• 0
  • 0
MD MASUM BILLAH
Posted at 13/09/2020 11:10:am

টিকার উপর আস্থা

টিকার উপর আস্থা

টিকার ওপর আস্থা আর্জেন্টিনার পরেই বাংলাদেশক। করোনামহামারীতে টিকার উপর সবথেকে বেশি আস্থা রাখছে আর্জেন্টিনার লোকজন।‌ আর্জেন্টিনার প্রায়ই ৮৯ শতাংশ লোক মনে করেন টিকা নিরাপদ' এবং কার্যকরী। বাংলাদেশের প্রায় ৮৬ শতাংশ লোক মনে করেন টিকা নিরাপদ'। ল্যানসেটের একটি গবেষণায় সম্প্রতি এই তথ্য প্রকাশ করেছেন। এদিকে ফ্রান্স এবং জাপানের লোকেরা টিকাকে সবথেকে অনিরাপদ এবং অকার্যকরই বলে মনে করেন। এই দুই দেশের মাত্র ৯ শতাংশ লোক টিকার ওপর আস্থা রাখে।   

বিশ্বজুড়ে মানুষ অপেক্ষায় আছে একটি সুখবরের জন্য, আর সেটি হচ্ছে কবে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা আসবে। মাস যত গড়াচ্ছে মানুষের অপেক্ষার সঙ্গে অস্থিরতাও তত বাড়ছে। গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে করোনা সংক্রমণের পর থেকে অনেকেই আশা করছেন, টিকাই হবে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের স্থায়ী সমাধান। অবশ্য গবেষকেরা বলছেন, টিকার ওপর বিশ্বের সব দেশের মানুষের সমান আস্থা নেই। আস্থা থাকলেই মানুষ টিকা নেয়। সেদিক থেকে এগিয়ে আর্জেন্টিনা ও বাংলাদেশ।   

যুক্তরাজ্যের লন্ডন স্কুল অব হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিন, ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডন, যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলের ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেলজিয়ামের সেন্টার ফর দ্য ইভালুয়েশন অব ভ্যাকসিনেশন, ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজ ইনস্টিটিউটের পাঁচজন গবেষকের একটি প্রবন্ধ ১০ সেপ্টেম্বর যুক্তরাজ্যভিত্তিক জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেট-এ ছাপা হয়েছে। অবশ্য করোনার টিকার কার্যকারিতা নিয়ে গবেষণাটি হয়নি। হয়েছে শুধু টিকার ওপর। গবেষণার তথ্য অনুযায়ী, টিকাকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করে ইথিওপিয়ার ৯৬ শতাংশ মানুষ। দ্বিতীয় স্থানে আছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ৯৫ শতাংশ মানুষ টিকাকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করে। টিকার কোনো গুরুত্ব নেই জর্জিয়ার মানুষের কাছে। দেশটির মাত্র ৩ শতাংশ মানুষ মনে করে টিকা গুরুত্বপূর্ণ। 

বাংলাদেশের মানুষ মনে করে, স্বাস্থ্যের জন্য টিকার গুরুত্ব আছে, রোগ প্রতিরোধে টিকা কার্যকর এবং টিকা নিরাপদ। সরকারের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির কর্মকর্তারা বলেছেন, বাংলাদেশে জন্মের পর থেকে ২ বছর বয়সী শিশুদের ১০টি রোগের টিকা দেওয়া হয়। এ ছাড়া ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সী মহিলাদের টিটেনাস ও ডিফথেরিয়ার টিকা দেওয়া হয়। দেশে টিকাদানের হার ৮০ শতাংশের বেশি। টিকা দেওয়ার ফলে বাংলাদেশ থেকে গুটিবসন্তের বিলোপ ঘটেছে। দেশে নিউমোনিয়া, টিটেনাস ও হামের প্রকোপ কমেছে।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ