Feedback

জেলার খবর, বগুড়া

আদমদীঘিতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু, স্বামী আটক

আদমদীঘিতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু, স্বামী আটক
September 13
09:34pm
2020
Abdul Wadut
sherpur, bogura:
Eye News BD App PlayStore

বগুড়ার আদমদীঘিতে হেলেনা খাতুন (৩০) নামের এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। সে আত্মহত্যা করেছেন না-কি তাকে কৌশলে হত্যা করা হয়েছে। এনিয়ে গ্রামে চলছে নানা গুঞ্জন। রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিহত হেলেনার মৃতদেহ উদ্ধার করে বগুড়া মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। নিহত হেলেনা খাতুন আদমদীঘি উপজেলার কড়ই গ্রামের সদ্য ইরাক দেশ থেকে ফেরৎ আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী। সে দুই সন্তানের জননী। এঘটনায় পুলিশ রাতেই নিহতের স্বামী আনোয়ার হোসেনকে আটক করেছেন। 


পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আদমদীঘির কড়ই গ্রামের ছদের আলীর ছেলে আনোয়ার হোসেনের সাথে বিহিগ্রামের বেলাল মোল্লার মেয়ে হেলেনা খাতুনের প্রায় ১৩বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। স্বামী আনোয়ার হোসেন দীর্ঘ দিন ইরাক দেশে থাকার পর গত ৯ সেপ্টেম্বর বুধবার তার বাড়ি কড়ই গ্রামে আসেন। গত ১২ সেপ্টেম্বর শনিবার রাতের খাবার খেয়ে স্বামী স্ত্রী এক ঘরে ও অপর ঘরে তার দুই সন্তান ঘুমিয়ে পড়ে। রাত ১০টায় নিহত হেলেনার স্বামী আনোয়ার হোসেন তার শ্যালক চঞ্চলকে মোবাইল ফোনে জানায় তার বোন হেলেনা গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।


এরপর খবরটি থানা পুলিশকে জানানো হলে উপ-পরিদর্শক রাকিব হোসেন রাতেই ঘটনাস্থল পৌঁছে মৃত্যুটি রহস্যজনক হওয়ায় স্বামী আনোয়ার হোসেনকে আটক করে থানায় আনেন। নিহতের ভাই চঞ্চল ও নানা আমজাদ হোসেন জানায়, পারিবারিক কলহের কারনে হেলেনাকে কৌশলে তার স্বামী হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালাচ্ছেন।  আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন জানায়, মৃত্যুটি রহস্যজনক হওয়ায় তার লাশ ময়না তদন্তেরজ  জন্য বগুড়া মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে মৃত্যুর সঠিক কারন জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় ইউ.ডি মামলা করা হয়েছে।  


All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

স্পর্শকাতর স্থানে হাত ডান্স গুরুর, যা বললেন নোরা

স্পর্শকাতর স্থানে হাত ডান্স গুরুর, যা বললেন নোরা

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

বিএনপির সাবেক সভাপতি লৎফর রহমান মিন্টুর ইন্তিকাল

সর্বশেষ

রাশিয়ার মধ্যস্থতা মানছে না আর্মেনিয়া-আজারবাইজান

রাশিয়ার মধ্যস্থতা মানছে না আর্মেনিয়া-আজারবাইজান

কন্যাশিশু দিবসের ভাবনা

কন্যাশিশু দিবসের ভাবনা

মৃত্যুদণ্ডের রায়ের পরও হাসছিলেন রিফাত ফরাজী

মৃত্যুদণ্ডের রায়ের পরও হাসছিলেন রিফাত ফরাজী

শিশুর জন্ম মুসলিম হিসেবেই, আমি কেবল নিজ ধর্মে ফিরেছি: নারী নব মুসলিম

শিশুর জন্ম মুসলিম হিসেবেই, আমি কেবল নিজ ধর্মে ফিরেছি: নারী নব মুসলিম

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

কুষ্টিয়ায় হোটেল মালিকগন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

কুষ্টিয়ায় হোটেল মালিকগন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

বাউফলে জোড়া খুনের বিচারের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

বাউফলে জোড়া খুনের বিচারের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

গল্প

গল্প

ভারতের স্থলবন্দর খুলে দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ভারতের স্থলবন্দর খুলে দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টপেজ

স্টপেজ

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

দেশের মানুষ ধর্ষণ, দূর্নীতি ও টাকা পাচারের ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেঃ ভিপি নুর

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

ফুসফুস ভালো রেখে জীবনযাপন করার জন্য এই ৭টি খাবার খাওয়া উচিৎ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

সজিনা পাতার গুণাগুণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ

ডিমলায় ঢাকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয় বৃক্ষ ও টিউবওয়েল বিতরণ