Feedback

সিলেট, জেলার খবর

সিসিকের সেই সভাতেই আটকে আছে ‘কামরান চত্বর’!

সিসিকের সেই সভাতেই আটকে আছে ‘কামরান চত্বর’!
September 09
11:10pm
2020
Md. Sorif Uddin
Zakiganj, Sylhet, প্রতিনিধি:
Eye News BD App PlayStore

‘কামরান চত্বর’ নিয়ে গত জুলাই মাসের শেষদিকে টানা তিন দিন উত্তাল ছিলো সিলেট নগরী। কিন্তু ওই আন্দোলন-সভা-মিছিল আর একটি ছোট সাইনবোর্ড টানানো পর্যন্তই- এক মাসের অধিক সময় পেরিয়ে গেলেও ‘নগর চত্বরকে’ ‘কামরান চত্বরে’ স্থায়ী রূপ দিতে নেয়া হয়নি কোনো উদ্যোগ। বাস্তবায়নে গঠিত কমিটি চালায়নি কোনো কার্যক্রম। তথ্যটি নিশ্চিত করেছে সিসিক সূত্র।

কয়েক মাসের সংস্কার কাজ শেষে দৃষ্টিনন্দন করে তৈরির পর সিলেট সিটি করপোরেশন তথা নগর ভবনের সামনের পয়েন্টটিকে গত ২৬ জুলাই সন্ধ্যারাতে ‘নগর চত্বর’ হিসেবে উদ্বোধন করেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। যে চত্বরটি আগে ‘সিটি পয়েন্ট’ নামে পরিচিত ছিলো। উদ্বোধনের পর ক্ষোভে ফেটে পড়েন সিলেট ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা। পরদিন ২৭ জুলাই দুপুরে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের শতাধিক নেতাকর্মী মিছিল সহকারে এসে উদ্বোধন হওয়া ‘নগর চত্বর’ সাইনবোর্ড খুলে ‘কামরান চত্বর’ লেখা নতুন সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেন।

এর পরদিন সিলেট সিটি করপোরেশনের মাসিক সভায় ‘নগর চত্বরকে’ ‘কামরান চত্বর’ করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সিসিকের ২৮ জুলাইয়ের সভার শুরুতেই এই চত্বর নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সার্বিক বিষয় তুলে ধরেন এবং দ্রুত এটি কামরান চত্বর হিসেবে ঘোষণার দাবি জানান পরিষদের বেশিরভাগ কাউন্সিলর। এ দাবির সঙ্গে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ পরিষদের কেউই দ্বিমত পোষণ করেননি। তাই নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত হয়, নগর চত্বরকে স্থায়ীভাবে করা হবে কামরান চত্বর।

এ বিষয়ে সিসিক’র প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান ওইদিন সিলেটভিউ-কে বলেন, দীর্ঘ আলোচনা এবং পরিষদের সবার সম্মতিক্রমে নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে- নগর ভবনের সামনের চত্বরটি কামরান চত্বরই হবে। এ বিষয়ে দ্রুত ফাইল রেডি করে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে এবং অনুমোদন পেলেই এটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘কামরান চত্বর’ হিসেবে ঘোষণা করা হবে।

এদিকে, ওই সভার পরপরই বদর উদ্দিন আহমদ কামরানসহ সিলেটের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নামে বিভিন্ন সড়ক ও স্থাপনার নামকরণের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটির প্রধান করা হয় সিলেটে সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে। কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়ার কথা থাকলেও কার্যক্রম সেই কমিটি গঠন পর্যন্তই। এরপর আর কামরান চত্বরসহ অন্যান্য স্থাপনা ও সড়কের নামকরণ নিয়ে কমিটির কোনো বৈঠকই হয়নি, নেয়া হয়নি কোনো উদ্যোগ। এমনকি কোনো রেজুলেশনই তৈরি করা হয়নি।

কামরান চত্বর প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী সিলেট মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান মুক্তি বললেন, এ বিষয়ে আর খোঁজ-খবর নেয়া হয়নি। মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত ফাইল পাঠানোর বিষয়ে সিসিকের সভায় সিদ্ধান্ত হয়- সর্বশেষ এটুকু পর্যন্ত জানি। এ বিষয়ে সিসিক’র প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে আসলে কোনো অগ্রগতি নেই। কমিটি গঠন হয়েছে ঠিকই, তবে কমিটি পরবর্তীতে কোনো বৈঠক করেনি। কামরান চত্বরের বিষয়টি প্রস্তাবনা আকারে মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর কথা থাকলেও পাঠানো হয়নি কিংবা এ বিষয়ে কোনো রেজুলেশন তৈরি করা হয়নি।

কমিটির কার্যক্রম আটকে আছে কোন কারণে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি আসলে সঠিক জানি না- কেন এই স্থবিরতা। উল্লেখ্য, সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান গত ১৫ জুন মারা যান। করোনাক্রান্ত হয়ে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। পরদিন সোমবার তার মরদেহ সিলেটে এনে মানিক পীর কবরস্থানে দাফন করা হয়।


আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে নির্বাহী সদস্য পদে আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আর সিলেট সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে প্রথম নির্বাচনে তিনি মেয়র হয়েছিলেন। পরের দফায়ও একই পদে কারাগার থেকে নির্বাচিত হন কামরান। নিজের জীবনের প্রায় দুই ভাগ সময়ই (৪১ বছর) তিনি জনপ্রতিনিধি হিসেবে কাটিয়েছেন। ১৯৫৩ সালে জন্ম নেয়া বদর উদ্দিন আহমদ কামরান মাত্র ১৯ বছর বয়সে ১৯৭২ সালে তৎকালীন সিলেট পৌরসভার কমিশনার নির্বাচিত হন। এরপর কমিশনার থেকে হন পৌরসভার চেয়ারম্যান। পৌর চেয়ারম্যান থেকে দু’বারের সিটি মেয়রও ছিলেন তিনি।

সিলেটে ব্যাপক জনপ্রিয় কামরানের মৃত্যুর পর তাঁর স্মৃতি ধরে রাখার বিষয়ে জোরালো দাবি ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষও সেই দাবিতে শামিল হন। সে সময় সবার দাবির সাথে একমত ছিলেন বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীও। কামরানের স্মৃতি ধরে রাখতে ‘কিছু একটা করা হবে’ বলে জানিয়েছিলেন তিনি। এর পরিপ্রেক্ষিতে দল-মত নির্বিশেষ সকলের প্রত্যাশা ছিলো- সিটি পয়েন্টকে উদ্বোধনের সময় ‘কামরান চত্বর’ হিসেবে ঘোষণা দিবেন আরিফ, কিন্তু গত ২৬ জুলাই সে আশার গুড়ে যেন বালি ঢেলে দেন বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী। অবশেষে দুই দিনে অনেক জল ঘোলা করে ২৮ জুলাই সিসিক পরিষদের সভায় নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত হয়, নগর চত্বরই হচ্ছে কামরান চত্বর। এটি বাস্তবায়নে সেদিন আরিফুল হক চৌধুরীও সম্মতি জানিয়ে কমিটি গঠন করেন। কিন্তু বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন সেই কমিটি আজ পর্যন্ত কার্যত নিষ্ক্রিয় রয়েছে।

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

২৭ হাজার প্রবাসীর আকামা বাতিল

২৭ হাজার প্রবাসীর আকামা বাতিল

ফেসবুক লাইভে ঘোষণা দিয়ে আত্মহত্যা

ফেসবুক লাইভে ঘোষণা দিয়ে আত্মহত্যা

যুদ্ধাপরাধ মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির মৃত্যু

যুদ্ধাপরাধ মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির মৃত্যু

প্রাথমিক বিদ্যালয় নীতিমালায় পরিবর্তন আসছে

প্রাথমিক বিদ্যালয় নীতিমালায় পরিবর্তন আসছে

আল্লামা আহমেদ শফীর জানাজা সময় ও স্থান

আল্লামা আহমেদ শফীর জানাজা সময় ও স্থান

সাঘাটায় শিশূ ধর্ষণের ধর্ষক ৯ বছরের শিশু সংশোধনাগারে

সাঘাটায় শিশূ ধর্ষণের ধর্ষক ৯ বছরের শিশু সংশোধনাগারে

মৌলভীবাজার নির্বাচনে লড়বেন লুৎফুর রহমান সুইট

মৌলভীবাজার নির্বাচনে লড়বেন লুৎফুর রহমান সুইট

আল্লামা শফি ইন্তেকাল করেছেন

আল্লামা শফি ইন্তেকাল করেছেন

রাতভর সংঘর্ষে রক্তাক্ত আফগানিস্তান, নিহত অর্ধশত

রাতভর সংঘর্ষে রক্তাক্ত আফগানিস্তান, নিহত অর্ধশত

আল্লামা আহমদ শফির চিরপ্রস্থানে দেশময় শোকের ছায়া

আল্লামা আহমদ শফির চিরপ্রস্থানে দেশময় শোকের ছায়া

অভিনব পদ্ধতিতে বৈদ্যুতিক মিটার চুরি

অভিনব পদ্ধতিতে বৈদ্যুতিক মিটার চুরি

২ বাস ও মাইক্রোর সংঘর্ষে চারজন নিহত, আহত ২০

২ বাস ও মাইক্রোর সংঘর্ষে চারজন নিহত, আহত ২০

ইয়াবাসহ বাসযাত্রী গ্রেপ্তার

ইয়াবাসহ বাসযাত্রী গ্রেপ্তার

স্ত্রীকে কুপিয়ে ৯৯৯ এ ফোন দেন পাষণ্ড স্বামী

স্ত্রীকে কুপিয়ে ৯৯৯ এ ফোন দেন পাষণ্ড স্বামী

স্ত্রীকে কুপিয়ে ৯৯৯-এ ফোন আওয়ামী লীগ নেতার

স্ত্রীকে কুপিয়ে ৯৯৯-এ ফোন আওয়ামী লীগ নেতার

সর্বশেষ

৯ বছরে ৯টি বিয়ে, অবশেষে ধরা পড়লেন গার্মেন্ট শ্রমিক

৯ বছরে ৯টি বিয়ে, অবশেষে ধরা পড়লেন গার্মেন্ট শ্রমিক

পাকিস্তানের জন্য প্রাণ দিতে চেয়ে মুহূর্তে ভাইরাল মিয়া খলিফা

পাকিস্তানের জন্য প্রাণ দিতে চেয়ে মুহূর্তে ভাইরাল মিয়া খলিফা

আজ প্রয়াত নায়ক "সালমান শাহ" এর ৪৯ তম জন্মদিন

আজ প্রয়াত নায়ক "সালমান শাহ" এর ৪৯ তম জন্মদিন

অনিশ্চয়তা কাটছে এইচএসসি নিয়ে

অনিশ্চয়তা কাটছে এইচএসসি নিয়ে

অর্থের মিনিময়ে উপজেলা ছাত্রদল কমিটি ঘোষনার অভিযোগ

অর্থের মিনিময়ে উপজেলা ছাত্রদল কমিটি ঘোষনার অভিযোগ

নয় বছরে নয় বিয়ে, বিয়ের প্রতিশ্রুতি আরও ৪ জনের!!

নয় বছরে নয় বিয়ে, বিয়ের প্রতিশ্রুতি আরও ৪ জনের!!

‘মুছা বন্ড’ রিফাত শরীফ হত্যার অন্যতম আসামি এখনও অধরা

‘মুছা বন্ড’ রিফাত শরীফ হত্যার অন্যতম আসামি এখনও অধরা

মৌলভীবাজারের সাংবাদিক রাধিকা মোহন গোস্বামী স্মৃতিপদক প্রদান

মৌলভীবাজারের সাংবাদিক রাধিকা মোহন গোস্বামী স্মৃতিপদক প্রদান

করোনায় আরো ৩২ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৫৬৭ জন

করোনায় আরো ৩২ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৫৬৭ জন

গৃহকর্মীদের উপর অত্যাচার এ কেমন পাশবিকতা! মোহাম্মদ হেলালুজ্জামান

গৃহকর্মীদের উপর অত্যাচার এ কেমন পাশবিকতা! মোহাম্মদ হেলালুজ্জামান

নদীতে বিলীন হলো মসজিদ

নদীতে বিলীন হলো মসজিদ

আওয়ামী লীগের কেমিস্ট্রি হচ্ছে আমি ছাড়া আর কেউ নেই : মির্জা ফখরুল

আওয়ামী লীগের কেমিস্ট্রি হচ্ছে আমি ছাড়া আর কেউ নেই : মির্জা ফখরুল

বাজারে আসছে পরিবেশবান্ধব "সোনালী ব্যাগ"

বাজারে আসছে পরিবেশবান্ধব "সোনালী ব্যাগ"

এ কেমন হাতিরঝিল!

এ কেমন হাতিরঝিল!

মাকে হারিয়ে অপু বিশ্বাসের আবেগঘন স্ট্যাটাস

মাকে হারিয়ে অপু বিশ্বাসের আবেগঘন স্ট্যাটাস