Monir
প্রকাশ ২৮/০২/২০২২ ১২:০৩পি এম

বড়শিতে ধরা পড়ল ৩৩ কেজি ওজনের বাঘাইড়

বড়শিতে ধরা পড়ল ৩৩ কেজি ওজনের বাঘাইড়
ad image
কুমিল্লার গোমতী নদী। কোথাও হাঁটু পানি। কোথাও কোমর পানি। আদর্শ সদর উপজেলার অরণ্যপুর এলাকা। মরা গোমতীতে গত শনিবার রাতে বেশ কয়েকজন মৎস্য শিকারী নদীতে বড়শি ফেলে বসে আছেন। রাত ১০টা। চারদিকে সুনসান নিরবতা।

হঠাৎ করে মঙ্গল দাশের বড়শিতে টান পড়ে। সুতার টান বাড়তে থাকে। বড় কিছু একটা টের পান মঙ্গল দাশ। দীর্ঘ এক ঘণ্টা চেষ্টার পোড় রাত প্রায় সোয়া ১১ টায় মাছটি পাড়ে তোলা হয়। বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকেন অন্য মৎস্য শিকারিড়াও। এত বড় বাঘাইড় গোমতী নদীতে। নিজের বড়শিতে ধরা পড়ল বলে তৃপ্তির হাসি ফুটে মঙ্গলের চোখে।

রবিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) কুমিল্লা নগরীর রাজগঞ্জে বাঘাইড় মাছটি নিয়ে আসেন মঙ্গল দাশ। এত বড় বাঘাড়ই দেখতে উৎসুক মানুষের ভিড় বাড়ে। রাজগঞ্জ বাজারে মাছের আড়তদার মো. পেয়ার মিয়া। তিনি মাছটির ওজন দেন। ৩৩ কেজি ওজনের মাছটি পেয়ার মিয়ার মাধ্যমে ২৫ হাজার ২০০ টাকায় কিনে একটি সুপার শপের লোকজন।
আজ সোমবার বাঘাইড় মাছের বিষয়টি আলোচনায় আসে। পেয়ার মিয়া বলেন, মঙ্গল দাশের মাছটি ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছি। এত বড় মাছ গোমতীতে সচারাচর দেখা যায় না। ১৯৯৪ সালে গোমতী নদীতে একবার ৬২ কেজি ওজনের একটি বাঘাইড় মাছ ধরা পড়েছিল। মাঝে এত বছর পর আরেকটি বড় মাছ পাওয়া গেল।

মঙ্গল দাশ জানান, তার বাড়ি বরিশালের সদরে। তিনি কুমিল্লা নগরীতে ভাড়া থাকেন। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে গোমতী নদীতে বড়শি ফেলে মাছ ধরায় আশায় ছিলেন। এই এক সপ্তাহ তার বড়শিতে কোন মাছ ধরা দেয় নি। তবে এক সপ্তাহ পর তার বড়শিতে এত বড় মাছ ধরা পড়বে তা যেন বিশ্বাসই হচ্ছিলো না।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ