Feedback

জাতীয়, ধর্ম ও শিক্ষা, জেলার খবর

বাবা সিকিউরিটি গার্ড, মা কাজের বুয়া ছে'লে এখন জজ

বাবা সিকিউরিটি গার্ড, মা কাজের বুয়া ছে'লে এখন জজ
February 03
02:33pm
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
সংসার চালাতে কিছুদিন আগেও রাজধানীর উত্তরায় একটি বাড়িতে সিকিউরিটি গার্ডের চাকরি করছিলেন মোশারফ হোসেন। আর তার স্ত্রী' মাহফুজা খাতুন এলাকার অনেকের বাড়িতে করেছেন বুয়ার কাজ। বাবা-মায়ের ক'ষ্টে উপার্জিত সেই টাকায় পড়ালেখা করে তাদের বড় সন্তান গো'লাম রসুল সুইট এখন সহকারী জজ।১২তম বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসে ৬৭তম হয়েছেন তিনি। ১৯ জানুয়ারি ঘোষিত গেজেটে তালিকা প্রকাশ করা হয়।আগামী মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সহকারী জজ হিসেবে পিরোজপুর জে'লায় যোগদান করবেন তিনি।সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজে'লার পারুলিয়া ইউনিয়নের কোম'রপুর গ্রামের বাবা মোশারফ হোসেন ও মা মাহফুজা খাতুনের বড় ছে'লে গো'লাম রসুল সুইট। ছোটবেলা থেকেই মেধাবী সুইট। পরিবারের অভাবও দমাতে পারেনি তাকে। ঠিকমতো খেতে না পারা সেই গো'লাম রসুল সুইট এখন জজ। তিনি বলেন, শাখরা কোম'রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে ভোম'রা ইউনিয়ন দাখিল মাদরাসা থেকে দাখিল পাস করেছি। এরপর দেবহাটা উপজে'লার সখিপুর খানবাহাদুর আহসানউল্লাহ্ কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হই। আমাদের পরিবারে তখন খুব অভাব। বাবাও ছিলেন উদাসিন। কোনো রকমে খেয়ে না খেয়ে দিন চলতো আমাদের। সুইট আরও বলেন, কলেজ শেষ করার পর লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম। এমন সময় সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমীতে একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করি। সেখান থেকে এক ভাই আমাকে পরাম'র্শ দেয় ঢাকায় গিয়ে কোচিং করার। কিন্তু পরিবারের সেই অবস্থা ছিল না। মায়ের একটি গরু ছিল। সেই গরুটি ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে ২০১০ সালের ১৭ মে ঢাকা যাই। এরপর একটি কোচিং সেন্টারে ভর্তি হই।তিনি বলেন, কিছুদিন পর মায়ের গরু বিক্রি করা সেই টাকাও ফুরিয়ে যায়। বাড়িতেও টাকা চাওয়া বা পরিবারের দেয়ার মতো কোনো অবস্থা ছিল না। কা'ন্নাকাটি করেছিলাম কোচিং পরিচালকের সামনে। এরপর তিনি আমাকে সেখানে বিনামূল্যে কোচিং ও থাকার ব্যবস্থা করেন। এরই মধ্যে সঙ্গে থাকা সহপাঠীদের বন্ধু হয়ে যাই আমি। বন্ধুরাও আমা'র পারিবারিক অবস্থা জানার পর আমাকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করতে থাকে। বন্ধুদের সহযোগিতার কথাগুলো ভুলে যাওয়ার নয়। মা ও বাবা মাঝে মধ্যে এক হাজার বা দুই হাজার করে টাকা দিত। গত এক মাস আগে বাবাকে বাড়িতে নিয়ে এসেছি। সিকিউরিটি গার্ডের চাকরিটা ছেড়ে দিয়েছে। মাকেও এক বছর আগে অন্যের বাড়িতে কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছি। ২০১০-১১ শিক্ষা বর্ষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার গল্প জানিয়ে গো'লাম রসুল সুইট বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য পরীক্ষা দেই। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে ভর্তির সুযোগ হয়। বন্ধু ও শুভাকঙ্খীদের পরাম'র্শে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়েই ভর্তি হই। ভর্তির পর টিউশুনির পোস্টার ছাপিয়ে অবিভাবকদের কাছে বিতরণ শুরু করি। এভাবে ৫টি টিউশুনি জোগাড় হয়ে যায়। এভাবেই চলেছে আমা'র শিক্ষাজীবন। আত্মীয়-স্বজনরা কখনও খোঁজ নেয়নি তবে আমা'র বন্ধুরা আমা'র পাশে থেকেছে সব সময়। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্সের ফলাফলে বি-ইউনিটে মেধা তালিকায় হয়েছি ১১তম। ১২তম বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসে হয়েছি ৬৭তম। ১০০ জন উত্তীর্ণ হয়েছিল। এর মধ্যে নিয়োগ হয়েছে ৯৭ জনের। তিনজন পু'লিশ ভেরিফিকেশনে বাদ পড়েছেন। আগামী মঙ্গলবার পিরোজপুর জে'লার সহকারী জজ হিসেবে যোগদান করবো জানিয়ে তিনি বলেন, আমা'র বড় লোক হওয়ার কোনো ইচ্ছে নেই। সব সময় ন্যায়ের পথে থেকে মানুষদের জন্য কাজ করে যাব। কখনও অনিয়ম বা দু'র্নীতির সঙ্গে জ'ড়িত হবো না। যখন চাকরিজীবন শেষ করবো তখন যেন অ'বৈধ উপায়ে উপার্জনের একটি টাকাও আমা'র ব্যাংক একাউন্টে না থাকে। আমা'র কাছে সকল মানুষ ন্যায় বিচার পাবে। অসহায় মানুষরা কখনই ন্যায় বিচার পাওয়া থেকে বঞ্চিত হবে না। দুস্থ পরিবারের সমস্যাগুলো আমি বুঝি, জানিয়ে গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে গো'লাম রসুল সুইট বলেন, টাকা পয়সা লেখাপড়ার পথে কোনো বাধা নয়। ইচ্ছাশক্তি থাকলে সে এগিয়ে যাবেই, পথ বেরিয়ে যাবেই।সুইটের বাবা মোশারফ হোসেন জানান, রাজধানীর উত্তরার ৯ নম্বর সেক্টরে ৮ বছর সিকিউরিটি গার্ডের কাজ করেছি। আম'রা স্বামী-স্ত্রী' দুইজনই থাকতাম। স্ত্রী' অন্যের বাড়িতে কাজ করতো। এক মাস আগে ছে'লে চাকরিটা ছেড়ে দিতে বলেছে। তাই চাকরি ছেড়ে বাড়িতে চলে এসেছি। ছে'লে বলেছে, আমি এখন চাকরি পেয়েছি আপনার কাজ করতে হবে না। ভাবছি, এলাকায় ছোট একটি দোকান দিয়ে ব্যবসা করবো। অন্যের বাড়িতে কাজের বুয়া থাকাকালীন সময়ে সেসব কথা মনে করে কেঁদে উঠেন মা মাহফুজা খাতুন। আবেগাপ্লুত হয়ে তিনি বলেন, মানুষের বাড়িতে কাজ করতাম। স্বামী আর আমা'র টাকা দিয়েই চলতো সংসার আর দুই ছে'লের খরচ। আম'রা যেটুকু পেরেছি সাধ্যমতো চেষ্টা করেছি ছে'লের লেখাপড়া করানোর জন্য। দোয়া করেছি। আল্লাহ্ আমাদের ডাক শুনেছেন। দোয়া কবুল করেছেন। আমি অনেক খুশি। এখন সকল মানুষের কাছে আমা'র ছে'লের জন্য দোয়া চাই।গো'লাম রসুল সুইটের বাল্যবন্ধু জাবিরুল ইস'লাম বলেন, ছোটবেলা থেকেই শান্ত ও মেধাবী ছিল রসুল। আম'রা এক সঙ্গেই লেখাপড়া করতাম। কখনও কারও সঙ্গে সে জো'র গলায় কথা বলেছে, আমাদের জানা নেই।দেবহাটার পারুলিয়ার ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল আলীম বলেন, খুব অভাবি ছিল তাদের পরিবার। জমি জায়গা কিছুই নেই। মা-বাবা খুব ক'ষ্ট করে ছে'লেটাকে লেখাপড়া শিখিয়েছে। ছে'লেটাও খুব ভালো। জজের চাকরি পেয়েছে। এতে এলাকার সকল মানুষ খুশি হয়েছে।

All News Report

Add Rating:

0

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

শিক্ষক সংকট : করোনা পরবর্তি সময়ে হাবিপ্রবিতে তীব্র সেশনজটের আশঙ্কা

শিক্ষক সংকট : করোনা পরবর্তি সময়ে হাবিপ্রবিতে তীব্র সেশনজটের আশঙ্কা

বীমা শিল্পে নারী জাগরণের পথিকৃৎ রাবেয়া বেগম রুনা

বীমা শিল্পে নারী জাগরণের পথিকৃৎ রাবেয়া বেগম রুনা

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: ভিডিও ভাইরাল সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: ভিডিও ভাইরাল সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

জেনে নিন, দালাল ছাড়াই পাসপোর্ট করার সহজ উপায় !

জেনে নিন, দালাল ছাড়াই পাসপোর্ট করার সহজ উপায় !

হাজী সেলিমের ছেলে ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ইরফান সেলিমের এক বছরের কারাদণ্ড

হাজী সেলিমের ছেলে ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ইরফান সেলিমের এক বছরের কারাদণ্ড

যে কারণে হাজী সেলিমের ছেলে কে এক বছরের কারাদন্ড

যে কারণে হাজী সেলিমের ছেলে কে এক বছরের কারাদন্ড

ফ্রান্সের আরও ওয়েবসাইট৩৫টি হ্যাক করল Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force ।

ফ্রান্সের আরও ওয়েবসাইট৩৫টি হ্যাক করল Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force ।

ঠাকুরগাঁওয়ে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে ৩৩ দিন ধরে কলেজ ছাত্রীর অনশন

ঠাকুরগাঁওয়ে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে ৩৩ দিন ধরে কলেজ ছাত্রীর অনশন

এসআই আকবর কে পালাতে সহায়তাকারী কে কে  আজ জানা যাবে

এসআই আকবর কে পালাতে সহায়তাকারী কে কে আজ জানা যাবে

১লা নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক শ্রেণির সিলেবাস বাস্তবায়ন কার্যক্রম

১লা নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক শ্রেণির সিলেবাস বাস্তবায়ন কার্যক্রম

মিন্নির মতো এই ১৪ জনেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন

মিন্নির মতো এই ১৪ জনেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান রিফাতের বোন

কাঠালিয়ায় নদীর পাড় থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার

কাঠালিয়ায় নদীর পাড় থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার

সমাবেশেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ

সমাবেশেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ

এসএসসি পরীক্ষার হবে না হবে জানুন

এসএসসি পরীক্ষার হবে না হবে জানুন

স্কুল-কলেজেও সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে!

স্কুল-কলেজেও সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে!

সর্বশেষ

সপরিবারে করোনামুক্ত হলেন ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র অতিকুল

সপরিবারে করোনামুক্ত হলেন ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র অতিকুল

মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিটা শুধু মাত্র জনগণের: নজরুল ইসলাম

মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিটা শুধু মাত্র জনগণের: নজরুল ইসলাম

ইরফান সেলিমের নামে অস্ত্রসহ অন্যান্য মামলা হবে: র‌্যাব ডিজি

ইরফান সেলিমের নামে অস্ত্রসহ অন্যান্য মামলা হবে: র‌্যাব ডিজি

আইনমন্ত্রীর ‘অনেক কাছের লোক’ ভারতীয় নতুন হাইকমিশনার

আইনমন্ত্রীর ‘অনেক কাছের লোক’ ভারতীয় নতুন হাইকমিশনার

১ ঘণ্টার উপজেলা চেয়ারম্যান স্কুলছাত্রী পঞ্চগড়ে

১ ঘণ্টার উপজেলা চেয়ারম্যান স্কুলছাত্রী পঞ্চগড়ে

Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force এর একত্র আক্রমণ এ ফ্রান্সের আরো ৩০ ওয়েব সাইট দখল

Royal Battler BD এবং Bangladesh Civilian Force এর একত্র আক্রমণ এ ফ্রান্সের আরো ৩০ ওয়েব সাইট দখল

আলুর দামে সবচেয়ে বেশি পার্থক্য হয়েছে খুচরা ও পাইকারি বাজারে

আলুর দামে সবচেয়ে বেশি পার্থক্য হয়েছে খুচরা ও পাইকারি বাজারে

নেত্রকোনার সদরে ট্রাকচাপায় অটোরিকশাচালকসহ নিহত ২

নেত্রকোনার সদরে ট্রাকচাপায় অটোরিকশাচালকসহ নিহত ২

ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা!

ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা!

চুনারুঘাটে ৩জন শিকারীকে  ৩ মাসের কারাদন্ড প্রদান

চুনারুঘাটে ৩জন শিকারীকে ৩ মাসের কারাদন্ড প্রদান

দেনাদারের স্ত্রীকে কেড়ে নিল সুদখোর

দেনাদারের স্ত্রীকে কেড়ে নিল সুদখোর

খুলনার এক হোটেল কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু

খুলনার এক হোটেল কর্মচারীর রহস্যজনক মৃত্যু

রিফাত হত্যা: রিশান ফরাজীসহ ১১ আসামির বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড, ৩ জন খালাস

রিফাত হত্যা: রিশান ফরাজীসহ ১১ আসামির বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড, ৩ জন খালাস

‘হু আর ইউ ' অ্যাম আই এ ক্রিমিনাল? র‍্যাবকে মদ্যপ হাজীপুত্র

‘হু আর ইউ ' অ্যাম আই এ ক্রিমিনাল? র‍্যাবকে মদ্যপ হাজীপুত্র

পাকুন্দিয়া পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনে ঋন জালিয়াতি ও দুর্নীতি

পাকুন্দিয়া পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনে ঋন জালিয়াতি ও দুর্নীতি