Feedback

সাংবাদিকতা শিখুন অনলাইনে, জাতীয়

বহু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি সাংবাদিকতা

বহু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি সাংবাদিকতা
September 13
10:16am
2020
আব্দুর রহমান
সাতক্ষীরা সদর, সাতক্ষীরা, প্রতিনিধি:
Eye News BD App PlayStore

সাংবাদিকতায় এখন চ্যালেঞ্জ দেখা দিয়েছে, এর মধ্যেই বিরাট সুযোগ লুকিয়ে আছে। সৃজনশীলতার মাধ্যমে আমাদের নৈতিক সাংবাদিকতা সুদৃঢ়ভাবে রক্ষা করতে হবে। সাংবাদিকতায় অপসাংবাদিকতা প্রবেশ করলে আমাদের কোনো ভবিষ্যৎ থাকবে না। তাই আমাদের আস্থা অটুট রাখা, বরং তা আরও বাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে। আমাদের দেশে সাংবাদিকতা বিষয়ে অনার্স-মাস্টার্স না করেও অনেকেই দক্ষতার সাথে সাংবাদিকতা করছেন। আবার সৃজনশীল এ পেশাকে অপব্যবহার করে অনেকেই হলুদ সাংবাদিকতা করে যাচ্ছে। সাংবাদিকতার মান উন্নয়ন এবং হলুদ সাংবাদিকতা প্রতিরোধ করতে প্রকৃত সাংবাদিকদের তালিকাভুক্ত করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাচ্ছে সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন। কিন্তু সাংবাদিকতার মান নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন উঠছে। এখনই সময়, সাংবাদিক সমাজের সুনাম ধরে রাখার। অপসাংবাদিকতা বৃদ্ধি পেলে ঘোলা পানিতে পড়বে সর্বস্তরের নাগরিক। সাংবাদিকদের সংগঠন ‘প্রেসক্লাব’ যদি কর্মরত সাংবাদিকদের নিরাপদ জীবন এবং নিরাপত্তা না দিতে পারে, তাহলে সাংবাদিকতার মান উন্নয়ন সম্ভব নয়।


সমাজের সকল অসংগতি, বাস্তব চিত্র, সংবাদ দর্পনে প্রতিফলিত হলে সুন্দর ভবিষ্যত বিনির্মানে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। অপরদিকে অপসাংবাদিকতায় প্রগতির ধারাকে বাঁধাগ্রস্থ করবে। সাতক্ষীরায় সাংবাদিক পরিচয়ে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অফিস, ইট ভাটা, বেকারী, বেসরকারি ক্লিনিক, আবাসিক হোটেল, সীমান্তবর্তী খাটাল, ভোমরা বন্দরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদা তোলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে সমাজের বিভিন্ন অপরাধে জড়িত কিছু সাংবাদিক আছে, যারা আবার রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় বড় মাপের সাংবাদিক প্রতিনিধি। অনেকে আবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘সাংবাদিক’ পরিচয় ব্যবহার করে ফেসবুকে পোস্ট করছে। তবে নির্ভুল পোস্ট খুবই কম পাওয়া যায়। এভাবে সাংবাদিকতা চলে না। প্রকৃত সাংবাদিকতা করতে চাইলে লেখাপড়া করতে হবে। সাংবাদিকতা পেশাটি একটি সৃজনশীল পেশা। এখানে জানার কোন শেষ নেই। অজানা বিষয়কে নতুনভাবে ফুটিয়ে তুলতে হবে। তরুণদের সুযোগ দিতে হবে।  বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল’র সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণে এখন তরুণরাও সুযোগ পাচ্ছে। আমারও কয়েকবার সুযোগ পেয়েছি। এখানে সাধারণত সাংবাদিকতার নীতিমালা, প্রেস কাউন্সিল আইন, আচরণ বিধি, হলুদ সাংবাদিকতা, দায়িত্বশীলতাসহ বিভিন্ন গুরুত্ব বিষয়ে আলোচনা উঠে আসে। কিন্তু এসব বাস্তবায়নে সরকার কতটা এগিয়ে এসেছে সেটা সবায় জানি।


সরকার প্রতিনিয়ত সাংবাদিকদের কল্যাণে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করছে। সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট করা হয়েছে। কিন্তু জেলা পর্যায়ে সাংবাদিকরা এসব সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে কি? যদি পেয়ে থাকেন তাহলে হয়তো পর্যাপ্ত না বলে আমার মনে হয়েছে। সাংবাদিকদেরও রাষ্ট্রিয় কিছু সুযোগ-সুবিধা প্রয়োজন। তারাও রাষ্ট্রের কল্যাণে অতন্ত্র প্রহরী হিসেবে কাজ করছে। অনেক দিন ধরে ‘সাহিত্য ও সাংবাদিকতা’ নিয়ে কিছু লিখতে গিয়েও আবার পিছিয়ে পড়ি। আমাদের সমাজে এমন অনেক অনলাইন পোর্টালের সম্পাদক আছে তারা নিজে দু’কলম লিখতে পারে না। অদক্ষদের নিয়ে গঠিত হচ্ছে বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন। আমরা অনেকেই সারাদিন বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রোগ্রামে গিয়ে ছবি তোলা এবং নিউজ তৈরি করে থাকি। আবার সন্ধ্যার পর পত্রিকা অফিসে বার্তা সম্পাদকের ভূমিকায় কাজ করি। অথচ সাংবাদিক সংগঠনগুলোতে আমাদের কোন স্থান নেই। আবার কেও কেও মেইল থেকে অন্যের নিউজ কপি পেস্ট করে নিজের নামে ছেপে দিচ্ছে।  সাতক্ষীরার প্রথম সংবাদপত্র দৈনিক কাফেলায় আমি ২০০৯ সালে ‘শহর প্রতিনিধি’ হিসেবে কাজ শুরু করি। পরবর্তী বছর থেকে স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছিলেন দৈনিক কাফেলার প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আব্দুল মোতালেব’র ছেলে প্রিয় ব্যক্তিত্ব এটিএম শফিক উৎপল। কয়েকদিন ধরে যাচাই-বাছাই, বিভিন্ন প্রতিবেদন তৈরিসহ অনেক দায়িত্ব তিনি দিতেন। ভেবেছিলাম আজীবন এই পত্রিকায় কাজ করবো। কিন্তু হটাৎ পত্রিকাটির প্রকাশনা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর কিছুদিন দৈনিক দক্ষিণের মশাল ও প্রায় দুবছর দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় নিজস্ব প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেছি।


মুক্তিযোদ্ধা শহীদ সম আলাউদ্দীন’র প্রতিষ্ঠিত পত্রিকাটি সাতক্ষীরার সর্বস্থরের মানুষের প্রিয় একটি পত্রিকা। মাঝে মাঝে পত্রিকায় কোন গরম খবর থাকলে শহরে আর পত্রিকা পাওয়া যায় না। এরপর কিছুদিন একটা প্রাইভেট কোম্পানীতে চাকুরি করার পর আবার সাতক্ষীরায় ফিরে দৈনিক কালেরচিত্র পত্রিকায় কাজ শুরু করি। বর্তমানে স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত রয়েছি। একই সাথে ভয়েস অব সাতক্ষীরা, দৈনিক নতুন কাগজ, দৈনিক কালের চাকা, সাতক্ষীরা নিউজ, সাতক্ষীরা জার্নাল, লেখাপড়া টোয়েন্টিফোর ডট কম, ক্যাম্পাস লাইভ, নিউজ জিসহ অনেক পত্রিকা এবং অনলাইন পত্রিকায় কাজ করি। পড়াশুনার পাশাপাশি সাংবাদিকতা পেশায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত হতে অনেক ত্যাগ-তিতিক্ষাও করতে হয়েছে। অনেক বাঁধার মুখেও সাতক্ষীরা সরকারি কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে অনার্স-মাস্টার্স শেষ করে সাংবাদিকতাকে ক্যারিয়ার হিসেবে নিয়েছি। আমার দীর্ঘ বেকার জীবনের মাঝেও আমি ধরে রেখেছি সাংবাদিকতা পেশাকে। কিন্তু এভাবে আরো কিছুদিন গেলে হয়তো এ পেশায় আগ্রহ থাকবে না। কারণটাও নিশ্চয় আপনারা বুঝতে পেরেছেন। সমাজ থেকে হলুদ সাংবাদিকতা পরিহার করতে হবে। সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধতার মাধ্যমে অপসাংবাদিকতা রুখতে হবে।  সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় তার অর্ধেক জীবন গ্রন্থে লিখেছেন, ‘আমি আমার বিস্তর কবিতায় ও গল্প উপন্যাসে নিজের জীবনকে ব্যবহার করেছি টুকরো টুকরোভাবে। এখানে শুধু একটু একটু করে ছুঁয়ে গেছি মাত্র।’ আমার জীবনে অনেক প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছি। সবখানে কিছু সমস্যা দেখা যায়।


বেশিই ভাগ প্রতিষ্ঠানে অযোগ্যরাই মালিকের প্রিয় কর্মী। সাতক্ষীরা সরকারি কলেজ সাংবাদিক ইউনিয়ন এখন বিলুপ্তি হয়ে গেছে। আমরা কলেজে থাকাকালীন এই সংগঠনটির অনেক ভূমিকা ছিল। প্রথমে দুটি গ্রুপ পরে আর কেও নেই। এভাবে যদি সাংবাদিক সমাজ/ সংগঠন বিলুপ্তি হয় তাহলে সমাজের অন্যায়-অবিচার আরো বেড়ে যাবে। সরকারে উচিত মুজিববর্ষেই সারাদেশে সাংবাদিকদের তালিকা করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে প্রেসক্লাবে অন্তর্ভূক্ত করা। তাহলে সরকারে উন্নয়ন কাজে সাংবাদিকরা ভূমিকা রাখতে পারবে।  সাংবাদিকতায় পড়াশুনা করলেও এসব বিষয়ে অনেকেই অজানা। তবে আমার লেখার ভিতরে আমি প্রকৃত সাংবাদিকদের সম্মান রক্ষার দাবীতে যদি ভুল কিছু বলে থাকি তাহলে আপনারা সুধরে দিবেন, আমি কৃতজ্ঞ থাকবো। বিষয়গুলো আমার নিজস্ব চিন্তাধারায় লেখা। কারও প্ররোচনা বা আদেশে কিন্তু আমি এগুলো লিখিনি। একান্ত নিজের বাস্তবতার কিছু অভিজ্ঞতা মাত্র। সংবাদপত্রকে সমাজের দর্পন বলা হয়। অথচ সেই দর্পনের ভেতরেই যদি আবর্জনা থাকে তবে এর প্রতিফলন অস্বচ্ছ হওয়াই স্বাভাবিক।


  বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘সারাদেশের সাংবাদিকদের ডাটাবেজ তৈরি করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে গণমাধ্যম মালিক, সম্পাদক ও সাংবাদিক নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করা হচ্ছে। সাংবাদিকদের নূন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক পাস হওয়া উচিত। ডাটাবেজের আওতায় আনতে পারলে অপসাংবাদিকতা বন্ধ হবে। ডাটাবেজ তৈরিতে প্রথম দিকে ভুলভ্রান্তি থাকতে পারে। তবে শুরুটা আমরা করতে চাই।’  আমি সাংবাদিকতা শুরুর এক বছর আগে ২০০৮ সালে মাসিক সাহিত্যপাতার প্রকাশনা শুরু করি। পরবর্তীতে আরো অনেক সাহিত্য-সামাজিক সংগঠনে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। এখনও বহু সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে কাজ করে যাচ্ছি। শিল্প-সাহিত্য ও সাংবাদিকতায় অনেক নতুন মুখ এসেছে, তাদেরও সুযোগ দিতে হবে।


সবায়কে নিয়ে এই মুজিববর্ষে একটি মিলনমেলা করার কথাও ভাবছিলাম। আমাদের জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল মহোদয় সাতক্ষীরায় মুজিব বর্ষের যেসব আয়োজন করছেন তাতে মনে হয় সাতক্ষীরা জেলা মুজিববর্ষ পালনে সেরা তালিকায় থাকবে। আমরা চাই সকলে মিলে মুজিব বর্ষকে আরো সুন্দরভাবে সাজিয়ে সহযোগিতা করতে। জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল শুধু একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা নন, তিনি একজন সুসাহিত্যিকও বললে ভুল হবে না। অফিসের কাজের মধ্যেও তিনি উপজেলা থেকে উপজেলায় ছুটে চলেছেন সাতক্ষীরার উন্নয়নে। ক্লিন সাতক্ষীরা, গ্রিন সাতক্ষীরা বাস্তবায়নে এবং প্রাণ সায়ের খালের দুধারে সৌন্দর্য্যবর্ধনের চিন্তাও তিনি করেছেন। যাহোক আগামী দিনে সাতক্ষীরার সর্বস্তরের নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে বসবাস করার দাবী রাখছি এবং অপশক্তি আর অপসাংবাদিকতা থেকে সমাজকে কলঙ্কমুক্ত করতে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি। মুজিববর্ষে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।    লেখক: সংবাদকর্মী

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

রৌমারীতে ভেজাল কিটনাশক বিক্রেতাকে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩ মাসের কারাদন্ড

রৌমারীতে ভেজাল কিটনাশক বিক্রেতাকে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩ মাসের কারাদন্ড

কে পাচ্ছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব

কে পাচ্ছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব

শিবগঞ্জে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা

শিবগঞ্জে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা

ইলিশ ধরা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত

ইলিশ ধরা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত

অবশেষে যুদ্ধাপরাধের কথা স্বীকার মিয়ানমার সেনাবাহিনীর

অবশেষে যুদ্ধাপরাধের কথা স্বীকার মিয়ানমার সেনাবাহিনীর

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিথীকা বিশ্বাস

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিথীকা বিশ্বাস

মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, কনস্টেবলকে ধরে পুলিশে সোপর্দ

মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, কনস্টেবলকে ধরে পুলিশে সোপর্দ

দেশভাগের আগে বন্ধ হয়ে যাওয়া রেলপথগুলো চালুর উদ্যোগ

দেশভাগের আগে বন্ধ হয়ে যাওয়া রেলপথগুলো চালুর উদ্যোগ

২৭ হাজার প্রবাসীর আকামা বাতিল

২৭ হাজার প্রবাসীর আকামা বাতিল

বিলুপ্ত প্রায় শরিফা ফল চাষ

বিলুপ্ত প্রায় শরিফা ফল চাষ

ফেসবুক লাইভে ঘোষণা দিয়ে আত্মহত্যা

ফেসবুক লাইভে ঘোষণা দিয়ে আত্মহত্যা

কাহালুতে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু

কাহালুতে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু

অভিনব পদ্ধতিতে বৈদ্যুতিক মিটার চুরি

অভিনব পদ্ধতিতে বৈদ্যুতিক মিটার চুরি

রাতভর সংঘর্ষে রক্তাক্ত আফগানিস্তান, নিহত অর্ধশত

রাতভর সংঘর্ষে রক্তাক্ত আফগানিস্তান, নিহত অর্ধশত

বেশকিছু রাষ্ট্রে রাষ্ট্রপ্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে রানী এলিজাবেথ

বেশকিছু রাষ্ট্রে রাষ্ট্রপ্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে রানী এলিজাবেথ

সর্বশেষ

ইয়াবাসহ বাসযাত্রী গ্রেপ্তার

ইয়াবাসহ বাসযাত্রী গ্রেপ্তার

সাংবাদিকদের বল দখলের লড়াই

সাংবাদিকদের বল দখলের লড়াই

আল্লামা শফি ইন্তেকাল করেছেন

আল্লামা শফি ইন্তেকাল করেছেন

পাইকগাছায় সংসদ সদস্য বাবু’র সুস্থতা কামনা করে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

পাইকগাছায় সংসদ সদস্য বাবু’র সুস্থতা কামনা করে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

পাইকগাছায় নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত

পাইকগাছায় নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত

পাইকগাছা উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছড়াছড়ি: বিএনপি’র একক

পাইকগাছা উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছড়াছড়ি: বিএনপি’র একক

বাঘারপাড়ায় স্বাস্থ্য সহকারীদের টেকনিক্যাল পদমর্যাদার দাবীতে সভা অনুষ্ঠিত

বাঘারপাড়ায় স্বাস্থ্য সহকারীদের টেকনিক্যাল পদমর্যাদার দাবীতে সভা অনুষ্ঠিত

পাইকগাছায় ভ্রাম্যমান আদালতে দুই ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

পাইকগাছায় ভ্রাম্যমান আদালতে দুই ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

কাঠালিয়া উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন

কাঠালিয়া উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, নোটিশ না দেয়ার অভিযোগ ক্ষতিগ্রস্তদের

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, নোটিশ না দেয়ার অভিযোগ ক্ষতিগ্রস্তদের

শিক্ষকদের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা-অধ্যাপক ড.জাফর ইকবাল

শিক্ষকদের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা-অধ্যাপক ড.জাফর ইকবাল

প্রাথমিক বিদ্যালয় নীতিমালায় পরিবর্তন আসছে

প্রাথমিক বিদ্যালয় নীতিমালায় পরিবর্তন আসছে

নদী থেকে লক্ষাধিক টাকার অবৈধ নেট জাল উদ্ধার

নদী থেকে লক্ষাধিক টাকার অবৈধ নেট জাল উদ্ধার

কিশোরগঞ্জে চারটি কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক নারী

কিশোরগঞ্জে চারটি কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক নারী

যুক্তরাষ্ট্রে দাবানলের ভয়াবহতা

যুক্তরাষ্ট্রে দাবানলের ভয়াবহতা