Feedback

এক্সক্লুসিভ

করোনায় কেমন আছেন বাউল আবদুর রহমান?

করোনায় কেমন আছেন বাউল আবদুর রহমান?
September 17
02:16am
2020
Azhar Uddin Shimul
Baniachong, Habiganj:
Eye News BD App PlayStore

করোনার কারণে ছয় মাস ধরে বাড়িতে আসছি। সিলেট থেকে ফেরার পর আর যাওয়া হয় নি। এই করোনাকালীন সময়ে ভাবলাম গীতিকার বাউল আবদুর রহমানের সাথে দেখা করবো। এক মাস ধরে প্রস্তুতি নিলাম। সঙ্গী আমার কলেজ শিক্ষক মো. জসিম উদ্দিন। সময় করে একদিন পৌঁছে গেলাম বাউল আবদুর রহমান ভাইয়ের বাড়িতে।

বাউল আবদুর রহমানের বাড়ি আমার বাড়ি থেকে কয়েকমাইল দূরে। আমি হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় আর তিনি আজমিরীগঞ্জ উপজেলায়। বসবাস করেন জলসুখা গ্রামে। আগ থেকেই কথা হওয়ায় তিনি গানের আসরের সকল যন্ত্রপাতি ঠিকটাক করে রেখেছেন। যাওয়া মাত্রই বাউলের বউ আমাদের চা দিলেন সাথে পান সুপারি। জলসুখা প্রত্যন্ত অঞ্চল হলেও বিদ্যুৎ আছে। ফ্যানের নিচে বসে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিলাম।  আবদুর রহমান ভাই আমাদের উনার গানের ঘরে নিয়ে গেলেন। বাউল আমাদের পরম যত্নে অনেকগুলো গান শুনালেন। বাউল সম্রাট শাহ্ আবদুল করিমের তিনটা ও নিজের একটা গান তিনি পরিবেশন করলেন।

গানের সাথে সাথে গ্রামের মানুষও জড়ো হলো। দরজার পাশে দাঁড়িয়ে বৃদ্ধ, যুবক, শিশু ও নারীরা গান শুনেছেন। কন্ঠে কি জাদু, আহা।  গান শেষ করে বাউলকে জিজ্ঞেস করলাম কেমন আছেন? প্রশ্ন শেষ করতেই একটা দীর্ঘশ্বাস নিয়ে বললেন, ‘জীবনের শেষ সময়ে চলে গেছি! বয়স এখন ৬৫। গুরুজি শাহ্ আবদুল করিমের সাথেই জীবনের অর্ধেক সময় কাটিয়ে আসছি। হাতে কলমে তিন যুগ। করোনার এই সময়ে ভালো নেই আমাদের বাউল সম্প্রদায়। আমাদের গান নেই, বাজনা নেই। গানের মধ্যেই তো আমাদের জীবন।’

ছয় মাস ধরে ঘরবন্দি বাউল আবদুর রহমান। সারা বছর এখানে সেখানে গান গেয়েই উপার্জন করেন টাকা। কিন্তু করোনায় সব তছনছ করে দিচ্ছে। আক্ষেপ নিয়ে বললেন, ‘যারা আগে নিয়মিত খোঁজ নিতো, সুখে দুঃখে পাশে থাকতো তারাও (হাতে গুনা কয়েকজন ছাড়া) এখন যোগাযোগ করে না। জমানো কিছু টাকা ছিলো তা দিয়ে সংসারের খরচ চালাচ্ছি। পৃথিবীর এই কঠিন সময়ে সবচেয়ে অবহলিত বাউলরাই।

মানুষ বাউলের গান শুনে, শুনার পরেই আর দেখা পাওয়া যায় না বলে জানান তিনি। যারা বাউল গান করেন তারা সবাই আটকা পড়েছে। অসহায় বাউলদের সহযোগিতা করার কথা বললেন তিনি।  তিনি বলেন, ‘বাউলরাই এদেশের গানের ঐতিহ্য টিকিয়ে রেখেছে। বাউল যদি বেঁচে না থাকে তাহলে গান গাইবে কারা, সুর তুলবে কারা, তবলা বাজাবে কারা, বাঁশিতে মোহনীয় ভাবে আওয়াজ দিবে কারা? আমরাই তো মানুষের মাঝে বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরি, আমরাই এখন হারিয়ে যাচ্ছি। মুক্তিযুদ্ধের সময় বাউলরা গান রচনা করেছে, যুবকদের উৎসাহ দিয়েছে। আমরা আমাদের গানের মাধ্যমেই মানুষের মাঝে বাঁচতে চেয়েছি।   

সরকার থেকেও তেমন সহযোগিতা পান নি এই করোনাকালীন সময়ে। তিনি বলেন, ‘আমরা বেঁচে আছি না মারা গেছি কেউ খোঁজ নেওয়ার প্রয়োজন বোধই করে না। এই মহামারী দীর্ঘস্থায়ী হলে জীবন অনেকটা কঠিন হয়ে পড়বে। বর্ষা মৌসুমে গানের আসর জমতো অন্যান্য সময়ে। কিন্তু এই শেষ বয়সে এসে যে ঘরে বসে সময় পার করতে হবে তা কখনো ভাবি নি!   

কথার শেষ পর্যায়ে জানতে চাইলাম এখনো তো রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি মেলে নি? তিনি বললেন, মিলবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি! মরে যাওয়ার পরে মিলবে। মরে গেলে স্বীকৃতি পেয়ে লাভ কি? গান তো আমার সন্তানের মতোন। এই জীবনে বেঁচে থাকতে  রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পাবো কিনা বিধাতাই জানেন? তবে আফসোস নেই! গানের মাধ্যমেই মানুষের মাঝে বাঁচতে চাই। এক জীবনে আর কোনো চাহিদা নেই। ফেরার সময় তিনি শুনালেন করিমের আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম গানটি।   গানের কথাগুলো বাড়ি ফেরার সময় মনের মধ্যে বাজছিলো। বাউলের মায়া ভুলবো কেমনে! 

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

রাজশাহীতে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় বরখাস্ত ফাদার গ্রেপ্তার

রাজশাহীতে কিশোরী ধর্ষণ মামলায় বরখাস্ত ফাদার গ্রেপ্তার

বহিরাগত দ্বারা হমলার শিকার ইবি কর্মকর্তা

বহিরাগত দ্বারা হমলার শিকার ইবি কর্মকর্তা

সর্বশেষ

গল্প

গল্প

স্টপেজ

স্টপেজ

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের বলার মতো গল্প ফাউন্ডেশনের হাজার তম দিন উদযাপন

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের বলার মতো গল্প ফাউন্ডেশনের হাজার তম দিন উদযাপন

হবিগঞ্জের জি কে গউছের নাকে অস্ত্রোপাচার

হবিগঞ্জের জি কে গউছের নাকে অস্ত্রোপাচার

পদ্মায় নৌকাডুবি থামবে কবে?

পদ্মায় নৌকাডুবি থামবে কবে?

আজমিরীগঞ্জে ভেঙ্গে যাওয়া রাস্তা মেরামতের উদ্যোগ নিলো উপজেলা প্রশাসন

আজমিরীগঞ্জে ভেঙ্গে যাওয়া রাস্তা মেরামতের উদ্যোগ নিলো উপজেলা প্রশাসন

দুর্নীতি ও দুঃশাসন ছাড়া এই সরকারের বড় অর্জন কিছুই নেই : ডা: শাহাদাত

দুর্নীতি ও দুঃশাসন ছাড়া এই সরকারের বড় অর্জন কিছুই নেই : ডা: শাহাদাত

কুমিল্লার নগর উদ্যান থেকে গরীব শিশুরা বঞ্চিত, রাইডে চরলে গুনতে হবে টাকা

কুমিল্লার নগর উদ্যান থেকে গরীব শিশুরা বঞ্চিত, রাইডে চরলে গুনতে হবে টাকা

সাভারে আবারও এক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার

সাভারে আবারও এক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার

চট্টগ্রাম বন্দরে পাকিস্তানের ১৭৫ টন পিয়াজ খালাস

চট্টগ্রাম বন্দরে পাকিস্তানের ১৭৫ টন পিয়াজ খালাস