Feedback

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা, খোলা কলাম

খুব সহজলভ্য বারোমাসি ফল কলার উপকারিতা এবং ক্ষতিকর দিক

খুব সহজলভ্য বারোমাসি ফল কলার উপকারিতা এবং ক্ষতিকর দিক
October 07
11:09pm
2020
Md. Nayeem Uddin Khan
Khilgaon, Dhaka:
Eye News BD App PlayStore

কলা ফল হিসেবে বহুল সমাদৃত এবং বারোমাসি সহজলভ্য একটি ফল। পৃথিবীর ১০টি দেশে এটি উৎপাদিত হয় এবং এটি বিশ্বের চতুর্থ অর্থকরী ফসল। অন্য যে কোনো ফলের তুলনায় খাদ্যতালিকায় কলা সবচেয়ে বেশি গ্রহন্যোগ্যতা পায়। কলা আমাদের জন্য কতটা উপকারী এবং এর পুষ্টিগুণের ব্যাপকতার পাশাপাশি কোন-কোন শারীরিক অবস্থায় কলা খাওয়া যাবে না, তা আমাদের জানা প্রয়োজন। 

কলায় বিভিন্ন পুষ্টি উপাদানের সুষম উপস্থিতির কারণে একে ‘সুপার ফ্রুট’ বলা হয়। একটি মাঝারি আকৃতির (১২৬ গ্রাম) কলা থেকে ১১০ ক্যালরি পাওয়া যায়। এতে ৩০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ১ গ্রাম প্রোটিন থাকে, তবে কলায় কোনো ফ্যাট থাকে না। কলায় উচ্চ মাত্রায় পটাশিয়াম আছে, যা দিয়ে দৈনিক চাহিদার প্রায় ২৩% পূরণ করা সম্ভব। এছাড়াও ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি, ক্যালশিয়াম, ফসফরাস, ম্যাগনেশিয়াম, জিংক ইত্যাদি খনিজ উপাদানের আধার বলা যায় কলাকে। কলায় আছে পর্যাপ্ত পরিমাণে খাদ্য-আঁশ, যা দৈনিক চাহিদার ১৬% পরিমাণ যোগান দেয়। এত সব খাদ্য উপাদান কলায় আছে বলে একে প্রাকৃতিক মাল্টিভিটামিনও বলা হয়।   

পুষ্টি উপাদান কলা (১২৬ গ্রাম)পরিমাণপটাশিয়াম৪৫০ মিলি গ্রামআয়রন বা লৌহ০.৩ মিলি গ্রামম্যাগনেশিয়াম৩৪.০ মিলি গ্রামম্যাঙ্গানিজ০.৩ মিলি গ্রামভিটামিন বি-৬ ০.৫ মিলি গ্রামভিটামিন-সি৯.০ মিলি গ্রামরিবোপ্লাভিন০.১ মিলি গ্রামনায়াসিন০.৮ মিলি গ্রামভিটামিন-এ৮১.০ আই.ইউফোলেট২৫.০ মাইক্রো গ্রামআঁশ৩.০ গ্রাম  কলা যেভাবে আমাদের অনেক ধরনের উপকারে আসে:  কলা পটাশিয়ামের অন্যতম একটি উৎস। আর এই পটাশিয়াম আমাদের দেহের অম্ল-ক্ষার ভারসাম্য-রক্ষা এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এছাড়াও অনিয়মিত হৃদস্পন্দন এর ঘাটতি পূরণ করতে গবেষকরা প্রতিদিন কলা খাওয়ার পরামর্শ দেন। 

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে, দেহে পটাশিয়াম-এর লেভেল কমে গেলে হৃদস্পন্দনের হার অস্বাভাবিক হয়ে যায়, যা স্ট্রোক-এর ঝুঁকি সৃষ্টি করে। কলায় রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে পটাশিয়াম। The Author নামক একটি প্রসিদ্ধ Neurology journal-এ গবেষকরা উল্লেখ করেছেন যে, প্রতিদিন একটি ক’রে কলা খেলে তা স্ট্রোক-এর ঝুঁকি কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। 

The Journal of Nutritional Biochemistry’র একটি গবেষণায় উঠে এসেছে কলার আলসার বিরোধী ভূমিকা রয়েছে। কলা গ্যাস্ট্রিক জ্যুস-এর অ্যাসিডিটি নিষ্ক্রিয় করার ক্ষেত্রে দারুণ কাজ করে। এটি পাকস্থলীর অভ্যন্তরীণ দেয়ালে একটি আবরণ সৃষ্টি করে আলসার প্রতিরোধে বড় একটি ভূমিকা রাখে। কলায় যে খাদ্য-আঁশ আছে, তা শরীর থেকে ফ্যাট কমিয়ে ওজন কমাতে সাহায্য করে। কলায় কোলেস্টেরল নেই বললেই চলে। তাছাড়া কলা রক্তের কোলেস্টেরল-এর মাত্রা স্বাভাবিক রাখতে বেশ সহায়ক। কলায় রয়েছে ট্রিপ্টোফ্যান নামক উপাদান, যা দেহে গিয়ে সেরাটোনিন নামক হরমোনে পরিবর্তিত হয়। এই হরমোন মানুষকে হাসি-খুশি ও প্রাণবন্ত রাখতে সহায়তা করে। ফলে, অতিরিক্ত চাপ কমে যায় ও আরামদায়ক ঘুমে সহায়ক হয়। তাই এখন থেকে মন খারাপ হলে ঝটপট একটি কলা খেয়ে নিতে পারেন, আপনার মন ভালো হয়ে যাবে।  American Journal of Epidemiology’র গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, প্রতিদিন নিয়ম করে একটি কলা খেলে ০-২ বছর বয়সের বাচ্চাদের লিউকেমিয়া নামক ব্লাড ক্যান্সার নিরাময়ে সহায়ক হয়। 

European Respiratory Journal প্রায় ২,৬৪০ জন প্রাথমিক স্কুলগামী বাচ্চাদের ওপর একটি গবেষণা ক’রে দেখা গিয়েছে যে, প্রতিদিন একটি ক’রে কলা খেলে বাচ্চাদের অ্যাজমায় আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা হ্রাস পায়।  কলার গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স ৫১। অর্থাৎ কলায় যে সামান্য পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট আছে, তা রক্তের শর্করা মন্থরভাবে বৃদ্ধি করে। আর তাই ডায়াবেটিক রোগীরা অনেকটাই নিশ্চিন্তে দৈনিক কলা খেতে পারেন, যেখানে অন্যান্য ফল খাওয়ার ক্ষেত্রে তাদের বাধা থাকে। 

কলায় আছে সেলুলোজ, হেমি-সেলুলোজ, আলফা-গ্লুকানের মতো খাদ্য-আঁশ, যা অন্ত্রের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে। এছাড়া এটি কোষ্ঠকাঠিন্য ও ডায়রিয়া উভয়টির নিরাময়ে ভূমিকা রাখে। কলায় বিদ্যমান উপাদান প্রচুর পরিমাণে পানি শোষণ করে অন্ত্রের স্বাভাবিক ক্রিয়া বজায় রাখে। কলায় রয়েছে fructo-oligo-saccharide নামক উপাদান, যা অন্ত্রে বিদ্যমান অক্ষতিকারক ব্যাক্টেরিয়ার পুষ্টির যোগান দেয়। এই ব্যাক্টেরিয়া অন্ত্রে ভিটামিন সংশ্লেষ করে এবং খাদ্য পরিপাকে সহায়তা করে। 

Cornell University’র একটি গবেষণায় দেখা যায় যে, কলায় উপস্থিত ফেনোলিক ফাইটোকেমিক্যাল স্নায়ুকোষের বিষাক্ততা দূর করতে ভূমিকা রাখে। এছাড়াও প্রতিদিন নিয়মিত কলা খেলে তা স্নায়ুকোষের চাপ কমাতে সাহায্য করে, যা আলঝেইমার-এর মতো স্নায়বিক রোগের বিপরীতে কাজ করে।  বাচ্চারা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ঠিকমতো খেতে চায় না। ফলে ওদের দেহ গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানের ঘাটতি দেখা দেয়। এক্ষেত্রে কলা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। কেননা কলায় রয়েছে বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ উপাদান। তাছাড়া কলা সহজে হজমযোগ্য হওয়ায় বাচ্চাদের ক্ষেত্রে তা কোনো ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করে না।  অনেক সময়েই দেখা যায় যে, ঘুমের মধ্যে অথবা খেলতে গেলে পায়ের মাংসপেশিতে খিঁচ ধরে বা রগে টান ধরে। এই সমস্যা সমাধানে কলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কেননা কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম। পটাশিয়ামের অভাবে সাধারণত এই সমস্যার উদ্ভব ঘটে। 

কলায় আছে পর্যাপ্ত পরিমাণে আয়রন। আর এই আয়রন দেহে হিমোগ্লোবিন তৈরিতে ভূমিকা রাখে এবং রক্তস্বল্পতা দূর করতে ভূমিকা রাখে।  কলায় আছে সুক্রোজ, ফ্রুক্টোজ ও গ্লুকোজের মতো প্রাকৃতিক শর্করা এবং খাদ্য-আঁশ। এই উপাদানগুলো দেহে শক্তির যোগান দেয়।  কলায় ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স আছে, তা আমরা আগেই জেনেছি। এই বি-কমপ্লেক্স-এর একটি উপাদান হচ্ছে ভিটামিন-বি৬। কলায় এই ভিটামিন-বি৬ রয়েছে দৈনিক চাহিদার প্রায় ২৫%। এটি দেহে অ্যান্টিবডি ও লোহিত রক্তকণিকা তৈরি করে, যা দেহকে যে কোনো ধরনের সংক্রমণ হতে সুরক্ষা দেয়।    কলার উপকারিতা যেমন রয়েছে ঠিক তেমনি কিছু ক্ষতিকর দিকও রয়েছে।   

কিছু মানুষের কলায় অ্যালার্জি থাকে। তারা কলা খেলে গলা চুলকাতে পারে, হাঁচি হতে পারে আবার চামড়ায় গোটা-গোটা হতে পারে, যাকে আমবাত (ঐরাবং) বলে।  এছাড়া কিডনিতে যাদের সমস্যা থাকে, তাদের কিডনি রক্ত থেকে অতিরিক্ত পটাশিয়াম দূর করতে পারে না। এজন্য তাদের শরীরে পটাশিয়ামের মাত্রা কম রাখতে হয়। কলা যেহেতু উচ্চ পটাশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার, তাই কিডনি সমস্যায় আক্রান্ত রোগীদের কলা না খাওয়াই ভালো  কলায় বেশ ভালো পরিমাণে আঁশ থাকে, যা অনেকের দেহে অ্যাসিডিটি তৈরি করে। এর ফলে কলা খেলে অনেকের পেট ফাঁপা, পেট কামড়ানো অনুভূতি হয় এবং এই অ্যাসিডিটির কারণেই মাইগ্রেনের রোগীদের মধ্যে অনেকেরই গলা ব্যথা শুরু হয়।   তবুও কলা একটি স্বাস্থ্যকর খাবার, যা পুষ্টিগুণে ভরা। কিছু বিশেষ অবস্থা ছাড়া কলা শরীরের জন্য অনেক উপকারী। তাই সচেতন ব্যক্তি মাত্রই প্রতিদিন অন্তত একটি ক’রে কলা খান।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

আন্তর্জাতিক শান্তি পদক পেলেন শাপলা দেবী ত্রিপুরা

আন্তর্জাতিক শান্তি পদক পেলেন শাপলা দেবী ত্রিপুরা

প্রথমবারের মতো ' গুচ্ছ পদ্ধতিতে ' যাচ্ছে হাবিপ্রবি: উপাচার্য

প্রথমবারের মতো ' গুচ্ছ পদ্ধতিতে ' যাচ্ছে হাবিপ্রবি: উপাচার্য

নারী কেলেঙ্কারি ঘটনায় বিতর্কিত সাংসদ নাজিম উদ্দিন আহমেদ

নারী কেলেঙ্কারি ঘটনায় বিতর্কিত সাংসদ নাজিম উদ্দিন আহমেদ

নতুন ভিসা প্রাপ্ত অভিবাসী শ্রমিকদের সৌদি আরব জেতে নতুন করে বিপত্তি

নতুন ভিসা প্রাপ্ত অভিবাসী শ্রমিকদের সৌদি আরব জেতে নতুন করে বিপত্তি

ভিপি নূরের উথ্যান বিএনপির ঘুম হারাম করে দিচ্ছে

ভিপি নূরের উথ্যান বিএনপির ঘুম হারাম করে দিচ্ছে

জয়পুরহাটে চার শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

জয়পুরহাটে চার শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

দশ লক্ষ টাকা পুরস্কার কুখ্যাত আকবর ভুঁইয়া ধরিয়ে দিলে!

দশ লক্ষ টাকা পুরস্কার কুখ্যাত আকবর ভুঁইয়া ধরিয়ে দিলে!

জামালপুর মেলান্দহে ছয়দিন পর অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার

জামালপুর মেলান্দহে ছয়দিন পর অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার

জয়পুরহাটে ২২ জন মাদকসেবী ও ৭ জুয়াড়িকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

জয়পুরহাটে ২২ জন মাদকসেবী ও ৭ জুয়াড়িকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

তাড়াইল মডেল উপজেলা হিসেবে রুপান্তিত

তাড়াইল মডেল উপজেলা হিসেবে রুপান্তিত

কুষ্টিয়ায় ৫ বছরের এক শিশুর লাশ পরিত্যাক্ত বাথরুম থেকে উদ্ধার

কুষ্টিয়ায় ৫ বছরের এক শিশুর লাশ পরিত্যাক্ত বাথরুম থেকে উদ্ধার

২১ বছরেও আলোর মুখ দেখেনি হাবিপ্রবির অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন

২১ বছরেও আলোর মুখ দেখেনি হাবিপ্রবির অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন

কাতারে প্রবাসীদের জন্য দূতাবাসের সেবার মান উন্নয়নে নতুন উদ্যোগ

কাতারে প্রবাসীদের জন্য দূতাবাসের সেবার মান উন্নয়নে নতুন উদ্যোগ

রায়হান হত্যা;আদালতে জবানবন্দি দিলেন  ৩ পুলিশ

রায়হান হত্যা;আদালতে জবানবন্দি দিলেন ৩ পুলিশ

হাতিরঝিলের সেই অজ্ঞাত লাশের রহস্য উদঘাটন হল যেভাবে

হাতিরঝিলের সেই অজ্ঞাত লাশের রহস্য উদঘাটন হল যেভাবে

সর্বশেষ

ক্ষণিক জীবন-বয়োজ্যেষ্ঠ কবি ডা. আব্দুল গফুর (বি,এ) অব.শিক্ষক

ক্ষণিক জীবন-বয়োজ্যেষ্ঠ কবি ডা. আব্দুল গফুর (বি,এ) অব.শিক্ষক

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে কলেজছাত্রীকে রাতভর গণধর্ষণ

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে কলেজছাত্রীকে রাতভর গণধর্ষণ

প্রতিবছরই এই পাখিরা এভারেস্ট জয় করে

প্রতিবছরই এই পাখিরা এভারেস্ট জয় করে

সাংসদ নিক্সন চৌধুরী ৮ সপ্তাহের আগাম জামিন পেলেন

সাংসদ নিক্সন চৌধুরী ৮ সপ্তাহের আগাম জামিন পেলেন

মৌলভীবাজার পরিষদ  উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মিছবাহুর রহমান বিজয়ী

মৌলভীবাজার পরিষদ উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মিছবাহুর রহমান বিজয়ী

আমতলীতে কোচিং সেন্টারের পরীক্ষা বন্ধ! পালিয়ে গেলেন শিক্ষক

আমতলীতে কোচিং সেন্টারের পরীক্ষা বন্ধ! পালিয়ে গেলেন শিক্ষক

দরিদ্র জীবন

দরিদ্র জীবন

২৮ অক্টোবর থেকে ইতালি ফ্লাইট, রেজিস্ট্রেশন ওয়েবসাইটে

২৮ অক্টোবর থেকে ইতালি ফ্লাইট, রেজিস্ট্রেশন ওয়েবসাইটে

পৌরসভার সার্ভেয়ার মান্নানের অবহেলায় নারী শ্রমিকের মৃত্যু

পৌরসভার সার্ভেয়ার মান্নানের অবহেলায় নারী শ্রমিকের মৃত্যু

এবার ফেঁসে যাচ্ছেন আজাহারী ও ভিপি নুর

এবার ফেঁসে যাচ্ছেন আজাহারী ও ভিপি নুর

টাঙ্গাইলে স্বাস্থ্য বিধি মানায় মানুষের আগ্রহ নেই, তদারকি জনসচেতনতায়

টাঙ্গাইলে স্বাস্থ্য বিধি মানায় মানুষের আগ্রহ নেই, তদারকি জনসচেতনতায়

সহপাঠীকে ধর্ষণচেষ্টা-ভিডিও ধারণ, স্কুলছাত্র গ্রেপ্তার ১

সহপাঠীকে ধর্ষণচেষ্টা-ভিডিও ধারণ, স্কুলছাত্র গ্রেপ্তার ১

ভারতের অর্ধেক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার শংকা

ভারতের অর্ধেক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার শংকা

পূজা উপলক্ষ্যে মুক্তি পাচ্ছে সচঁল পাগল সুজন এর কথায় রাজকুমার জয়ের মৌলিক গান "নিশি চন্দ্র"

পূজা উপলক্ষ্যে মুক্তি পাচ্ছে সচঁল পাগল সুজন এর কথায় রাজকুমার জয়ের মৌলিক গান "নিশি চন্দ্র"

'সম্রাটকে বলির পাঠা বানানো হয়ছে, তাকে বাঁচতে দিন, বেঁচে থাকলে বিচার হবে'

'সম্রাটকে বলির পাঠা বানানো হয়ছে, তাকে বাঁচতে দিন, বেঁচে থাকলে বিচার হবে'