Monir
প্রকাশ ২১/০২/২০২২ ০৩:৫০পি এম

হঠাৎ টিকাকেন্দ্রে উপচে পড়া ভিড়

হঠাৎ টিকাকেন্দ্রে উপচে পড়া ভিড়
ad image
ঢাকার সাভারের আজ রোববার করোনাভাইরাসের টিকাদান কেন্দ্রে মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ২৬ ফেব্রুয়ারির পর প্রথম ডোজ টিকাদান বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণার পর আজ রোববার সাভারের হেলথ ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট কেন্দ্রে ১২ হাজারের বেশি নারী-পুরুষ টিকা নিতে এসেছিলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানান, সাভার এলাকার একমাত্র এই টিকাকেন্দ্রে এর আগে একদিনে সর্বোচ্চ ৪-৫ হাজার জনকে টিকা দেওয়া হলেও, আজ অন্তত ১২ হাজার জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

সরেজমিনে টিকাকেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, টিকা নিতে যারা এসেছেন তাদের অধিকাংশই পোশাক শ্রমিক। লাইনে গাদাগাদি করে তারা দাঁড়িয়ে আছেন, টিকা কেন্দ্রের প্রবেশ পথ বন্ধ থাকায় ফিরে যাচ্ছেন অনেকে। পুলিশ সদস্যসহ টিকাকেন্দ্রের সেচ্ছাসেবকদের ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে।


২৬ ফেব্রুয়ারির পর আর প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হবে না
Read more
দুপুরে টিকা নিতে এসেও ভিড়ের কারণে ফিরে যাচ্ছিলেন পোশাক শ্রমিক রহিমা খাতুন। দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, '১ম ডোজ টিকা দেওয়া আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে বন্ধ হয়ে যাবে। এ কারণে আজ টিকা নিতে এসেছিলাম। কিন্তু কেন্দ্রে ঢুকতে না পেরে ফিরে যেতে হচ্ছে।'

পোশাক শ্রমিক সোহেল রানা বরকত দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, তিনি সকাল ৮টার দিকে টিকাকেন্দ্রে আসেন। দীর্ঘক্ষণ লাইনে গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে থেকে দুপুর ১টার দিকে টিকা নিতে পেরেছেন।

টিকা নিতে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার পোশাক শ্রমিক লুৎফর নাহার ডেইলি স্টারকে বলেন, 'কারখানা থেকে গেট পাস নিয়ে টিকা নিতে এসেছি সকাল ১০টায়। দুপুর দেড়টা পর্যন্ত টিকা নিতে পারিনি।'


টিকা নিতে যারা এসেছেন তাদের অধিকাংশই পোশাক শ্রমিক। ছবি: আকলাকুর রহমান আকাশ/স্টার
'আমাদের কারখানায় টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হলে আমাদের জন্য সহজ হতো। এখন আমাদের ভোগান্তি হচ্ছে,' বলেন তিনি।

জানতে চাইলে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সায়েমুল হুদা সন্ধ্যায় দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আজ হঠাৎ টিকাকেন্দ্রে মানুষের ঢল নামে। মানুষকে সামাল দিতে আমাদের হিমশিম খেতে হয়েছে। টিকাকেন্দ্রের ১৮ বুথে ৬০-৭০ জন কর্মী কাজ করেছেন।'

তিনি জানান, এই কেন্দ্রে একদিনে সর্বোচ্চ ৪-৫ হাজার জনকে টিকা দেওয়া হলেও, আজ এখানে ১২ হাজারের বেশি লোককে ১ম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে।

তবে কেন্দ্র থেকে কাউকেই টিকা না নিয়ে ফিরে যেতে হয়নি বলে দাবি করেন তিনি।

কী কারণে হঠাৎ টিকাকেন্দ্রে মানুষের ভিড় হলো, জানতে চাইলে ডা. হুদা বলেন, 'করোনার প্রথম ডোজ টিকাদান বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণার কারণে এই ভিড় হতে পারে। তবে এ ধরনের কোনো সিদ্ধান্ত আমাদের জানানো হয়নি।'

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ