ৩৫টি ওয়েবসাইট হ্যাক করল Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force

কিশোরগঞ্জে জুয়ার আসরে র‌্যাবের হানা, আটক ১০

কিশোরগঞ্জে জুয়ার আসরে র‌্যাবের হানা, আটক ১০

মাত্রাতিরিক্ত ক্রেডিট ফির যাঁতাকলে পিষ্ট হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা"

মাত্রাতিরিক্ত ক্রেডিট ফির যাঁতাকলে পিষ্ট হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা"

ধর্ষণের কারন ও উৎস্য মোবাইলে পর্ণো ছবি ও যৌন উত্তেজক ঔষধ

ধর্ষণের কারন ও উৎস্য মোবাইলে পর্ণো ছবি ও যৌন উত্তেজক ঔষধ

‘হু আর ইউ ' অ্যাম আই এ ক্রিমিনাল? র‍্যাবকে মদ্যপ হাজীপুত্র

‘হু আর ইউ ' অ্যাম আই এ ক্রিমিনাল? র‍্যাবকে মদ্যপ হাজীপুত্র

সুদের টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় স্ত্রীকে ঋণদাতার হাতে তুলে দিলেন স্বামী

সুদের টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় স্ত্রীকে ঋণদাতার হাতে তুলে দিলেন স্বামী

মোরগের আক্রমণে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

মোরগের আক্রমণে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

বাংলা সিনেমার ফিল্ম স্টাইলে দেহরক্ষী নিয়ে চলতেন ইরফান !

বাংলা সিনেমার ফিল্ম স্টাইলে দেহরক্ষী নিয়ে চলতেন ইরফান !

ভয়ে ফরাসি নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহবান ফ্রান্সের

ভয়ে ফরাসি নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহবান ফ্রান্সের

দুই বিদেশি কুকুর ও ১০ দেহরক্ষী নিয়ে এলাকায় চক্কর দিতেন ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইরফান!

দুই বিদেশি কুকুর ও ১০ দেহরক্ষী নিয়ে এলাকায় চক্কর দিতেন ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইরফান!

আবারো দুঃসংবাদ দিলো আবহওয়া অধিদপ্তর

আবারো দুঃসংবাদ দিলো আবহওয়া অধিদপ্তর

পাকুন্দিয়া পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনে ঋন জালিয়াতি ও দুর্নীতি

পাকুন্দিয়া পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনে ঋন জালিয়াতি ও দুর্নীতি

Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force এর একত্র আক্রমণ এ ফ্রান্সের আরো ৩০ ওয়েব সাইট দখল

Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force এর একত্র আক্রমণ এ ফ্রান্সের আরো ৩০ ওয়েব সাইট দখল

রিফাত হত্যা: অপ্রাপ্তবয়স্ক ৬ আসামিকে আদালতে হাজির করেছে পুলিশ

রিফাত হত্যা: অপ্রাপ্তবয়স্ক ৬ আসামিকে আদালতে হাজির করেছে পুলিশ

সর্বশেষ

বালিয়াডাঙ্গীতে বসতভিটার জমি নিয়ে সংঘর্ষ, আহত-৩

বালিয়াডাঙ্গীতে বসতভিটার জমি নিয়ে সংঘর্ষ, আহত-৩

শার্লি হেবদোর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করলেন এরদোয়ান

শার্লি হেবদোর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করলেন এরদোয়ান

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ

সুনামগঞ্জে সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের আঘাতে একই পরিবারের ৮ জন আহত

সুনামগঞ্জে সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের আঘাতে একই পরিবারের ৮ জন আহত

ধর্ষণ এমনকি খুনও হতে পারতামঃ অভিনেত্রী আমিশা

ধর্ষণ এমনকি খুনও হতে পারতামঃ অভিনেত্রী আমিশা

জৈন্তাপুর সীমান্তে চোরাচালানীদের প্রতি কঠোর বার্তা মন্ত্রী ইমরানের

জৈন্তাপুর সীমান্তে চোরাচালানীদের প্রতি কঠোর বার্তা মন্ত্রী ইমরানের

তাজিনা আখতার রাকা স্মরণে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

তাজিনা আখতার রাকা স্মরণে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

তোমাদের স্বামীদের কাজে ফেরাবঃ ট্রাম্প

তোমাদের স্বামীদের কাজে ফেরাবঃ ট্রাম্প

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মুখে হাসি ফোটালো উত্তরবঙ্গ ফেসবুক গ্রুপ

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মুখে হাসি ফোটালো উত্তরবঙ্গ ফেসবুক গ্রুপ

ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে চলছিল হাজী সেলিমের সেই গাড়ি

ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে চলছিল হাজী সেলিমের সেই গাড়ি

নওয়াপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা :১২দিন পর মারা গেলেন গৃহবধূ শাওন

নওয়াপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা :১২দিন পর মারা গেলেন গৃহবধূ শাওন

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ, ধর্ষক আটক

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ, ধর্ষক আটক

শহীদ রাসেলের স্বপ্ন বাস্তবায়নে বৈষম্যহীন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে : সৈয়দ আমিরুজ্জামান

শহীদ রাসেলের স্বপ্ন বাস্তবায়নে বৈষম্যহীন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে : সৈয়দ আমিরুজ্জামান

এবার নিজ কর্মীকে দামি গাড়ি উপহার দিলেন অভিনেত্রী জ্যাকুলিন

এবার নিজ কর্মীকে দামি গাড়ি উপহার দিলেন অভিনেত্রী জ্যাকুলিন

শিক্ষাবৃত্তি পেলো কালীগঞ্জের ৫৫ হতদরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থী

শিক্ষাবৃত্তি পেলো কালীগঞ্জের ৫৫ হতদরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থী