Feedback

বিনোদন

ঠাকুরগাঁওয়ের সিনেমাহলে 'সিনেমা' দেখা সংস্কৃতি বিলুপ্ত প্রায়

ঠাকুরগাঁওয়ের সিনেমাহলে 'সিনেমা' দেখা সংস্কৃতি বিলুপ্ত প্রায়
September 08
04:00am
2020

আই নিউজ বিডি ডেস্ক Verify Icon
Eye News BD App PlayStore
অব্যাহত লোকসানের মুখে বন্ধ হয়ে গেছে ঠাকুরগাঁওয়ের সিনেমা হলগুলো। জেলার ১৬টি সিনেমা হলের মধ্যে ১৪টি সিনেমা হল ইতোমধ্যে বন্ধ হয়েছে গেছে। যে দুইটি হল চালু থাকলেও সেখানে নেই দর্শকের সাড়া। নিম্নমানের ছবি প্রদর্শন ও ইন্টারনেট সুবিধার আসার পর থেকে হলগুলো দর্শক হারিয়েছে। করোনা সেই সংকটে শেষ পেরেক ঠুকে দিয়েছে। এখন বন্ধ হওয়া হলগুলো ভেঙে বসতবাড়ি, বিদ্যালয় কিংবা মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে মহাসমারোহে ঠাকুরগাঁওয়ের সিনেমা দেখার সংস্কৃতি বিলুপ্ত প্রায়। হল মালিকরা বলছেন, সরকারি সহায়তা না পাওয়ায় ঠাকুরগাঁওয়ে হল চালান সম্ভব নয়। প্রশাসন বলছে, সিনেমা হলগুলোকে পুণরায় চালু করতে আর্থিক সহায়তাসহ সবকিছু করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে তারা।


সোমবার জেলা সদর ঘুরে দেখা যায়, শহরের বলাকা সিনেমা হল বন্ধ করে সেখানে করা হয়েছে সিমেন্টের গোডাউন ঘর। মৌসুমী সিনেমা হলটিকে করা হয়েছে স্কুল। মার্কেটে রূপান্তরিকত করা হয়েছে আলেয়া সিনেমা হলকে। অন্য সিমেনা হলের কোন চিহ্নই পাওয়া যায়নি। সিমেনা হলগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়া কর্মহীন হয়ে পড়েছে অনেকে। বর্তমানে জেলার রাণীশংকৈল উপজেলায় ১টি ও পীরগঞ্জ উপজেলায় ১টি সিনেমা হল চালু আছে বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা। ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী। তিনি বলেন, ৫টি উপজেলা নিয়ে গঠিত ঠাকুরগাঁও জেলা। একসময় এখানে ১৬টি সিমেনা হল চালু ছিল। দর্শক হারানোর কারণে ১৪টি সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেছে। বর্তমানে চালু রয়েছে দুইটি। তাও বন্ধের পথে।


জেলার সাংস্কৃতিককর্মী মাসুদ আহম্মেদ সুবর্ণ। স্মৃতি হাতড়ে তিনি বলেন, একসময় ‘বেদের মেয়ে জোসনা’, ‘রুপবান’, ‘কিরণমালা’, খায়রুন সুন্দরী সিনেমা দেখার জন্য প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে দর্শকরা মিনিবাস, ট্রাক্টর, পিকআপ বা ভ্যান ভাড়া করে ঠাকুরগাঁওয়ের সিমেনা হলগুলোতে আসতো। উপচে পড়া দর্শকের টিকিট পাওয়া নিয়ে চলত প্রতিযোগিতা। সিনেমা প্রেমীদের ভিড় সামাল দিতে হিমশিম খেতে হতো হল মালিকদের। তখন জেলার সবকটি সিনেমা হল সারা বছরই থাকত জমজমাট। ঠাকুরগাঁওয়ের সিনেমা হলের সেই সোনালি অতীত এখন ইতিহাস মাত্র।


শহরের হাজীপাড়া এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী জাকির হোসেন তিনি বলেন, সিনেমা হলগুলোতে নিম্মমানের ছবি প্রদর্শন, নোংরা পরিবেশ হওয়ার কারণে দর্শক মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। মানুষ এখন ঝুঁকে পড়েছে ইন্টারনেট জগতে। পুরনো দিনের সিনেমাগুলো ভুলতে বসেছে সাধারণ মানুষ। বর্তমান প্রজন্ম এক সময় সিনেমা হল বলতে কোনো জিনিস ছিল সেটা বলতেই পারবে না। জেলা উদীচী শিল্পগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক রিজু তিনি বলেন, হলগুলোকে পুরনো রূপে ফিরিয়ে আনতে হলে উন্নত মানের সিনেমা তৈরি করতে হবে। যাতে দর্শকরা আবারো হলমুখি হয়। তাতে সমাজের মানুষের মধ্যে আন্তরিক যোগাযোগ তৈরি হবে। সিনেমা হলগুলোকে পুণরায় চালু করতে সরকারের উদ্যোগ নেওয়া দরকার।


বলাকা সিনেমা হলের কর্মচারী রফিকুল ইসলাম বলেন, সিমেনা হলটি যখন চালু ছিল সেখানে কাজ করে অর্থ উপার্জন করে সংসার চলতো। লোকসান হওয়ায় মালিক হলটি বন্ধ করে দিয়েছেন। বর্তমানে হলটি গোডাউন ঘর হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। মৌসুমী সিনেমা হলের মালিক মনিরুল ইসলাম বলেন, দর্শকশূন্যতার কারণে লোকসান হয়েছে, তাই সিমেনা হল বন্ধ করে সেটি স্কুল ঘর হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। আমার মতো জেলার ১৪টি সিমেনা হলের মালিকরা লোকসানের কারণেই বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে। বর্তমানে ২টি চালু রয়েছে, সেটিও বন্ধ হয়ে যাবে শীঘ্রই।


সাবেক এই হল মালিক আক্ষেপ করে বলেন, সিমেনা হলগুলোকে সচল রাখতে সরকার থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল সহযোগিতা করা হবে। কিন্তু আমরা কোন সহযোগিতা পাইনি। অব্যাহত লোকসানের কারণে হলগুলো বন্ধ হয়ছে। সরকারি সহযোগিতা, মানসম্মত ছবি ও আধুনিকায়ন করে পুরোনে রূপে হলগুলোকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলে মনে করেন মনিরুল ইসলাম ঠাকুরগাঁওয়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নূর কুতুবুল আলম তিনি বলেন, সিমেনা হল মালিকদের সঙ্গে আলোচনা করে বন্ধ হওয়া হলগুলো পুনরায় চালুর চেষ্টা করা হচ্ছে। হলগুলো চালু করার ক্ষেত্রে সরকারি সহযোগিতার প্রয়োজন হলে সেই ব্যবস্থাও করার জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি

All News Report

সম্পর্কিত সংবাদ

ট্রেন্ডিং

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

বরগুনার রিফাত হত্যাঃ স্ত্রী মিন্নিসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

সীমান্তে নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ তাদের বিষয়ে কিছু করার নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মাধ্যমিকে ফেল করা মাহাবুব এখন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

মিন্নিসহ সব আসামীদের সাজা চাইলেন রিফাতের বোন

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

রিফাত হত্যার মাস্টারমাইন্ড মিন্নি: রাষ্ট্রপক্ষ

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

ইউএনও ওয়াহিদা খানম হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

মাজহারের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন শাওন

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বৃদ্ধি নিয়ে যা বললেন মন্ত্রী

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

৩০ দিনের মধ্যে জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে ব্র্যাক ব্যাংক

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

খাদ্যনালী কেটে ফেললেন নার্স, সংকটাপন্ন রুগি

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

মাদ্রাসায় কর্মচারী নিয়োগ: ৬পদে ৪জন চেয়ারম্যান পরিবারের লোক!

স্পর্শকাতর স্থানে হাত ডান্স গুরুর, যা বললেন নোরা

স্পর্শকাতর স্থানে হাত ডান্স গুরুর, যা বললেন নোরা

সর্বশেষ

ইতিহাসের আজকের দিনে

ইতিহাসের আজকের দিনে

১৬০ কোটি টাকায় সরকারি কর্মক'র্তাদের জন্য ৭৬টি ফ্ল্যাট হচ্ছে

১৬০ কোটি টাকায় সরকারি কর্মক'র্তাদের জন্য ৭৬টি ফ্ল্যাট হচ্ছে

রাশিয়ার মধ্যস্থতা মানছে না আর্মেনিয়া-আজারবাইজান

রাশিয়ার মধ্যস্থতা মানছে না আর্মেনিয়া-আজারবাইজান

কন্যাশিশু দিবসের ভাবনা

কন্যাশিশু দিবসের ভাবনা

কোটালীপাড়ায় আমন ধানের সুরক্ষার প্রচেষ্টায় একযোগে “আলোক ফাঁদ ” স্থাপন

কোটালীপাড়ায় আমন ধানের সুরক্ষার প্রচেষ্টায় একযোগে “আলোক ফাঁদ ” স্থাপন

মৃত্যুদণ্ডের রায়ের পরও হাসছিলেন রিফাত ফরাজী

মৃত্যুদণ্ডের রায়ের পরও হাসছিলেন রিফাত ফরাজী

সিলেটে ধর্ষণের প্রতিবাদে শিবিরের বিক্ষোভ

সিলেটে ধর্ষণের প্রতিবাদে শিবিরের বিক্ষোভ

নির্বাচন নিয়ে বিতর্কের মুখোমুখি ডোনাল্ড  ট্রাম্প ও বিডেন

নির্বাচন নিয়ে বিতর্কের মুখোমুখি ডোনাল্ড ট্রাম্প ও বিডেন

শিশুর জন্ম মুসলিম হিসেবেই, আমি কেবল নিজ ধর্মে ফিরেছি: নারী নব মুসলিম

শিশুর জন্ম মুসলিম হিসেবেই, আমি কেবল নিজ ধর্মে ফিরেছি: নারী নব মুসলিম

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

হত্যার পর নদীতে ফেলে দেয়া যুবক ফিরলেন ৬ বছর পর!

কুষ্টিয়ায় হোটেল মালিকগন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

কুষ্টিয়ায় হোটেল মালিকগন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হলেও সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

বাউফলে জোড়া খুনের বিচারের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

বাউফলে জোড়া খুনের বিচারের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

গল্প

গল্প

ভারতের স্থলবন্দর খুলে দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ভারতের স্থলবন্দর খুলে দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টপেজ

স্টপেজ