Md shohag Hossen - (Patuakhali)
প্রকাশ ১৮/০১/২০২২ ১২:১১এ এম

Mirzaganj: ভাই ডাকাতে সাংবাদিককে বেয়াদব বললো নির্বাচন অফিসার

Mirzaganj: ভাই ডাকাতে সাংবাদিককে বেয়াদব বললো নির্বাচন অফিসার
ad image
ভাই ডাকাতে মির্জাগঞ্জে সাংবাদিককে বেয়াদব বললেন নিবার্চন অফিসার। সোমবার দুপুরের দিকে উপজেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

জানাযায়, রিয়াজ কাজী নামে এক ব্যক্তির জাতীয় পরিচয় পত্রের ভুল সংশোধনের বিষয়ে জানতে উপজেলা নিবার্চন কর্মকতার্র অফিসে যান দৈনিক যুগান্তরের মিজার্গঞ্জ প্রতিনিধি ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাদ্দাম।

এ সময়ে নিবার্চন অফিসারকে ভাই বলে সম্মোধন করে সমস্যাটির সমাধান করার করনীয় বিষয়ে জানতে চাওয়ায় ক্ষেপে যান তিনি । তখন তিনি ওই সাংবাদিককে বলেন, আমাকে ভাই
বললেন কেন? আমি আপনার কেমন ভাই? খালাতো ভাই না চাচাতো ভাই? এসব বলে তিনি ওই সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচরণ করেন।

পরে তিনি পরিচয় পত্রের সংশোধনের ব্যাপারে কোন কিছুই না বলে অন্য কাজে ব্যস্ত হয়ে পরেন। মিজার্গঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাদ্দাম বলেন, উপজেলা
নিবার্চন কর্মকতার্কে ভাই বলে সম্মোধন করায় তিনি আমার ওপর ক্ষেপে গিয়ে বেয়াদবসহ নানান অশোভন আচরণ করেছেন। আমি উপজেলা নিবার্হী কর্মকতার্কে বিষয়টি অবহিত
করেছি।

মিজার্গঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট মো. মজিবুর রহমান বলেন, আসলে উপজেলা নিবার্চন কর্মকর্তা কাজটি ঠিক করেননি। তাদের কাছে মানুষ সেবা পেতে চায়। তার আচরণে
মনে হচ্ছে তিনি জনগণের কাছ থেকে শুধু স্যার সম্মোধন শুনতেই এসেছেন।

তার বক্তব্য প্রত্যাহার করা উচিত। মিজার্গঞ্জ উপজেলা নিবার্চন অফিসার মো. শাহাদাৎ হোসেন সাংবাদিকদের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি তাকে ভালো চিনি না। তিনি আমাকে ভাই বলে সম্মোধন করেছেন।

পটুয়াখালী জেলা নিবার্চন কর্মকর্তা খান আবি শাহানুর খান বলেন, ‘বিষয়টি দুঃখজনক। মিজার্গঞ্জ নিবার্চন কর্মকর্তা কেন এরকম অশোভন আচরণ করেছেন, তার কাছে জানতে চাওয়া হবে।

মিজার্গঞ্জ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোসা. তানিয়া ফেরদৌস বলেন, ‘ বিষয়টি অবগত হয়েছি। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ