About Us
Nazrul
প্রকাশ ২৫/০৮/২০২০ ১১:২৫এ এম

পশ্চিমবঙ্গে বাঙালির সঙ্গে প্রেম করায় আদিবাসী নারীকে গণধর্ষণ

পশ্চিমবঙ্গে বাঙালির সঙ্গে প্রেম করায় আদিবাসী নারীকে গণধর্ষণ Ad Banner

আদিবাসী হয়ে বাঙালি পুরুষের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ায় গণধর্ষণের শিকার হলেন এক নারী। সাঁওতাল সম্প্রদায় ওই নারীকে শাস্তির নামে এমন বর্বরোচিত ঘটনার জন্ম দেয়। পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের আদিবাসী সমাজে এমন নিষ্ঠুর ও অমানবিকতার ঘটনা ঘটেছে।


জানা গেছে, আদিবাসী সমাজের মেয়ে হয়েও একজন অ–আদিবাসী যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের জেরে গাছের সঙ্গে বেঁধে তাদের মারধর করা হয়।পরে গভীর রাতে স্থানীয় ক্লাবের পাঁচ যুবক ওই নারীকে ধর্ষণ করে।  পরদিন সকালে আবার গ্রাম্য সালিশে ওই নারীকে ১০ হাজার টাকা এবং বাঙালি যুবককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।


এতে ভিক্টিমের শিকার সেই নারী স্থানীয় থানায় একটি মামলা দায়ের করে। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে জলপা হাঁসদা ও তাম্বর মরান্ডিসহ গ্রামের মাতবরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷ আদালত তাদের সাত দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন মঞ্জুর করেছে৷


৩০  বছর বয়সী ওই নারী স্বামী কয়েক বছর আগে মারা যান। বিধবা ওই নারীর দুই সন্তান রয়েছে। সম্প্রতি স্থানীয় এক ব্যাঙ্ক কর্মচারী পার্থ সাহার সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে৷ এটাই কাল হলো তাঁর।


আদিবাসী সমাজের হয়েও ভিন্ন কারও সঙ্গে সম্পর্কের জন্য সমাজপতিরা তাঁকে শাস্তি প্রদান করে। গণধর্ষণ করাটা অন্যায় ছিল মনে করেন সাঁওতাল সম্প্রদায়ের কেউ কেউ। কিন্তু বাঙালি যুবকের সঙ্গে এক সাঁওতাল নারীর সম্পর্ক যে 'অন্যায়'এটাই মনে করে তারা।এদিকে, ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃতদের পরিবার দাবি করছে, গণধর্ষণ হয়নি ওই নারী৷ কিন্তু স্থানীয় জেলা হাসপাতালে  ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে৷


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ