Md Arifur Rahman - (Barisal)
প্রকাশ ০৫/০৩/২০২২ ০৩:১৭পি এম

ববির বঙ্গবন্ধু হলে পঁচা মাছের ভর্তা বিক্রির অভিযোগ!

ববির বঙ্গবন্ধু হলে পঁচা মাছের ভর্তা বিক্রির অভিযোগ!
ad image
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলে পঁচা মাছের ভর্তা বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর আগেও বিভিন্ন সময়ে খাবারে শামুক, কাকড়া পাওয়া গেছে৷ আবাসিক শিক্ষার্থীরা সেসব ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশসহ অভিযোগ জানালেও ব্যবস্থা নিচ্ছে না হল প্রশাসন। শুক্রবার (৪ মার্চ) বঙ্গবন্ধু হলের রাতের খাবারে তালিকায় পঁচা মাছের ভর্তা বিক্রির অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা ৷

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু হলের রাতের মাছ ভর্তা থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। অথচ তখনও ক্যান্টিন মালিক শিক্ষার্থীদের কাছে মাছ ভর্তা বিক্রি করছেন। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আল ফারিউল সিক্ত বলেন, খাবার খাওয়ার সময় আমি মাছ ভর্তা নেই৷ পরে খাবার মুখে দেয়ার পর গন্ধে খেতে পারিনা৷ পরে আমার বন্ধুদের দেখাই। তারাও বলে মাছ ভর্তা পঁচা ছিল। পরবর্তীতে আমি মাছ পঁচা বলে অভিযোগ জানাই৷ অভিযোগ সত্যতা প্রমাণে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় তখনও পঁচা মাছ বিক্রি করছে৷

আবাসিক শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, একদিকে যেমন রান্নাঘরে ধুলাবালি ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ অন্যদিকে মানহীন ও একই খাবার প্রতিদিন দেয়ায় ডাইনিং-ক্যান্টিনে খাবারের প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছেন তারা। তারা বলছেন, অপুষ্টিকর, পঁচা ও দুপুরের খাবার রাতের খাবারে মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে, যা বাধ্য হয়েই খাচ্ছেন তারা। নিম্নমানের খাবার খেয়ে ক্ষুধামন্দা ও চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ছেন তারা।

পঁচা মাছ ভর্তা বিক্রির বিষয়ে হলের ক্যান্টিন পরিচালক সাকিব বলেন, মাছ ভর্তা অনেক আগে করা, একটু গন্ধ থাকতে পারে। অভিযোগ পেলে আমরা খাদ্যতালিকা সরিয়ে ফেলি৷ তবে, এখনও পঁচা মাছ ভর্তা বিক্রি করছেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমরা মাত্রই সরিয়ে ফেলেছি। এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু হলের প্রোভোস্ট আরিফ হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিবো। তিনি আরও বলেন, আমি হলের ক্যান্টিন মালিককে ফোন দিয়ে পঁচা খাবার বিক্রি করতে নিষেধ করবো।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ