Feedback

খোলা কলাম

‘‘তবে এই নাও দড়ি’’- যাও এবার আত্মহত্যা করো!

‘‘তবে এই নাও দড়ি’’- যাও এবার আত্মহত্যা করো!
September 13
01:18pm
2020
MD.SOHEL RANA
THAKURGAON SADAR, THAKURGOAN:
Eye News BD App PlayStore

 বিষন্নতায় ডুবে  আত্মহত্যার পথ বেছে নেওয়া মেয়েকে কথাগুলো বলছে তার গর্ভধারিণী মা:-   

তোমার বাবা একজন তুখোর ধুমপায়ী আর উগ্রমেজাজী মানুষ ছিলো বটে। আমার সাথে এ নিয়ে কত ঝগড়া?  কতবার যে আমি বাড়ি ছেড়েছি তার কোন হিসেব নেই?  ছেড়ে দেবো ছেড়ে দেবো বলে আর ছাড়লোইনা ধুমপান। শুধু কি ধুমপান! দায়িত্ব কর্তব্যহীন মানুষ ছিলো একটা। অবশেষে তুমি যখন আমার গর্ভে এলে ধীরে ধীরে সব পাল্টে যেতে লাগলো মানুষটার।   

তোমার বাবা কখনো রাত বারোটার আগে বাড়ি ফিরতোনা। আমি অনেক্ষণ তার পথপানে চেয়ে থাকতাম। তার মনেই থাকতোনা আমি তার অপেক্ষায় আছি। আমি কতটা ক্লান্ত ছিলাম এসব ভেবে তা অনুভব করার চেষ্টাও করতোনা? আমার চোখে অশ্রু শুকিয়ে রক্ত ঝড়লেও তার কিছু আসে যায়না।   কিন্তু মানুষটা হঠাৎ বদলে যেতে লাগলো। রাত আটটার আগে বাড়ি ফিরতে লাগলো। আমার প্রচন্ড যত্ন নিতে লাগলো। বলতে পারো তোমাকে গর্ভে ধরার জন্য হয়তো আমার সুখ মিলেছিলো দুদন্ড এ জগৎ সংসারে। তুমি জানো বাড়ি ফেরার সময় প্রত্যেকদিন তোমার জন্য খেলনা নিয়ে আসতো তোমার বাবা। তাও আবার মেয়েদের খেলনা। এই ধরো কলস, পাতিল, এসব।   

যদিও বা সে তখনও জানতোনা তুমি মেয়ে হবে নাকি ছেলে।  আমি হাঠাৎ একদিন জিজ্ঞেস করলাম কি গো- আমাদের মেয়ে না হলে এসব খেলনা কে খেলবে? সে কি বলেছিলো জানো? বলেছিলো আমাদের মেয়ে হবে। আমি খুব ভয় পেলাম। না জানি কি হয়? কিন্তু তাঁর কথা সত্যি হলো। তোমার আগমনে সে এতো আনন্দিত হয়েছিলো যে, এর আগে কখনো তাকে এমন  খুশী হতে দেখিনি।   

তোমার কপালে টিপ দিতো, তোমার চোখে কাজল পরাতো, আর তোমাকে অনেক চুমু দিয়ে আদর করতো। মজার ব্যপার কি ছিলো জানো? তোমাকে শুধু তোমার বাবাই চুমু দিতো। সে অন্য মানুষতো দূরের কথা আমাকেও বলতো তার মেয়ের গালে যেনো ঠোঁট না বসাই। একদিন তোমার গালটা মশায় কামড়ে ছিলো। সারা বাড়ি মাথায় তুলেছিলো সেদিন। তোমার রক্ত আর তোমার কান্না ভরা মুখ সহ্য করতোনা তোমার বাবা। ভাবতে পারছো কতটা ভালোবাসে তোমার বাবা তোমাকে?  তুমি যখন রাতে কান্না করতে সে কেনো যেনো কেঁদে দিতো। যদিও বা তুমি জন্মের আগে তাকে কখনো কাঁদতে দেখিনি আমি।   তোমাকে কাঁধে করে স্কুলে নেওয়া, আবার কাঁধে করে বাসায় নিয়ে আসা। তোমার খেলনার জিনিসগুলো সাজিয়ে রাখা সবই করতো তোমার বাবা।   তুমি যখন পঞ্চম শ্রেণিতে তখন একবার তোমার জ্বর হলো। সে কি জ্বর? কোনভাবেই কমছিলোনা। তোমার চিকিৎসা করাতে সে তার সর্বস্ব বিসর্জন দিয়েছিলো।   

তোমার বাবা তো কোন দায়িত্ব পালন করতোনা কিন্তু বাবা হিসেবে এমন দায়িত্ব নেই যেটা সে পালন করেনি। তোমার ঔষুধের টাকা যোগার করতে মানুষের ঘরের কাজ পর্যন্ত করেছে সে। কারন একটাই তোমাকে বাঁচাতে হবে। আর আজ তোমার আত্মহত্যার খবরটা তার কানে গেলে সে কতক্ষণ বেঁচে থাকবে বলতে পারো।  কেনো মরতে চাও তুমি? এইতো মাত্র ১৬ বছর আগে  পৃথিবীতে  এসেছো তুমি। তার মধ্যে আমার কোলে কেঁটেছে তোমার ৬ বছর। তারপর বাবার কাঁধে চড়ে স্কুলে গেছো ৫ বছর। এরপর ৫ টি বছর বন্ধুদের সাথে মজার স্কুল জীবন। তাহলে কোথায় তোমার বিষণ্নতা মা?  বয়সটা ভুল করার। হয়তো ভুল করেছো। এই সমাজ ভুলের বাইরে না। নয়তো ব্যর্থ হয়েছো। ব্যর্থ না হলে সফল হওয়া যায়না। তাহলে সমস্যা কোথায়? কেনো সব ছেড়ে মরতে চাও? সমস্যা হলো তুমি সব কিছুকে  কলঙ্ক মনে করছো। মনে রেখো সব ভুলের সমাধান তোমার বাবার একটা চুমু। আমার স্বপ্নের একটা আচড়।   কি ভুল করেছো? জানতে চাইনি। আত্মহত্যা করে প্রমাণ করতে চাও আমরা তোমার ব্যর্থ বাবা- মা। তোমার মনের কাছাকাছি ছিলাম না।   

মা রে.. মনে রেখো তোমার ভুলের সমাধান এ সমাজ করে দেবেনা। তুমি কি ভুল করেছো, তোমার কি কলঙ্ক হয়েছে, আর কিসে ব্যর্থ হয়েছো? তোমার লজ্জ্বা, তোমার অপমান এ সমাজ দুদিন কাকানি করার  পর তিন দিনে ভুলে যাবে। শুধু তোমার ভুল নয় তোমাকেও। আমি তোমাকে ভুলে যেতে দিতে চাইনা। যদি মরতে হয় মরো আপত্তি নেই। তবে এমন কিছু করে মরো যেনো মানুষ তোমাকে মনে রাখে।   

উঠতি বয়সের করা ভুল, প্রেমে ব্যর্থ, পরীক্ষায় খারাপ ফলাফল, বখাটে ছেলের উত্যক্ত, আমার তোমার বাবার কথায় অভিমান কিনবা তুমি ধর্ষিতা এসব যদি তোমার আত্মহত্যার পথ বেঁছে কারন হয়, তবে বলবো এসব তোমার ভুল ধারনা।  তোমার ভুল সিদ্ধান্ত।   আজ তোমার হাতের বিষের বোতল কিনবা তোমার দরি কোনটাই আমি কেড়ে নিতে আসিনি। মৃত্যুর পূর্বে তোমাকে চেনাতে এসেছি মাত্র। কারন তুমি এখনো তোমাকে চিনতে পারোনি মা।   ৫২ এর ভাষা আন্দোলন আর ৭১ এর স্মবাধীনতা যুদ্ধে মরেছে তো অনেকে, সম্ভ্রম হারিয়ে বিরাঙ্গনা তো হয়েছে অনেকে। কিন্তু তাদের অবদান দেশ ভুলেনি। তাদের বাঁচিয়ে রেখেছে স্মৃতী সৌধে, আর শহীদ মিনারে। প্রতিটি প্রাণের স্পন্দনে।   

কিন্তু তোমার আত্মহত্যার পর কি হবে ভেবে দেখো। আমার কি হবে? তোমার বাবার কি হবে?  তোমার আজকের সিদ্ধান্ত তিনি জানলে কখনই তোমাকে বাঁচাতে হয়তো মানুষের ঘরের কাজ করতে যেতোনা, রিক্সা চালাতোনা মাথার ঘাম পায়ে ফেলতোনা। নিজে অনাহারে থেকে তোমাকে খাওয়াতোনা। নিজে ছেড়া জামা পড়ে তোমাকে নতুন জামা এনে দিতোনা।   

ভেবে দেখো আজ যখন ভোর দুপুরে তুমি বিষের বোতল, দড়ি, আর সিলিং এ ওড়না বেঁধেছো আত্মহত্যা করতে তখনো তোমার বাবা মাঠে কাজ করছে, রিক্সা চালাচ্ছে বা ফেরি করছে। কারন একটাই তোমার উন্নত জীবনের সহায় হতে চান তিনি। আজ বিকালে বাজার থেকে বড় মাছ টা এনে যখন দেখবে তোমার মরদেহ ঝুঁলছে ভেবে দেখেছো তোসার জন্মের পরে বদলে যাওয়া মানুষটা কতটা আঘাৎ পাবে। জীবনের কাছে হেরে যেতে চাও মা। কিন্তু জীবন তোমাকে নতুন পথ দেখাতে চায়। মনে রেখো নিজের সাথে যুদ্ধ করে টিকে থাকাটাই আসল যুদ্ধ। ভুল কোনকিছুর জন্য নিজেকে ইস্পাতের মতো শক্ত করতে না পারলে ভুল তোমাকে গ্রাস করে ফেলবে। তোমাকে বাঁচতে দেবেনা। যদি বাঁচতে চাও তবে সব নিয়ে বাঁচো। পৃথিবীর পথটা কখনোই ফুলের পাপড়িতে সাজানো থাকেনা। এখানে কাঁটা সরিয়ে হাঁটতে হয়।   

তোমার বাবার এতোটা জায়গা জুড়ে তোমার বিচরণ। তবুও যদি এই একফোটা বিষ আর এই একটুকরো দড়ি হয় তোমার শেষ চাওয়া। যদি ভুলের কাছে শিক্ষা না নিয়ে লোকে কি বলবে ভেবে বাবা মায়ের আর্তনাদকে তুচ্ছ করে দেখো, তবে এই নাও দড়ি চলো এবার আত্মহত্যা করো। আমি আগেই বলেছি তোমাকে বাঁচাতে আসিনি। তোমার এমন মুহুর্তেও তোমাকে শেখাতে এসেছি মা। তারপরেও যদি তোমার মনে হয় তুমি আমাদের ছেড়ে চলে যাবে তবে জেনে যাও। আমরা তোমার জন্য খুব কাঁদবো। লোকে কিছু মনে রাখেনা মা। শুধু  বিবেকের চিতায় জ্বলে মরে বাবা-মায়েরা। সিদ্ধান্ত তোমার। তোমাকেই নিতে হবে সিদ্ধান্ত আমাদের বুকে রবে নাকি লোকে কি বলবে ভেবে দূরে চলে যাবে? তোমাকে খুব ভালোবাসিরে মা। ভিষণ ভালোবাসি তোমাকে। এই বলে দড়িটি মেয়েটির হাতে দিয়ে দিলো মা। আর আচল দিয়ে চোখ মুছতে মুছতে ফিরে এলো। পরোক্ষণে মেয়েটি তাঁর ভুল বুঝতে পেরে মাকে জাপটে ধরে বললো আমায় ক্ষমা করো মা। আমি মরতে চাইনা। তোমাদের বিশালতার কাছে আমার জীবনকে সোপর্দ করে দিতে চাই মা। আমি বাঘিনীর মতো বাঁচতে চাই।     

বি:দ্র- আমার এ লেখা শুধুই আত্মহত্যা প্রবণতা কমানোর ক্ষুদ্র চেষ্টা মাত্র। লেখাটি ভালো লাগলে আপনার বন্ধু মহলে সেন্ট করুন। তাদের পড়ার সুযোগ করে দিন। মনে রাখবেন- জীবন সুন্দর বেঁচে থাকাতে। যেভাবেই যে অবস্থাতেই থাকুন না কেনো শুধু বেঁচে থাকুন।  আপনার মন্তব্য আমাকে অনুপ্রাণিত করবে।    ধন্যবাদান্তে   লেখক, মো: সোহেল রানা সংবাদকর্মী  ঠাকুরগাঁও। 

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

সৌদির ভিসা রিনিউ আবেদনে ১৮ এজেন্সির তালিকা প্রকাশ

সৌদির ভিসা রিনিউ আবেদনে ১৮ এজেন্সির তালিকা প্রকাশ

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

শিক্ষক নেতৃত্বের দক্ষতা উন্নয়ন

শিক্ষক নেতৃত্বের দক্ষতা উন্নয়ন

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা

নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

সর্বশেষ

যুবলীগ নেতা আবুলের নেতৃত্বে ভয়ানক কিশোর গ্যাং

যুবলীগ নেতা আবুলের নেতৃত্বে ভয়ানক কিশোর গ্যাং

আল্লাহর উপরে যে ভরসা রাখে(  সূরা যোহা - এর তাফসীর)

আল্লাহর উপরে যে ভরসা রাখে( সূরা যোহা - এর তাফসীর)

বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বীরদের -  ব্যতিক্রমী আয়োজন ‘বিরল সম্মান’

বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে বীরদের - ব্যতিক্রমী আয়োজন ‘বিরল সম্মান’

কুড়িগ্রামে মৌসুমের রেকর্ড বৃষ্টিপাত, জলাবদ্ধতার কবলে অফিস আদালত

কুড়িগ্রামে মৌসুমের রেকর্ড বৃষ্টিপাত, জলাবদ্ধতার কবলে অফিস আদালত

বাংলাদেশে দিন দিন বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা

বাংলাদেশে দিন দিন বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা

সিগারেট বিক্রিতে বাংলাদেশ পৃথিবীর দ্বিতীয়

সিগারেট বিক্রিতে বাংলাদেশ পৃথিবীর দ্বিতীয়

ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেককে তাঁর  ৫৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা ভালোবাসায় স্মরণ

ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেককে তাঁর ৫৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা ভালোবাসায় স্মরণ

জরিমানা করে ধর্ষণের মীমাংসা, ক্ষোভে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

জরিমানা করে ধর্ষণের মীমাংসা, ক্ষোভে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

বাংলাদেশ-সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা টেলিফোনে আলোচনা হবে বিকেলে

বাংলাদেশ-সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা টেলিফোনে আলোচনা হবে বিকেলে

তারেক রহমানের তোপের মুখে বিএনপির সিনিয়র নেতারা

তারেক রহমানের তোপের মুখে বিএনপির সিনিয়র নেতারা

খোলা সিগারেট বিক্রি নিষেধ

খোলা সিগারেট বিক্রি নিষেধ

ই-কমার্সে পণ্য বিক্রি করে হতে পারেন কোটিপতি

ই-কমার্সে পণ্য বিক্রি করে হতে পারেন কোটিপতি

ঢাকা-মাস্কাট-ঢাকা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট অক্টোবরে

ঢাকা-মাস্কাট-ঢাকা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট অক্টোবরে

সিলেটের ধর্ষণের ঘটনায় সরকারের অবস্থান কঠোর: ওবায়দুল কাদের

সিলেটের ধর্ষণের ঘটনায় সরকারের অবস্থান কঠোর: ওবায়দুল কাদের

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দকে দুই সপ্তাহের জন্য আইনপেশা থেকে বরখাস্ত

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দকে দুই সপ্তাহের জন্য আইনপেশা থেকে বরখাস্ত