Feedback

জেলার খবর, নারী ও শিশু

রংপুরের প্রতিবেশীর সহায্যে ধর্ষণের হাত থেকে রক্ষা পেল যুবতী

রংপুরের প্রতিবেশীর সহায্যে ধর্ষণের হাত থেকে রক্ষা পেল যুবতী
September 10
03:00pm
2020
Md Hamidur Rahman
Saddar, Rangpur:
Eye News BD App PlayStore

বর্তমানে করোনা কালে ধর্ষকদের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। যখন করোনার কারণে মানুষ গৃহ বন্দি আর প্রসাশন যখন করোনা নিয়ে কাজে ব্যাস্ত আর সেই সুযোগটাই কাজে লাগাচ্ছে অসাধু ব্যাক্তি বা ধর্ষকরা বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। জানা যায়, রংপুর জেলার সদ্যপুস্করিনী ইউনিয়নের অজোপাড়া গাঁ বড়ভিটায় পাড়া প্রতিবেশী মামী ও তার ছেলের সহযোগীতায় ধর্ষিতা হবার হাত থেকে বেচে যায় জোসনা (১৮) ( ছদ্দ নাম) নামে যুবতী। 



এলাকাবাসী জানান, জোসনা (ছদ্দ নাম) এর নানী কাঞ্চনমালা মাদক আইনে সদর কোতয়ালী থানায় লাইলী বেগম সহ দুই নারীকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। সেই কারণে বাসায় একাই অবস্থান  করছে জোসনা। আর সেই সুযোগ কাজেই লাগাতে চেয়েছিল একই গ্রামের ছমির উদ্দীনের (৬৫)  ছেলে নুুর ইসলাম (২৫)। এলাকাবাসী আরো জানান, নুর ইসলামের এই ঘটনা নুতুন নয়। এর আগেও নুর ইসলাম এই রকম একাধিক ঘটনা ঘটিয়ে ছিল এবং বার বার টাকার জোরে বেচে গেছে। নুর ইসলাম শুধু নারী কেলেংকারীতে যুক্ত নয় মাদক (গাঁজা, ইয়াবা ও চোলাই মদ বা বাংলা মদ) বিক্রি করে বলে জানান এলাকাবাসী। তবে এলাকাবাসির দাবী হল নুর ইসলামের যেন কঠিন থেকে কঠিনতর শাস্তী হয় । যাতে করে সেই এলাকার  অল্প বয়সী মেয়ে থেকে শুরু করে যুবতী ও বয়স্ক মহিলারা যেন স¦াধীন এবং  নির্ভয়ে সেখানে যেন বাসবাস করতে পারে।


জোসনা জানান, আমি গত সোমবার প্রায় সাড়ে ১০ টার সময় টিভি দেখে ঘুমায়ে পড়ি। প্রায় রাত সাড়ে ৩ টার সময় আমার দরজায় এসে জোসনা জোসনা বলে কে বার বার ডাক দেয়। আমি দরজা খুলে দেখি নুর ইসলাম। নুর ইসলাম আমার সম্পর্কে মামা হয়। দরজা খুলা মাত্রই নুর ইসলাম আমার মুখ চেপে ধরে আমাকে মাটিতে শুইয়ে আমার সাথে জোড়া জোড়ি করে। আমি কোন রকম তার হাত আমার মুখ থেকে সরিয়ে চিৎকার করলে। পাশের বাড়ীর মামি (লতিফা) ও তার ছেলে মতিন এসে আমাকে উদ্ধার করে তাদের বাসায় নিয়ে যায়।  এবং ছেলেকে ধরে নিয়ে তার বাবার হাতে তুলে দেয় আর বলে এবার কি বলবেন আপনার ছেলে নাকি মানুষের বাসায় ঢোকে না। বলে ছেলেকে ছেলের বাবার হাতে তুলে দেয়। তিনি আরো জানান, লতিফা তার বাসায় নিয়ে তাকে অনেক বোঝায় যেন এ ঘটনা কাউকে না জানাই। তার পরে আমি তাদের কথা না শুনে  আমি আমার খালা নাছিমা ও তার স¦ামী আনোয়ারকে জানাই। এবং আমাদের থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করি। জোসনা আরো জানায়, ছমির উদ্দিন তার ছেলেকে রাতারাতি ঢাকা পাঠিয়ে দেয় এবং বলে আমি স্থানীয় দেওয়ানীদের ২০ হাজার টাকা আর থানায় ৩০ হাজার টাকা দিয়ে মামলা খেয়ে ফেলবে।


তবে এই বিষয়ে নুর ইসলামদের ভয়ে কিছু বলতে চায়নি লতিফা। আর তার ছেলে মতিন এর খোঁজ করলে জানান মতিন বাসায় নেই কাজে গেছে। সদর কোতয়ালী থানার এএসআই কমল চন্দ্র জানান, এই ঘটনায় জোসনা আমার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে। আমরা ঘটনা স্থলে গিয়ে তদন্ত করেছি। ভিকটিম থানায় আসলে আমরা মামলা রেকর্ড করব। তবে আসামী পালাতক থাকায় আমাদের একটু সমস্যা হচ্ছে। তবে আসামীকে ধরার প্রক্রিয়া চলছে। এই ঘটনার ছমির উদ্দিন ও তার পরিবার এর সাথে বাবার কথা বলতে চাইলে তিনি বাড়ীর মেইন দরজাতে তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। এবং পরে এই নিউজটি প্রকাশ না করার জন্য বিভিন্ন মহল থেকে চাপ দিতে থাকে। তবে নুর ইসলামের ঢাকায় আছে সেটি নিশ্চিত করে  আমাদের জানান তার বড় বোন।


All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বগুড়ায় নেশা ও যৌন উত্তেজক ঔষধ অত:পর

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ মার্কিন নীতি

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

আমতলীতে দুই একর জমির রোপা আমনের চারা উপড়ে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

পাবনা-৪ আসনে ভোট চলছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ধর্ষণের অভিযোগ: বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের গঠিত তদন্ত কমিটির সময় বেড়েছে

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে প্যাকেটে ভরে বিক্রি

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে, অনশন করা সেই প্রেমিকার

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

একশ দেশের গানে শেখ মিলন

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

সিলেটে তরুণী ধর্ষণ, পুলিশ খুঁজছে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকে

খালেদার উন্নত চিকিৎসা: দল ও পরিবারের দুই মত

খালেদার উন্নত চিকিৎসা: দল ও পরিবারের দুই মত

কি অপরাধ ছিলো আদিবাসী মেয়েটির

কি অপরাধ ছিলো আদিবাসী মেয়েটির

কৃষি কর্মকর্তা পদে প্যানেলে নিয়োগের দাবীতে দ্বিতীয় দিনে অনির্দিষ্টকালের অবস্থান

কৃষি কর্মকর্তা পদে প্যানেলে নিয়োগের দাবীতে দ্বিতীয় দিনে অনির্দিষ্টকালের অবস্থান

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

ধর্ষণ এবং রাষ্ট্রের দায়

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল এমসি কলেজ

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের দাবীতে  এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

নওগাঁর মান্দায় বিয়ের দাবীতে এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

সর্বশেষ

ধনীদের গ্লুকোজ খেয়ে ব্যাটিংয়ে নামতে বললেন সেওয়াগ!

ধনীদের গ্লুকোজ খেয়ে ব্যাটিংয়ে নামতে বললেন সেওয়াগ!

''মৃত্যুর আগে দিশাকে শোবার ঘরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়'', বললেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

''মৃত্যুর আগে দিশাকে শোবার ঘরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়'', বললেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

অপরাধী ঠান্ডা ঘরে বসে রয়েছে, আর আমি পুলিশের জেরার মুখোমুখি হচ্ছি: পায়েল ঘোষ

অপরাধী ঠান্ডা ঘরে বসে রয়েছে, আর আমি পুলিশের জেরার মুখোমুখি হচ্ছি: পায়েল ঘোষ

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

স্বামীর জন্য রক্ত যোগাড়ের কথা বলে নিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’

ভারতে ১৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু,  মাথায় হাত ব্যবসায়ীদের

ভারতে ১৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু, মাথায় হাত ব্যবসায়ীদের

সুশান্তের সাথে ঘনিষ্ঠতার কথা স্বীকার করলেন সারা আলি খান

সুশান্তের সাথে ঘনিষ্ঠতার কথা স্বীকার করলেন সারা আলি খান

মসজিদ কমিটি নিয়ে হামলা  আহত সভাপতির ছেলে

মসজিদ কমিটি নিয়ে হামলা আহত সভাপতির ছেলে

রাজশাহীতে কৃষি সাংবাদিকতায় দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালা

রাজশাহীতে কৃষি সাংবাদিকতায় দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালা

মাল থেকে মাছ সবই খাই! নির্ঘাত সবাই জেলে যাবে:- স্বস্তিকা

মাল থেকে মাছ সবই খাই! নির্ঘাত সবাই জেলে যাবে:- স্বস্তিকা

বেশি বেশি গাছ লাগানোর আহ্বান জানালেন বাদশা

বেশি বেশি গাছ লাগানোর আহ্বান জানালেন বাদশা

কৃষকদের ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলার অভিযোগে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা

কৃষকদের ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলার অভিযোগে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা

এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ‘ধর্ষণকারীদের’ আত্মপক্ষ সমর্থন!

এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ‘ধর্ষণকারীদের’ আত্মপক্ষ সমর্থন!

বিধ্বস্ত-আতংকিত ধর্ষণের শিকার সেই তরুণী

বিধ্বস্ত-আতংকিত ধর্ষণের শিকার সেই তরুণী

রেক্টাল ক্যান্সারে জয়পুরহাটে র‌্যাব সদস্যের মৃত্যু।

রেক্টাল ক্যান্সারে জয়পুরহাটে র‌্যাব সদস্যের মৃত্যু।