Feedback

জেলার খবর, কৃষি-অর্থ ও বাণিজ্য, চুয়াডাঙ্গা

চুয়াডাঙ্গায় সার সংকটে শঙ্কিত কৃষকরা

চুয়াডাঙ্গায় সার সংকটে শঙ্কিত কৃষকরা
September 14
10:33pm
2020
Md. Akhter Ali
Chuadanga, Chuadanga:
Eye News BD App PlayStore

চুয়াডাঙ্গার ডিলাররা সারের কৃত্রিম সংকট তৈরি করেছেন বলে অভিযোগ স্থানীয় কৃষকদের। কারণ প্রথমে সার নেই বলা হলেও কেজিতে ২ থেকে ৪ টাকা বেশি দিলেই ডিলাররা কৃষকদের সার সরবরাহ করছেন। ডিলারদের এমন সিন্ডিকেটের কারণে এবার জেলার সবজি ও ভুট্টার আবাদে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন চাষিরা।


চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য, সরকার নির্ধারিত দামে ডিলারদের মাধ্যমে কৃষকদের কাছে ইউরিয়া, টিএসপি, এমওপি এবং ডিএপি সার বিক্রি করা হয়। প্রতিবেজি ইউরিয়া ১৬ টাকা, টিএসপি ২২ টাকা, এমওপি ১৫ টাকা এবং ডিএপি ১৬ টাকায় কৃষকদের কাছে বিক্রি করার কথা। তবে মাঠ পর্যায়ের তথ্য, এর চেয়ে বেশি দামে সার বিক্রি করা হচ্ছে। 


এবার চুয়াডাঙ্গার চারটি উপজেলায় এ মৌসুমে ৩২ হাজার ৬৬০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ করছেন কৃষকরা। আগাম সবজি চাষ হচ্ছে ৬ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে। ভুট্টার আবাদ হচ্ছে ৪৮ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে। এ জেলাতেই দেশের সবচেয়ে বেশি ভুট্টার চাষ করা হয়। এছাড়া কৃষকরা ফুলকপি, বাঁধাকপি, শসা, করোলা, লাউসহ আগাম বিভিন্ন সবজি আবাদ করছেন। সার সংকট বা সারের বাড়তি দামের কারণে এসব আবাদের ফলনে মারাত্মক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন স্থানীয় কৃষকরা।  


যদিও চুয়াডাঙ্গার ডিলারদের কাছে ইউরিয়া সার মজুত রয়েছে ১ হাজার ৩২৫ মেট্রিক টন, টিএসপি ৪৫১ মেট্রিক টন, এমওপি ৪৮৮ মেট্রিক টন ও ডিএপি ৫৩৫ মেট্রিক টন। এর মধ্যে আবার চলতি মাসে ডিলারদের জন্য ৩ হাজার ১০৩ মেট্রিক টন ইউরিয়া, ৫৮০ মেট্রিক টন টিএসপি, ৮৩৯ মেট্রিক টন এমওপি ও ১ হাজার ৩৭৪ মেট্রিক টন ডিএপি সার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তবে ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সার উত্তোলনে ডিলারদের মধ্যে তেমন আগ্রহ দেখা যায়নি। ওই সময়ের মধ্যে শুধু ৮৩৫ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উত্তোলন করেছেন তারা। অন্য সার তারা উত্তোলন করেননি।


চুয়াডাঙ্গা জেলায় বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন অনুমোদিত ডিলার রয়েছেন ৫০ জন ও বিএডিসির ডিলার রয়েছেন ৫৯ জন। বিএডিসির ২ জন ডিলার লাইসেন্স নবায়ন না করায় তাদের বিক্রি কার্যক্রম বাতিল করা হয়েছে। সারের সংকট ও বাড়িত দামের ব্যাপারে কথা বলা হয় সদর উপজেলা ও আলমডাঙ্গার কৃষক সোহেল, স্বপন, রবিউল, রতন, আজমত আলি, জমির শেখের সঙ্গে। তাদের দাবি, ডিলাররা সারের কৃত্রিম সংকট তৈরি করছেন।


কৃষকদের বলা হচ্ছে, সার কম, তাই দাম বেশি। কারণ অন্য জায়গা থেকে সার এনে দিতে হবে। সার বিক্রির কোনো ভাউচারও কৃষকদের দেয়া হচ্ছে না। কারণ দাম বেশি রাখা হচ্ছে। কৃষকদের কাছ থেকে দাম বেশি রাখলেও ডিলাররা নিজেদের খাতায় সরকার নির্ধারিত দামই লিখে রাখেন। সার সংকটে জিম্মি হয়ে পড়া কৃষকরা প্রতিবাদ করলেই তাদের জানিয়ে দেয়া হচ্ছে তারা আর সার পাবেন না। এমনকি হুমকি দেয়া হচ্ছে কোথা থেকে সার পান তাও দেখব। সব সারেই প্রতি কেজিতে ২ থেকে ৪ টাকা বেশি নেয়া হচ্ছে। অনৈতিক সুবিধা নেয়া ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবিও জানান তারা।


দামুড়হুদা উপজেলার পোতারপাড়া গ্রামের কৃষক উজ্জল হক জানান, তিনি ধান ও শিমের আবাদ করেছেন। সার কিনতে গেলে প্রতি কেজিতে ২ টাকা করে বেশি নেয়ার অভিযোগ তার। এ ব্যাপারে দেখার কেউ নেই বলেও অভিযোগ তার।  নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ডিলারের ম্যানেজার জানান, মালিক যেভাবে তাদের নির্দেশ দেন সেভাবেই তারা সার বিক্রি করেন। তাদের কিছুই করার নেই। কৃষকদের কাছ থেকে বেশি দাম রাখা হলেও খাতায় ঠিকই সরকার নির্ধারিত দাম লিখে রাখা হয়; এমন অভিযোগেরও সত্যতা স্বীকার করেন তিনি। 


এদিকে চুয়াডাঙ্গা ডিঙ্গেদহ বাজারের বিসিআইসি সার ডিলার আনছার আলী জানান, সারের কোনো সংকট নেই। এমনকি নির্ধারিত মূল্যেই বিক্রি করা হচ্ছে। সারের দাম বেশি নেয়া হচ্ছে এমন অভিযোগকে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি তার। বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশন চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী বলেন, সারের সংকট নেই। এবার ভুট্টার আবাদ বেশি হবে বলে আমরা অতিরিক্ত সার বরাদ্দ চেয়ে কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। কোনো ডিলার যদি সারের দাম বেশি নেয় বিষয়টি খতিয়ে দেখব। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


চুয়াডাঙ্গা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আলি হাসান জানান, তাদের কাছেও অভিযোগ এসেছে সারের দাম বেশি নেয়া রাখা হচ্ছে। মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কৃষকদের সার নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সরকারি নির্ধারিত মূল্যেই সার বিক্রি হবে। বেশি দাম রাখার সত্যতা পেলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।  জেলা প্রশাসক (ডিসি) নজরুল ইসলাম সরকার বলেন, সরকার কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা করছে। সারের কোন সংকট নেই। অতিরিক্ত মূল্যে সার বিক্রির অভিযোগ পেলে ডিলারশিপ বাতিল করা হবে।

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

খালেদার উন্নত চিকিৎসা: দল ও পরিবারের দুই মত

খালেদার উন্নত চিকিৎসা: দল ও পরিবারের দুই মত

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

কি অপরাধ ছিলো আদিবাসী মেয়েটির

কি অপরাধ ছিলো আদিবাসী মেয়েটির

কৃষি কর্মকর্তা পদে প্যানেলে নিয়োগের দাবীতে দ্বিতীয় দিনে অনির্দিষ্টকালের অবস্থান

কৃষি কর্মকর্তা পদে প্যানেলে নিয়োগের দাবীতে দ্বিতীয় দিনে অনির্দিষ্টকালের অবস্থান

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের দাবীতে  এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের দাবীতে এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

সর্বশেষ

শিক্ষক নেতৃত্বের দক্ষতা উন্নয়ন

শিক্ষক নেতৃত্বের দক্ষতা উন্নয়ন

হিন্দু ভাইয়ের মুখাগ্নি করল মুসলিম বোন

হিন্দু ভাইয়ের মুখাগ্নি করল মুসলিম বোন

ধনীদের গ্লুকোজ খেয়ে ব্যাটিংয়ে নামতে বললেন সেওয়াগ!

ধনীদের গ্লুকোজ খেয়ে ব্যাটিংয়ে নামতে বললেন সেওয়াগ!

''মৃত্যুর আগে দিশাকে শোবার ঘরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়'', বললেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

''মৃত্যুর আগে দিশাকে শোবার ঘরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়'', বললেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

অপরাধী ঠান্ডা ঘরে বসে রয়েছে, আর আমি পুলিশের জেরার মুখোমুখি হচ্ছি: পায়েল ঘোষ

অপরাধী ঠান্ডা ঘরে বসে রয়েছে, আর আমি পুলিশের জেরার মুখোমুখি হচ্ছি: পায়েল ঘোষ

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

ভারতে ১৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু,  মাথায় হাত ব্যবসায়ীদের

ভারতে ১৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু, মাথায় হাত ব্যবসায়ীদের

সুশান্তের সাথে ঘনিষ্ঠতার কথা স্বীকার করলেন সারা আলি খান

সুশান্তের সাথে ঘনিষ্ঠতার কথা স্বীকার করলেন সারা আলি খান

মসজিদ কমিটি নিয়ে হামলা  আহত সভাপতির ছেলে

মসজিদ কমিটি নিয়ে হামলা আহত সভাপতির ছেলে

রাজশাহীতে কৃষি সাংবাদিকতায় দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালা

রাজশাহীতে কৃষি সাংবাদিকতায় দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালা

মাল থেকে মাছ সবই খাই! নির্ঘাত সবাই জেলে যাবে:- স্বস্তিকা

মাল থেকে মাছ সবই খাই! নির্ঘাত সবাই জেলে যাবে:- স্বস্তিকা

বেশি বেশি গাছ লাগানোর আহ্বান জানালেন বাদশা

বেশি বেশি গাছ লাগানোর আহ্বান জানালেন বাদশা

কৃষকদের ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলার অভিযোগে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা

কৃষকদের ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলার অভিযোগে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা

এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ‘ধর্ষণকারীদের’ আত্মপক্ষ সমর্থন!

এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ‘ধর্ষণকারীদের’ আত্মপক্ষ সমর্থন!