এসএম হাসান আলী বাচ্চু - (Satkhira)
প্রকাশ ১৪/০২/২০২২ ০৮:০৩পি এম

মানুষের তৈরী বৃষ্টি দিয়ে আঘাত

মানুষের তৈরী বৃষ্টি দিয়ে আঘাত
ad image
আমি আপনি সকলেই মহান সৃষ্টিকর্তার নির্দেশে মাথার উপর থাকা সুবিশাল আকাশ থেকে বৃষ্টি হতে দেখেছি। আর সেই বৃষ্টিতে/বৃষ্টির পানিতে ছোট বেলায় শুধু ছোট বেলায় কেন যুবক বয়সে অথবা ছাতা না থাকার কারনে ভিজেছিকারনে অকারনে। এটায় হলো সৃষ্টি কর্তার দেওয়া একটা নিয়ামক বলা যেতেই পারে। তবে তার তৈরীকরা মানুষের তৈরী করা যদি বৃষ্টি কারও আছে তখন কেমন লাগে। হ্যা বলবো কিছু মানুষনামক বিষধর মানুষের কথা।যারা শুধু মাত্র নিজের জীবনকে পরিচালনা করার জন্য যে কারও সাথেযা খুশী তাই করতে পারে।

আমাদের কাছে বলা দেশে একটি প্রবাদ খুব সুপরিচিত মানুষ মানুষের জন্য জন্য,জীবন জীবনের জন্য এই উক্তিটি যেমন খুবই জনপ্রিয় তেমনি আমরা মানুষরা এ-র ব্যাতিক্রম প্রতিফলন ঘটায়। তেমনি একটি প্রতিফলন হয়েছে আমার জীবনে যার জন্য ভোগান্তি যেন বেরেই চলেছে।মানুষ জন্মের পরে ধীরে ধীরে যখন যুবক বয়সে পর্দাপন করি তখন আমরা নিজেদের মনের খোরাক মেটানোর জন্য কোন মেয়ের সাথে প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে তুলার চেষ্টা করি।

করে তার মনের মানুষ নিয়ে অনেক ধুর ভবিষৎ চিন্তা করে আবার কেও ব্যার্থ হয়ে নির্বাসনের মতো জীবন যাপন করে বিরহের ব্যাথাবুকে নিয়ে। তেমনি আমি বিরহের ব্যাথা নিয়ে বেচে আছি। আপনারা ভাবছেন আমি কেন দুঃখেরকথা নিয়ে কেন এতে বেশি লিখি? এ-র কোন সঠিক উত্তর আমার জানা নেই।যায় হোক মানুষের জীবনে হাসি, সুখ তার বেশি দুঃখ নিয়ে দিনাতিপাত করে আমি তাদের মধ্য একজন। সময়ের সাথে অনেকে ভুলে যায় আবার কেও সেটা আকারে থাকার চেষ্টা করে। সেই চেষ্টা যদি হয় আরও বেদনার তাহলে কিছুই করার থাকে না। যেমন আমি এখনও আকারে ধরার চেষ্টা করছি। এবার আসি আকরে ধরার বিষয় নিয়ে। ও-ই যে বলেছিলাম যুবক বয়সে সকলে তার মনের মানুষ কে খোজে আমি তাই করেছিলাম তাকে নিয়ে পরবর্তী জীবনটা কাটাতে চেয়ে ছিলাম কিন্তু নিলাখেলার মধ্য তাকে হারিয়ে ফেললাম নিয়তি হয়তো আমার শরনার্থী ছিল না তাই এমনি ঘটেছিল। সেই মনের মানুষ আমাকে ছেড়ে চলে গেছে অনেকটা ধুরে তবে আবার এতটা ধুরে নই তাকে দেখতে পারবো না ।

দেখতে পারবো তবে তাকে আর কখনও আর মনের কথা বলতে পারবো না। তাকে নিয়ে নির্জনে নিবিঘেœ পথে পারি দেওয়া হবে না।কোথাও বলতে পারবো না তুমি আমার আমি তোমার। সারা জীবনের জন্য শুধু আক্ষেপ করা ছাড়া কিছুই করার থাকে না। তবে আমি এই লিখনি মধ্য তাকে একটু মনে করার চেষ্টা করার বৃথা প্রয়াস করছি মাত্র। তবে এই বৃথাপ্রয়াস নিয়ে কতদিন বেচে থাকতে পারবো জানি না।তবে একটা কথাও ঠিক বিচ্ছিদের বাজারে তোমার প্রেম বিকি দিয়া করব না প্রেম আর যদি কেও কয়। এবার আসি তার কথা নিয়ে ১৪সালেতার সাথে প্রথম দেখা সরকারী কলেজে তারপর ধীরে ধীরে চলতে থাকে তাকে নিয়ে পথ চলা। পথেচলতে চলতে তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখলাম অনেক ছোট্ট একটা জীবন গড়ার। সেই স্বপ্ন যখন মিথ্যাতে পরিনত হয়ে নিসর্গ টায় চলতে হবে জানা ছিল না।

যায় হোক দীর্ঘ ৫-৬ টিকে বছরের ভালোবাসা সম্পর্কে ইতি টেনে যখন সে চলে গেল অন্যর জীবনকে রাঙ্গানোর জন্য তখন তাকে কি বলা যায় সেটা আনি জানি না কিন্তু একটু বলতে পারি সেখানে গিয়ে তুমি কি সুখি হবে নাকি তাকেও আমার মতন এমন নিঃসঙ্গ করবে? ১৯সালে সে আমাকে ছেড়ে চলে গেছে অন্যর কাছে। বেশ কয়েকমাস হয়ে গেছে সে আমাকে ছেড়ে চলে কিন্তু কি করতাম আমি আশা জন্য আশা ছেড়ে দিতাম? নাকি টুকরো হয়ে স্বপ্ন গুলো নতুন আশা দেওয়ার চেষ্টা করতাম।

এতদিন পরে মনে হয়ে যেন সে হয়তো আমার আছে।কঠিন পথগুলো পাড়ি দেওয়ার বৃথা চেষ্টা করছি কিন্তু এটা জানি না সামনের পথে গুলো আরও কঠিন হবে কিনা। জানি না সেখানে গিয়ে সে কেমন আছে। তবে আমি মনে করিভালে থাকার মিথ্যা অভিনয় করছে। আর এদিকে আমি তাকে হারিয়ে হয়েছি এক প্রকার নিস্ব তবে হেরে যায়নি। হারতেও চাইনা কোন একটা সময় তার স্মৃতি মনে পড়লে খুব কান্না পায়। সেই পথে চলা,রাগা রাগি,তাকে শাসন করা আবার আমাকে শাসন করা সহ বিরহের বিষয় গুলো।লিখনির কথা বলতে গিয়ে সেই তার নামটি অবশ্য বলা হয়নি কি আর করা নামটি জানায় আপনাদের নাম হলো আয়শা আক্তার আছমা তবে আমি ডাকতাম আশা নামে। তার আর আমার বিষয়ে বিস্তারিত আমার আগের লাগে লিখনি "কি দোষ ছিল আমার'' গত১৪ ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশ করা হয়েছে।

তবে আগের লিখনিটা আমি তার জন্য উসর্গ করতে চেয়ে ছিলাম সে দেখেছে কিনা বলা পড়েছেকি সেটা বলতে পারবো না। প্রথমে বলেছি সৃষ্টি কর্তার দেওয়া বৃষ্টি র কথা। এই বৃষ্টি 'পানি নিয়ে আমাদের মানুষের অনেক কাজে লাগে এটা হলো সৃষ্টি কর্তার কোটি লক্ষ নিয়ামকের মধ্য একটা। তবে মানুষের তৈরী বৃষ্টি হয়ে বিষাদের মতন। কিছু কিছু স্বপ্ন কারও বলে আসে সেই স্বপ্ন গুলো হয়ে যায় কঠিন কষ্টের। আর যদি মানুষের তৈরী বৃষ্টি কারও উপর বর্ষিত হয় সেটা হয়ে আরও বিরহের। আর সেই মানুষের তৈরী বৃষ্টি আমার উপড়ে আসলো নিদ্বয় হয়ে। সেই নিদ্বয় এমনি হলো আমার জীবনকে নিশব্দ করে নিসঙ্গ করে দিলো । ভালো থাকুক মানুষের তৈরী বৃষ্টি দিয়ে আঘাত দাতারা। লেখকঃ সাংবাদি

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ

MD hedaetul Islam - (Sirajganj)
প্রকাশ ২৮/০২/২০২২ ০৩:৫৫এ এম
MD hedaetul Islam - (Sirajganj)
প্রকাশ ০২/০৩/২০২২ ০৩:৪৩এ এম