রফিকুল ইসলাম - (Joypurhat)
প্রকাশ ১৪/০২/২০২২ ০৩:০১এ এম

মোটরসাইকেল না পেয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রের আত্মহত্যা

মোটরসাইকেল না পেয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রের আত্মহত্যা
ad image
জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া সালাউদ্দিন হোসেন (১৭) নামের এক শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার সকালে উপজেলার তালশন নয়াপাড়া গ্রামে নিজ বাড়ির সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সালাউদ্দিন মো. আন্তাজ আলীর ছেলে এবং ক্ষেতলাল সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী ছিলো।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সালাউদ্দিন কয়েক দিন ধরে মা-বাবার কাছে একটি মোটরসাইকেল কিনে দেওয়ার বায়না ধরেছিল। কিন্তু পরিবারের অসচ্ছলতার কারণে তার মা–বাবা মোটরসাইকেলটি কিনে দেননি। সে তাঁদের অনেক চাপ দিলে তাঁরা মাধ্যমিক পরীক্ষার পর কিনে দেবেন বলে তাকে জানান। এ নিয়ে গতকাল শনিবার দিনের বেলা মা–বাবার সঙ্গে মোটরসাইকেল কিনার বিষয় নিয়ে সালাউদ্দিনের মনোমালিন্য হয়। পরে সে রাতে খাওয়াদাওয়া শেষে সালাউদ্দিন নিজের ঘরে ঘুমাতে যায়। রবিবার সকালে ঘুম থেকে না ওঠায় তার মা দরজার সামনে গিয়ে অনেক ডাকাডাকি করেন। এতে কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে তিনি জানালা খুলে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে তাকে রশিতে ঝুলতে দেখেন। এরপর স্থানীয় স্বজনেরা দরজা ভেঙে সালাউদ্দিনের মরদেহ নিচে নামান।

মৃত সালাউদ্দিনের বাবা মো. আন্তাজ আলী বলেন, ‘সালাউদ্দিন আমাদের কাছে একটি মোটরসাইকেল চেয়েছিল। আমি এখন মোটরসাইকেল কিনে দিতে পারব না বলে জানিয়েছিলাম তাকে। এতে সে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে। ছেলে এত অভিমানী হতে পারে, আমি কখনো ভাবতেই পারিনি।

ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নীরেন্দ্র নাথ বলেন, মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় মা-বাবার ওপর অভিমান করে সালাউদ্দিন হোসেন নামের দশম শ্রেণির এক ছাত্র আত্মহত্যা করেছে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ