Feedback

খোলা কলাম, ভিন্নস্বাদের খবর

১০৮ কক্ষের দোতলা মাটির বাড়ি নওগাঁয় তিন যুগ ধরে ঠায় দাঁড়িয়ে আছে

১০৮ কক্ষের দোতলা মাটির বাড়ি নওগাঁয় তিন যুগ ধরে ঠায় দাঁড়িয়ে আছে
October 11
12:17am
2020
Md. Nayeem Uddin Khan
Khilgaon, Dhaka:
Eye News BD App PlayStore

গ্রাম বাংলার নানা ঐতিহ্যগুলোর মধ্যে মাটির বাড়ি অন্যতম। বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এখনো দেখা যায় এই বাড়িগুলো। এটি যে শুধু ঐতিহ্য বহন করছে তা কিন্তু নয়, শীত, গ্রীষ্ম বর্ষা সবসময়ই বসবাসের জন্য আরামদায়ক।

একসময় গ্রামের বিত্তশালীরা অনেক টাকা-পয়সা ব্যয় করে মাটির বাড়ি তৈরি করতেন। তবে ইট, বালি ও সিমেন্টের আধুনিকতায় মাটির বাড়ি এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে।   

বাংলাদেশ ছাড়া মাটির বাড়ি আর কোথাও তেমন দেখাই যায় না। যদিও জার্মানির ভাইমার শহরে দেখা যায় খড়ের তৈরি বাড়ি। খড়ের সঙ্গে তারা মাটি মিশিয়ে এই বাড়িগুলো তৈরি করে। তবে আমাদের দেশে তৈরি মাটির বাড়িগুলোতে অন্য কিছু ব্যবহার হয় না। এতেও যুগ যুগ ধরে স্থায়ী হয় এই বাড়িগুলো। নওগাঁ, বগুড়া ছাড়াও উত্তরাঞ্চলের অনেক জায়গায় এই বাড়িগুলো বেশ বিখ্যাত। নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার চেরাগপুর ইউনিয়নের আলিপুর গ্রামে রয়েছে ৩৩ বছর আগে বানানো ১০৮ কক্ষের একটি মাটির বাড়ি। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকরা এটি দেখতে আসেন। 

১৯৮৬ সালে তিন বিঘা জমির ওপর এই মাটির বাড়ি তৈরি হয়। এর দৈর্ঘ্য ৩০০ ফুট ও প্রস্থ ১০০ ফুট। এটি দেখতে অনেকটা রাজপ্রাসাদের মতো। ৩৩ বছর আগে মাটির দোতলা বাড়িটি নির্মাণ করেন দুই সহোদর সমশের আলী মণ্ডল ও তাহের আলী মণ্ডল। এই দুই সহোদর ছিলেন শৌখিন মানুষ। তারাই প্রথম ১০৮ কক্ষের মাটির বাড়িটি তৈরি করেছিলেন। আজ তাদের কেউই বেঁচে নেই। তবে এই বাড়িটি এখনো তাদের স্মৃতি ধরে আছে। বাড়িটিতে ৯৬টি বড় ও ১২টি ছোট কক্ষ রয়েছে।   

৩৩ বছর আগে মাটির দোতলা এই বাড়িটি নির্মাণ করতে নয় মাস থেকে এক বছর সময় লেগেছিল। সেই সময় এর পেছনে কাজ করেছিল শতাধিক শ্রমিক। বাড়িসহ আশেপাশে তাদের মোট ২১ বিঘা জমি রয়েছে। বাড়িটি তৈরির জন্য একটি বিশাল পুকুর খনন করতে হয়েছিল। পুকুরের মাটি ব্যবহার করা হয়েছিল বাড়ি তৈরিতে। মাটির বাড়ি বানাতে মাটি, খড় ও পানি ভিজিয়ে কাদায় পরিণত করতে হয়।

তারপর ২০ থেকে ৩০ ইঞ্চি চওড়া দেয়াল দিতে হয়। এই দেয়াল বানানো সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। কারণ একসঙ্গে বেশি উঁচু করে মাটির দেয়াল তৈরি করা যায় না। প্রতিবার এক থেকে দেড় ফুট উঁচু করে দেয়াল বানাতে হয়। কয়েকদিন পর শুকিয়ে গেলে এর ওপর একই উচ্চতার দেয়াল গড়ে তোলা যায়।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বিদেশ গমনে ইচ্ছুক সবাইকে নিতে হবে ই-পাসপোর্টঃ বন্ধ হচ্ছে এমআরপি (MRP) কার্যক্রম

বিদেশ গমনে ইচ্ছুক সবাইকে নিতে হবে ই-পাসপোর্টঃ বন্ধ হচ্ছে এমআরপি (MRP) কার্যক্রম

শিক্ষামন্ত্রী বরাবর খোলা চিঠি

শিক্ষামন্ত্রী বরাবর খোলা চিঠি

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: ভিডিও ভাইরাল সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: ভিডিও ভাইরাল সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

ফ্রান্সে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

ফ্রান্সে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

প্রেমিকার লাশ ফেলে পালানোর সময় প্রেমিক আটক

প্রেমিকার লাশ ফেলে পালানোর সময় প্রেমিক আটক

ফ্রান্সে নবীকে নিয়ে কটুক্তি, যা বললেন আজহারী

ফ্রান্সে নবীকে নিয়ে কটুক্তি, যা বললেন আজহারী

হযরত মোহাম্মদ (সা.) অবমাননা: ফ্রান্সের ওয়েবসাইট হ্যাক করল বাংলাদেশি হ্যাকারর

হযরত মোহাম্মদ (সা.) অবমাননা: ফ্রান্সের ওয়েবসাইট হ্যাক করল বাংলাদেশি হ্যাকারর

কিশোরগঞ্জে অগ্নিকান্ডে দগ্ধ ৭ জন বার্ন ইউনিটে ভর্তি

কিশোরগঞ্জে অগ্নিকান্ডে দগ্ধ ৭ জন বার্ন ইউনিটে ভর্তি

মিটার ১০হাজার, খুঁটি ৩০হাজার: টাকা না দেওয়ায় গৃহবধূ লাঞ্ছিত

মিটার ১০হাজার, খুঁটি ৩০হাজার: টাকা না দেওয়ায় গৃহবধূ লাঞ্ছিত

ম্যাখোঁর মানসিক চিকিৎসা দরকার, পাল্টা জবাব ফ্রান্সের

ম্যাখোঁর মানসিক চিকিৎসা দরকার, পাল্টা জবাব ফ্রান্সের

৩ বছরে স্বর্ণের হরফে পবিত্র কুরআন লিখলেন ৩৩ বছরের এই নারী!

৩ বছরে স্বর্ণের হরফে পবিত্র কুরআন লিখলেন ৩৩ বছরের এই নারী!

বুকে গুলি করব, পিঠ দিয়ে বের হবে: এসআই আকবরের হুমকি

বুকে গুলি করব, পিঠ দিয়ে বের হবে: এসআই আকবরের হুমকি

এসআই আকবর কে পালাতে সহায়তাকারী কে কে  আজ জানা যাবে

এসআই আকবর কে পালাতে সহায়তাকারী কে কে আজ জানা যাবে

জেনে নিন, দালাল ছাড়াই পাসপোর্ট করার সহজ উপায় !

জেনে নিন, দালাল ছাড়াই পাসপোর্ট করার সহজ উপায় !

'আসসালামু আলাইকুম-আল্লাহ হাফেজ' ভুল ব্যাখ্যার অভিযোগে ঢাবির অধ্যাপক জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা

'আসসালামু আলাইকুম-আল্লাহ হাফেজ' ভুল ব্যাখ্যার অভিযোগে ঢাবির অধ্যাপক জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা

সর্বশেষ

নয় বছরের ছেলেশিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে

নয় বছরের ছেলেশিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে

চলচ্চিত্র নির্মাতা কবি টোকন ঠাকুর গ্রেপ্তার

চলচ্চিত্র নির্মাতা কবি টোকন ঠাকুর গ্রেপ্তার

বিদ্যালয় ভবনে অবৈধ টাওয়ার

বিদ্যালয় ভবনে অবৈধ টাওয়ার

মা হচ্ছেন কারিনা

মা হচ্ছেন কারিনা

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন করোনায় আক্রান্ত

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন করোনায় আক্রান্ত

র‍্যাবের হেফাজতে এমপির পুত্র এরফান সেলিম

র‍্যাবের হেফাজতে এমপির পুত্র এরফান সেলিম

র‌্যাব ও ডিবি পুলিশের অভিযান শুরু হাজী সেলিমের পৈতৃক বাড়িতে

র‌্যাব ও ডিবি পুলিশের অভিযান শুরু হাজী সেলিমের পৈতৃক বাড়িতে

চার লেনে উন্নীত হচ্ছে কুষ্টিয়া মহাসড়ক, কমবে যানজট

চার লেনে উন্নীত হচ্ছে কুষ্টিয়া মহাসড়ক, কমবে যানজট

নাটোরের লালপুরে বাস উল্টে খাদে, মা-মেয়ে নিহত

নাটোরের লালপুরে বাস উল্টে খাদে, মা-মেয়ে নিহত

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু  ১৫ এবং  শনাক্ত ১৪৩৬

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ১৫ এবং শনাক্ত ১৪৩৬

জয়পুরহাটে প্রতিমা ভাংচুর,  এক যুবক আটক

জয়পুরহাটে প্রতিমা ভাংচুর, এক যুবক আটক

নাগেশ্বরীর প্রধান সড়কের বেহাল দশা

নাগেশ্বরীর প্রধান সড়কের বেহাল দশা

সরিষাবাড়ীতে চা চাষের জমি নির্বাচন ও সম্ভাব্যতার লক্ষে মতবিনিময় সভা

সরিষাবাড়ীতে চা চাষের জমি নির্বাচন ও সম্ভাব্যতার লক্ষে মতবিনিময় সভা

সমাবেশেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ

সমাবেশেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ

নীরব প্রতিবাদে ‘মুহাম্মাদকে ভালোবাসি’ লেখা মাস্ক পরে সংসদে কসোভোর এমপি

নীরব প্রতিবাদে ‘মুহাম্মাদকে ভালোবাসি’ লেখা মাস্ক পরে সংসদে কসোভোর এমপি