Md. Jillur Rahman Russell - (Faridpur)
প্রকাশ ১৪/০২/২০২২ ১১:৫৯পি এম

ফরিদপুরে প্রক্রিয়াজাত মাছের বাজারজাত শুরু

ফরিদপুরে প্রক্রিয়াজাত মাছের বাজারজাত শুরু
ad image
জিল্লুর রহমান রাসেল, ফরিদপুর

ফরিদপুরে প্রক্রিয়াজাত মাছের বাজারজাত শুরু করেছে হ্যাভেন ফিসারিজ। শহরের ঝিলটুলির ডায়াবেটিক হাসপাতালের মোড়ে রশিদ প্লাজায় হ্যাভেন ফিস প্রোডাক্ট নামের এই প্রতিষ্ঠানটির উদ্বোধন করা হয়।

১৪ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকাল ১১.৩০ টায় হ্যাভেন ফিসারিজের এই প্রতিষ্ঠানটির উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিসারিজ টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডঃ এ কে এম নওশাদ আলম।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারি পরিচালক বিজন কুমার নন্দী ও সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শিরিন শারমিন খান।

এখানে বিভিন্ন প্রজাতির প্রক্রিয়াজাত দেশী মাছ (কাটাসহ ও কাটাছাড়া) পাওয়া যাবে। এই প্রতিষ্ঠান থেকে মাছ কিনে বাড়িতে নিয়েই রান্না করা যাবে। এছাড়াও এখানে মাছ দিয়ে তৈরি বিভিন্ন প্রকার মুখরোচক খাবারও পাওয়া যাবে। আরও পাওয়া যাবে ইলিশ মাছের নুডুলস ও সুপ।

প্রতিষ্ঠান প্রধান মোঃ নাসির উদ্দিন তার এই উদ্যোগের বিষয়ে বলেন, আমি দীর্ঘদিন যাবৎ মাছের খামার করেছি। আমার এই হ্যাচারিতে নানা প্রজাতির মাছের উৎপাদন হয়। আমি চাচ্ছিলাম মাছ নিয়ে অন্যরকম কিছু করতে। সেই ভাবনা থেকে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম স্যারের সহযোগীতায় ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিসারিজ টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক এ কে এম নওশাদ আলম স্যারের কাছে প্রশিক্ষণ নিয়ে মাছের এই ব্যতিক্রম আয়োজন। এখান থেকে ফরিদপুরসহ সারা দেশে প্রক্রিয়াজাত সরবরাহ করা হবে। এছাড়া অনলাইনের মাধ্যমেও মাছ বিক্রির ব্যবস্থা রয়েছে। এখান থেকে মাছ কিনে বাসায় দিয়ে আর কাটার ঝামেলা থাকবে না। নিয়েই রান্না করা যাবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমানে আমরা প্রায় সকলেই চাকুরিজীবী। এক সময় মায়েরা বাড়িতেই থাকতো রান্না বান্না নিয়েই সময় পার করতো। তখন নানা রকম রান্না হতো কিন্তু এখন সময়ের অভাবে রান্নায় ভিন্নতা নেই ফলে আমাদের সন্তানদের মাছের প্রতি যে অনিহা তৈরি হয়েছে তা দুর করতেই আমাদের এই পদ্ধতির উদ্ভাবন করা হয়েছে। এতে মাছ দিয়ে নানা রকম খাবার তৈরি হচ্ছে যাতে স্বাদেও ভিন্নতা আছে এবং খাদ্যের পুষ্টিগুণও বজায় থাকবে। ফলে আমাদের বাচ্চারা মাছ খেতে আগ্রহী হবে। খুব শীঘ্রই এই প্রক্রিয়াজাত মাছ আমরা বিদেশেও রপ্তানি করতে পারবো।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ